Wednesday, April 12th, 2017
আখের রস খেয় মৃত্যু ডেকে আনছেন নাতো!
April 12th, 2017 at 10:36 am
আখের রস খেয় মৃত্যু ডেকে আনছেন নাতো!

এম কে রায়হান: তরল পানীয়র মধ্যে আখের রস সবার কাছে পরিচিত। আমরা সবাই এর গুনাগুন সম্পর্কে কমবেশি জানি। আখের রস হাড় ও দাঁতের উন্নয়নে সাহায্য করে, নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ ও দাঁতের ক্ষয় প্রতিরোধ করে, ব্রণ দূর করে, নিরাপদ গর্ভধারণ নিশ্চিত করে, ইনস্ট্যান্ট এনার্জি বুস্টার হিসেবে কাজ করে। কিন্তু এ রস যেভাবে ফুটপাতে খোলা জায়গায় অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে, ধূলা-বালি, মশা-মাছির মধ্যে, বিশেষ করে নোংরা ও দূষিত পানি দিয়ে তৈরিকৃত বরফ দিয়ে এ রস পরিবেশন করা হচ্ছে তাতে কোনো উপকার তো নয় বরং আমরা নিজের অজান্তে নানা জীবাণু প্রতিনিয়তই নিজের শরীরে অবাধে ঢুকতে সাহায্য করছি।

আখের রস নগরীর ফুটপাতে বছরের বারো মাসই সর্বত্র কিনতে পাওয়া যায়। আর বর্তমানের প্রচণ্ড গরম থেকে স্বস্তি পেতে অনেকেই পান করছে এ রস। ফলে আগের চেয়ে চাহিদাও বেড়েছে আখের রসের। কিন্তু আমরা যারা এ রস পান করছি তারা কি কোনো দিন ভেবেছি কিভাবে এ আখের রস পরিবেশন করা হচ্ছে। এটা স্বাস্থ্যসম্মত কিনা। এসব না ভেবেই আমরা এ রস খাচ্ছি।

রাজধানীর প্রায় প্রতিটি আখের রসের দোকানে গিয়ে দেখা গেছে, মশা-মাছি, ধূলা-বালিসহ বাতাসে প্রবাহিত যত রোগের জীবাণু আছে সবই এসে পড়ছে আখের ওপর। দেখা গেছে, শত-শত মশা-মাছি আখের ওপর বসে আছে। এই মাছি বিভিন্ন মল-মূত্র, কফ-থুথুতে বসে আবার তারা আখের ওপর বসছে এবং তাতে ডিম পাড়ছে। যা আমরা খালি চোখে দেখি না। এবং যে মেশিনে আখ ভাঙানো হচ্ছে সেই মেশিনও অত্যন্ত পুরানো এবং জং ধরা। সেই মেশিনও নানা রকম জীবাণু বহন করছে। আর যে গ্লাসে রস পরিবেশন করা হচ্ছে সেই গ্লাস অত্যন্ত নোংরা যা একই পানিতে বার বার কোন রকম ধুয়ে একই গ্লাসে সবাইকে খেতে দিচ্ছে। এদিকে, যারা আখের রস বিক্রি করছে তাদের পোশাক-আশাক, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, চুল, হাত নোখ, বলতে গেলে খুবই নোংরা এবং অপরিচ্ছন্ন। নিজের হাত দুটোকে পর্যন্ত তারা ঠিকমতো পরিস্কার করে না। যেই হাত আখ ধরছে সেই হাত দিয়েই টাকা লেনদেন করছেন। এরা নিজের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বলতে কিছুই জানে না। স্বাস্থ্য সচেতনতা বলতে এদের কোনো জ্ঞান নেই বললেই চলে। ফলে এ রস সবার স্বাস্থ্যের জন্য খুবই হুমকিস্বরূপ।

সোহরাওয়ার্দি মেডিক্যাল কলেজের অধ্যাপক আ.স.ম. সেলিম রেজা নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে বলেন, ‘রাস্তার পাশে আখের রসসহ ঠাণ্ডা জাতীয় যেসব শরবত বিক্রি হচ্ছে তা খুবই অস্বাস্থ্যকর। রাস্তা থেকে ঠাণ্ডা শরবত পানকারীরা ডায়রিয়া, আমাশয় ও জন্ডিসের জীবাণু দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন। কারণ এসবে বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার হয় না। এক্ষেত্রে আমরা যদি আখের রস পান না করে সরাসরি আখ খাই তবে তা হবে স্বাস্থ্যসম্মত।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা হরহামেশাই দেখি, আমাদের দেশে যারা টাকা লেনদেন করে তারাই আবার সেই ময়লা হাত দিয়ে খাবার পরিবেশন করে। কাগজের টাকার মধ্যে গ্রাম পজিটিভ, গ্রাম নেগেটিভ- দু’ধরনের জীবাণু পাওয়া যায়। রিকশাচালক, গণপরিবহন কন্ডাক্টর, মাছ ও সবজি বিক্রেতাদের দ্বারা টাকা সবচেয়ে বেশি দূষিত হয়। টাকায় বিদ্যমান জীবাণুর মধ্যে রয়েছে, ই. কোলাই, স্ট্যাফাইলোকক্কাস অরিয়াস, মাইকোব্যাক্টেরিয়াম টিউবারকোলোসিস, ভিব্রিও কলেরি, করিনেব্যাক্টেরিয়াম, মাইক্রোকক্কাস, ক্লেবসিলা, সালমোনেলা, সিওডোমোনাস ও বেসিলাস প্রজাতির ক্ষতিকর জীবাণু। এসব ক্ষতিকর জীবাণুর কারণে দেহে খাদ্য বিষক্রিয়া, ডায়রিয়া, আমাশয়, চর্মের সংক্রমণ, শ্বাস-প্রশ্বাস ও পরিপাকতন্ত্রের সমস্যাসহ মরণঘাতী রোগ মেনিনজাইটিস ও সেপ্টেসেমিয়া সৃষ্টি হতে পারে।’


সর্বশেষ

আরও খবর

আসন্ন হৃদরোগের লক্ষণ কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল

আসন্ন হৃদরোগের লক্ষণ কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল


২০২২ সালের মধ্যে জলাতঙ্কমুক্ত হবে বাংলাদেশ

২০২২ সালের মধ্যে জলাতঙ্কমুক্ত হবে বাংলাদেশ


চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে গাপ্পি মাছ

চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে গাপ্পি মাছ


স্কেলিং কি দাঁতের ক্ষতিকারক?

স্কেলিং কি দাঁতের ক্ষতিকারক?


পাকস্থলী ক্যানসারের ওষুধ টমেটো!

পাকস্থলী ক্যানসারের ওষুধ টমেটো!


রাজধানীর ২১টি এলাকা চিকনগুনিয়া বিস্তারে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ

রাজধানীর ২১টি এলাকা চিকনগুনিয়া বিস্তারে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ


সিরাজগঞ্জে শিশু-মহিলাসহ ২১ জন অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত

সিরাজগঞ্জে শিশু-মহিলাসহ ২১ জন অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত


মেডিকেলে ভর্তি: দ্বিতীয়বার পরীক্ষায় নম্বর কর্তন

মেডিকেলে ভর্তি: দ্বিতীয়বার পরীক্ষায় নম্বর কর্তন


প্রচণ্ড গরমে বাড়ছে শিশুরোগীর সংখ্যা

প্রচণ্ড গরমে বাড়ছে শিশুরোগীর সংখ্যা


হিট স্ট্রোক থেকে বাঁচতে যা করবেন

হিট স্ট্রোক থেকে বাঁচতে যা করবেন