Saturday, March 18th, 2017
ধর্মানুভূতি’র রাজনীতি ও ফেসবুক লাঠিয়াল
March 18th, 2017 at 4:04 pm
ধর্মানুভূতি’র রাজনীতি ও ফেসবুক লাঠিয়াল

মাসকাওয়াথ আহসান: দুটি ধর্মপ্রাণ মুসলিম দেশ ফেসবুকের কাছে আবেদন জানায়, তাদের দেশের সংস্কৃতি ও চেতনার সঙ্গে সাযুজ্য রেখে ফেসবুক পরিচালনা করতে হবে। ফেসবুকে যেন দেশ দুটির নানারকম অনুভূতিতে কোন প্রকার আঘাত না হানা হয় সেজন্য আকুল অনুরোধ জানানো হয়। এই প্রস্তাব শুনে ধর্মপ্রাণ খ্রিস্টান দেশের প্রেসিডেন্ট তার সুর মেলায়। ক্ষিপ্ত হয়ে বলে, ‘আমার দেশে বসে ফেসবুক চালাতে গেলে আমার কথা অনুযায়ী চলতে হবে।’

এসব মামুর বাড়ির আবদারের কথা শুনে ফেসবুক প্রতিনিধিরা অত্যন্ত বিরক্ত হয়ে ফেসবুকের প্রধান মার্ক জুকারবার্গকে জানায়। জুকারবার্গ আজকাল ফেসবুকে একদম সময় দিতে পারে না। তাকে সারাক্ষণ কিচেনে পেয়াজ কাটতে ব্যস্ত রাখে তার স্ত্রী। স্ত্রী পঁই পঁই করে বলে দিয়েছে, ‘সমসাময়িক নারীবাদী পুরুষ হতে গেলে তোমাকে পেয়াজ কাটতেই হবে।’

জুকি ফেসবুক প্রতিনিধিকে জিজ্ঞেস করে, ‘চীন কী কোন আবদার করেছে!’

প্রতিনিধি জানায়, ‘চীন বলছে ওরা নাকি তোমাকে ওনিয়ান ডিপ্লোম্যাসিতে ব্যস্ত রেখেছে। আর আসছে কটা বছর তোমাকে বেবি সিটিং ডিপ্লোম্যাসি দিয়ে ব্যস্ত রাখবে সন্তান পরিচর্যায়। ফেসবুক পরিচর্যার সময় নাকি তুমি আর পাবে না!’

জুকি কান্না লুকিয়ে হাসি হাসি মুখে বলে, ‘এ নেহাত আমার চীনা শ্যালকদের রসিকতা। তো আর কোন কোন দেশের কী আবদার!’

‘ঐ সেই পাকিস্তান; তারা আবদার করেছে, ফেসবুকের মাধ্যমে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত বন্ধ করতে হবে।’

জুকি হাসে, ‘এই কয়বছর অনুভূতি ছিলো কোথায়! এখন ইলেকশানের আগে কেন ফেসবুক নিয়ে মাথাব্যথা! এটা আসলে কী ধর্মীয় অনুভূতি নাকি রাজনৈতিক অনুভূতি! এর আগের ইলেকশানের আগে তারা ইউটিউব ব্লক করেছিলো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অজুহাতে। অথচ মুসলিম অধ্যুষিত মধ্যপ্রাচ্য ও আরব বিশ্বে ইউটিউব খোলা ছিলো। এতো ধর্মীয় অনুভূতি পাকিস্তান কোত্থেকে পায়! পরে খোঁজ নিয়ে জানলাম, রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ে অসংখ্য ব্যাঙ্গ-বিদ্রুপের ভিডিও দেখা বন্ধ করতেই এই ধর্মীয় অনুভূতির অজুহাত থলে থেকে বের করেছিলো ওরা। এবারের ব্যাপারটাও তাই। ইলেকশানের আগে পানামা লিকস দুর্নীতি নিয়ে আলোচনা বন্ধ করতেই এই আবদার।’

ফেসবুকের প্রতিনিধি বলে, ‘কিন্তু ইলেকশানে জিতে খ্রিস্ট অনুভূতি ও শ্বেতাঙ্গ অনুভূতির দেশ এমেরিকার নতুন প্রেসিডেন্ট কেন ফেসবুক নিয়ে এতো চিন্তিত! তার ইলেকশান তো অনেক দেরী!’

— ‘নতুন প্রেসিডেন্ট তো শুধু সোশ্যাল মিডিয়া কেন! মিডিয়াই রাখতে চায়না দেশে। সে বলছে, যদি একান্তই ফেসবুক থাকে; তাকে সিএনএন-এর মতো গৃহপালিত পশু হতে হবে।’

জুকারবার্গ হাসে।

‘ফেসবুক তো প্রেসিডেন্টের স্ত্রী মেলানিয়াকে ফেসবুক লাইভ করতে বাধা দিচ্ছে না। ফার্স্ট লেডি হিসাবে হোয়াইট হাউজের ‘নার্সিসিজমের দিনগুলি’র অসংখ্য ভিডিও আপলোড করতে দেখি তাকে! যাকগে বাদ দেন পাগল-ছাগলের কথা; আর কোন দেশ কী বলছে!

বিশ্ব অর্থনীতির দুরন্ত সহিস ডিজিটেল বাংলাদেশ রীতিমত একটি আচরণবিধি ধরিয়ে দিয়েছে।  

— ‘ডিজিটালকে ‘ডিজিটেল’ বলছো কেন!’
— ‘ইন্টারনেট বিপ্লবের লেজ হিসেবে ৫৭ ধারা নামে একটি ধারা প্রণীত হয়েছে সেখানে; মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে বাধা দিতে। তাই একে ডিজিটেল বলা হচ্ছে। আর বাংলাদেশ ফেসবুকে একটি ডেস্ক চাইছে; যেখানে তাদের একটি লেজ বসে থাকবে; নিজেদের লেজ ফেসবুকারগুলোকে বাড়তি সুবিধা দিয়ে; প্রতিবাদী ফেসবুকারদের আইডিগুলো হাপিস করে দিতে চায় আর কী! ভূমি বাস্তবতায় যা করছে; ভার্চুয়াল জগতেও তেমনি ইয়ে চাইছে।’
— ‘আচ্ছা এই ডেস্ক ব্যাপারটা কী! আমাদের ফেসবুক অফিসে তো ডেস্ক নাই!

— ‘দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মানুষেরা কেন জানিনা খুব চেয়ার- টেবিল ভালোবাসে। ওদের এক একটা সরকারী অফিসে এক একটা বড় বড় টেবিল পেতে বসে থাকে এক একটা বিরাট লোক। আজকাল ফ্যাশান হিসেবে টেবিলে বসে পিসি বা ল্যাপটপের স্ত্রিণের দিকে তাকিয়ে এক একজন ‘স্যার’ ছবি আপলোড করে। মন্তব্যে এসে প্রচুর শ্রদ্ধাভক্তি দিয়ে যায় টেবিলভক্ত নাগরিকেরা। তাই বাংলাদেশ একটি ডেস্ক চাইছে। সেখানে একজন রাষ্ট্রদূত বসে থাকবে পতাকা উড়িয়ে।’

— ফেসবুককে কী ওরা জাতিসংঘ পেয়েছে! এটা তো মিডিয়া। মিডিয়া হাউজে কী কোন সরকারী প্রতিনিধি বসে ছিলো কোনকালে! তা সেন্সরশীপে ওদের এতো আগ্রহের কারণ!
— ঐ যে ধর্মীয় অনুভূতি! আবার সামনে ইলেকশানও আছে।

প্রকাশ: টেস


সর্বশেষ

আরও খবর

‘খেলা- মেলা’ বনাম ‘জঙ্গি-মাদক’

‘খেলা- মেলা’ বনাম ‘জঙ্গি-মাদক’


সহনশীল হওয়ার জন্য সহনশীলতার চর্চা জরুরি

সহনশীল হওয়ার জন্য সহনশীলতার চর্চা জরুরি


কিশোর সাগরের নির্যাতনকারীদের রুখবে কে?

কিশোর সাগরের নির্যাতনকারীদের রুখবে কে?


শারদীয় দুর্গোৎসব: ধর্ম যার যার, উৎসব সবার

শারদীয় দুর্গোৎসব: ধর্ম যার যার, উৎসব সবার


এ সংকট থেকে বের হয়ে আসতেই হবে

এ সংকট থেকে বের হয়ে আসতেই হবে


পুঁজিবাদ ও নিকষ কালো অন্ধকারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী

পুঁজিবাদ ও নিকষ কালো অন্ধকারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী


‘বাপকা বেটা সিপাইকা ঘোড়া’

‘বাপকা বেটা সিপাইকা ঘোড়া’


গণহত্যার রক্তে হাত ভেজালেন সুচি

গণহত্যার রক্তে হাত ভেজালেন সুচি


শোক-শক্তি এবং মুক্তি

শোক-শক্তি এবং মুক্তি


ভারতের দার্জিলিং এবং শয়তানের বাদশা

ভারতের দার্জিলিং এবং শয়তানের বাদশা