Thursday, April 20th, 2017
নওয়াজকে অযোগ্য ঘোষণার খাঁড়াটি ঝুলে রইলো
April 20th, 2017 at 4:56 pm
নওয়াজকে অযোগ্য ঘোষণার খাঁড়াটি ঝুলে রইলো

মাসকাওয়াথ আহসান: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পরিবারের বিরুদ্ধে আনীত পানামা কেলেংকারি মামলায় পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্ট নওয়াজের পরিবারের অন্ততঃ আটটি অফশোর কোম্পানিতে লগ্নি করা অর্থের উৎস খুঁজে বের করতে একটি ‘যৌথ তদন্ত দলে’র মাধ্যমে ৬০ দিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ বেঞ্চের পাঁচ জন বিচারকের মধ্যে দুজন নওয়াজকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণার পক্ষে মতামত রেখেছেন। পরে ৫ জন সর্বসম্মতভাবে ‘যৌথ তদন্ত দলে’র মাধ্যমে বৃহত্তর তদন্তের নির্দেশ দেন।

আপাততঃ এই রায়টিকে নওয়াজ শরিফ তার বিজয় হিসেবেই দেখছেন। তবে যৌথ তদন্ত দলের সামনে তাকে ও তার পরিবারকে জেরার সম্মুখিন হতে হবে। ফলে আগামী ৬০ দিন তার এবং তার দলের জন্য প্রীতিকর হবে না বলেই মনে হয়।

নওয়াজের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে এই পানামা কেলেংকারির অভিযোগটি নিয়ে আসে ইমরান খানের পাকিস্তান তেহেরিক-ই-ইনসাফ (পিটি আই)। এই অভিযোগের পক্ষে ব্যাপক জনসমর্থন লক্ষ্য করা গেছে। পিটিআই সুপ্রিম কোর্টের রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ না করে একে আইনি প্রক্রিয়া বলে অভিহিত করে এই রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের  অঙ্গীকার করেছে। কিন্তু রায়ের পর সাধারণ জনগণ তাদের তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। তারা আজই নওয়াজ শরিফের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অযোগ্য ঘোষিত হবার রায় প্রত্যাশা করেছিলো।

নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম ও ছেলে হাসান-হুসেনের নামে অন্ততঃ আটটি অফশোর কোম্পানির সন্ধান পাওয়া গেছে। এই কোম্পানিগুলো গড়ে তোলার অর্থ তারা কোথায় পেলো; সেটিই এখন অনুসন্ধানের বিষয়।

পাকিস্তানের পরবর্তী সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে মাত্র এক বছর পরে। এসময়ে মুসলিম লীগ (নওয়াজ) প্রধান নওয়াজ শরিফের পরিবারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির এই অভিযোগ, সুপ্রিম কোর্টের তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য ৬০ দিন বেঁধে দেয়া; মুসলিম লীগ নওয়াজের জন্য অশনি সংকেত হিসেবে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

পিটিআই এ বিষয়ে রাজপথে, মিডিয়া ও সোশ্যাল মিডিয়ায় সোচ্চার। তাদের দলটি গণতান্ত্রিক ও দলের নেতা-কর্মীদের ক্লিন ইমেজ থাকায় আগামী নির্বাচনে তাদের সংখ্যা গরিষ্ঠতা লাভের ও সরকার গঠনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে।

এর আগে ক্ষমতাসীন পাকিস্তান পিপলস পার্টির শেষ বছরটি তাদের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানির আদালত অবমাননার অভিযোগে বিদায় ও প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারি ও তার সঙ্গীদের দুর্নীতির তদন্ত জনমনকে ব্যস্ত রাখায় গত নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি ঘটে। আর নওয়াজের শাসনকালে আগের দুর্নীতি মামলায় আসিফ আলী জারদারি ও তার সঙ্গীদের বিচার বিভাগ ও ন্যাশনাল একাউন্টেবিলিটি ব্যুরোর তদন্তের মুখে থাকতে হয়েছে। ফলে পিপলস পার্টির গ্রহণযোগ্যতা জনগণের কাছে হ্রাস পেয়েছে।

একই ঘটনা ঘটলো নওয়াজ শরিফের দলটির ক্ষেত্রেও। নির্বাচনী প্রচারণার বছরে নওয়াজকে ব্যস্ত থাকতে হবে দুর্নীতি অভিযোগের জেরায়। সুপ্রিম কোর্ট মাত্র চারমাসে যেখানে নওয়াজের ফিটনেস টেস্টের জন্য যৌথ অনুসন্ধান দল গঠন করেছে; সেক্ষেত্রে ৬০ দিন পরেই নওয়াজের অযোগ্য ঘোষিত হবার খাঁড়াটি ঝুলে রইলো। আর পানামা কেলেংকারিকে কেন্দ্র করে নওয়াজের জনপ্রিয়তা যেখানে হ্রাস পেয়েছে; তাতে আগামী নির্বাচনে তার ভরাডুবির আশংকা স্পষ্ট।

আপাততঃ মুখ রক্ষার জন্য মুসলিম লীগ (নওয়াজ) সুপ্রিম কোর্টের রায়কে তাদের বিজয় বলে যে রাজনৈতিক অভিনয় করছে; তা আদতে কোন কাজে দেবে বলে মনে হয়না। কারণ মিডিয়ায় পাকিস্তানের ৭০ বছর উদযাপনের প্রাক-পর্বে রাজনৈতিক নিওএলিটদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার সবাই। পিটি আই তাদের দলীয় অঙ্গীকারে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের কথা উল্লেখ করেছে। তারা এই দুর্নীতিবাজ পলিটিক্যাল নিও এলিটদের রাজনীতির ইতি দেখতে চায়।

গত চার বছরে পিটি আই খায়বার পাখতুন খোয়ার প্রাদেশিক সরকার পরিচালনায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার পরিচয় দিয়েছে। পাকিস্তান পিপলস পার্টির পরিচালনায় সিন্ধু প্রদেশ কিংবা মুসলিম লীগ (নওয়াজ) পরিচালিত পাঞ্জাব ও বালুচিস্তান প্রদেশের সরকারগুলো গত চার বছরে রাজনৈতিক সংস্কৃতির কোনো পরিবর্তন সাধন করতে পারেনি। দুর্নীতিতে আকন্ঠ নিমজ্জিত এই প্রদেশগুলোকে পিছে ফেলে পিটি আই পরিচালিত খায়বার পাখতুন খোয়া প্রদেশে সুশাসন ও সুষম উন্নয়নের প্রমাণ দলটি রাখতে পেরেছে। ফলে পাকিস্তানের রাজনৈতিক বাতাবরণে একটি কার্যকর পরিবর্তনের লক্ষণ সুষ্পষ্ট।

লেখক: প্রবাসী সাংবাদিক ও ব্লগার


সর্বশেষ

আরও খবর

ঈদ: শান্তি ও সৌহার্দ্যের সম্পৃক্ততা

ঈদ: শান্তি ও সৌহার্দ্যের সম্পৃক্ততা


আওয়ামী লীগ স্মৃতিকাব্য

আওয়ামী লীগ স্মৃতিকাব্য


কপটতা, দ্বিমুখিতা, ভণ্ডামিতে আক্রান্ত সমাজ; সমস্যাটা কোথায়?

কপটতা, দ্বিমুখিতা, ভণ্ডামিতে আক্রান্ত সমাজ; সমস্যাটা কোথায়?


আসলে এদের দিলমে পাকিস্তান

আসলে এদের দিলমে পাকিস্তান


পাহাড়ে মৃত্যুর মিছিল, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নসাধ এবং শেখ হাসিনা

পাহাড়ে মৃত্যুর মিছিল, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নসাধ এবং শেখ হাসিনা


পাহাড় ধসে ১৪৬ প্রাণহানি ও একটি পর্যালোচনা

পাহাড় ধসে ১৪৬ প্রাণহানি ও একটি পর্যালোচনা


লড়াইটা মাঠে, অপ্রীতিকর প্রচারণায় নয়

লড়াইটা মাঠে, অপ্রীতিকর প্রচারণায় নয়


কেন এই সৌদি-কাতার দ্বন্দ্ব?

কেন এই সৌদি-কাতার দ্বন্দ্ব?


‘প্রতিবাদ নীতিমালা ২০১৭’ প্রণয়ন

‘প্রতিবাদ নীতিমালা ২০১৭’ প্রণয়ন


ভাস্কর্য-ভক্ত এবং অপ্রিয় সত্য

ভাস্কর্য-ভক্ত এবং অপ্রিয় সত্য