Saturday, March 25th, 2017
‘প্রয়োজন হলে আবার যুদ্ধে নামবো’
March 25th, 2017 at 10:22 pm
‘প্রয়োজন হলে আবার যুদ্ধে নামবো’

এম কে রায়হান, ঢাকা:

কেটে গেছে স্বাধীন বাংলার ৪৬ বছর। অনেকেই আজও ভুলতে পারেননি সেই স্মৃতিগুলো। তাদেরই একজন নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াই হাজারের আকিকুর রহমান খান। যিনি মাত্র ১৯ বছর বয়সে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন। স্বাধীনতা দিবসকে সামনে রেখে ৭১’র এই বীরের সঙ্গে কথা বলেন নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’র এই প্রতিবেদক। দীর্ঘ আলাপচারিতায় তিনি যুদ্ধের সৃতি তুলে ধরেন সঙ্গে কথা বলেন বর্তমান বাংলাদেশ নিয়েও।


কেমন আছেন?

শারীরিক ভাবে ভালই আছি তবে মানুষিক ভাবে নয়। মানুষিক ভাবে আমি খুবই মর্মাহত। দেশের বর্তমান অবস্থায় ভালো থাকি কি করে বলুন? স্বাধীনতার এই মাসে দেশে যেভাবে জঙ্গি হামলা হচ্ছে তাতে ভালো থাকার কোনো কারণ নেই।

দেশের বর্তমান অবস্থা নিয়ে আপনার অভিমত কী?

আসলে দেশে এখন একটা ক্রান্তিকাল চলছে। হঠাৎ করেই দেশে যে জঙ্গি হামলা শুরু হয়েছে তা আমাকে ব্যাথিত করে। দেশটা কোথায় চলে যাচ্ছে! ভাবলেও অবাক লাগে। আজ দেশের যা অবস্থা তাতে আমার মতো প্রতিটি মুক্তিযোদ্ধা মর্মাহত। সরকারের সাহসী পদক্ষেপই পারে এর সমাধান করতে। এভাবে দেশ চলতে দেয়া যায় না। প্রয়োজন হলে আবার যুদ্ধে নামবো, ৭১-এ দেশকে শত্রুমুক্ত করতে পারলে আজও পারবো।

যেমন দেশ চেয়েছিলেন তা কি পেয়েছেন?

গত কয়েকটা জঙ্গি হামলাকে যদি বাদ দেই তাহলে বলবো সব কিছু খারাপের মধ্যে ভালই ছিল। বঙ্গবন্ধুর যেই আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পরেছিলাম তার অনেক কিছুই বাস্তবায়িত হয়নি। আবার কিছু হয়েছে যা আরো অনেক আগেই হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু হয়নি। ধীরগতিতে হলেও দেশ এগিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু সম্প্রতি কিছু ঘটনা মনে উদ্বেগের সৃষ্টি করছে।

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে যা পেয়েছেন তা কি যথার্থ?

আসলে যুদ্ধ করেছিলাম দেশকে স্বাধীন করার জন্য, তা করেছি। আর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে দেশ থেকে কিছু পাওয়ার আশা কখনই করিনি। কারণ দেশ আমাকে, আমাদেরকে যা কিছু দিয়েছে তার ঋণই তো শোধ করতে পারবো না। তবে মনে কিছু আক্ষেপও আছে। কিছু প্রাপ্তিও আছে। আক্ষেপ হলো আজও অনেক রাজাকার আলবদর চোখের সামনে ঘুরে বেড়ায়, আজও তারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে। আর প্রাপ্তি হলো ৪৫ বছর পরে হলেও তালিকাভুক্ত রাজাকারের ফাঁসি বাংলার মাটিতে হয়েছে।

দেশকে নিয়ে কেমন স্বপ্ন দেখেন?

যেই আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশকে শত্রুমুক্ত করেছিলাম ঠিক তেমন এক দেশ চাই। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম কারণ ছিল মানুষে মানুষে বৈষম্য দূর করা, চলার স্বাধীনতা, বলার স্বাধীনতা, নিরাপদে থাকার স্বাধীনতা। তা বাস্তবায়িত হলেই হবে। আজও অনেকে আছেন যারা না খেয়ে থাকেন, অনেকে আছেন যারা শিক্ষার সুযোগ পাননা, অনেকে টাকার অভাবে ভালো চিকিৎসা পাননা। এসকল কিছু নিশ্চিত করতে হবে। তবে বর্তমানে সেভাবেই দেশ এগোচ্ছে বলে মনে করি।

যুদ্ধের সময়ের কোনো কথা যদি বলতেন …

আমি মার্চ থেকেই যুদ্ধে নামি। প্রথমে কমান্ডার রাশেদ মোশারফের অধীনে বিভিন্ন এলাকায় যুদ্ধ করি। পরে অগাস্ট মাসে ইন্ডিয়ার আসামে ট্রেনিং এ যাই। ট্রেনিং সেন্টার ছিল ‘হাফলং’। অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে দেশে ফিরি। দলে এক এক জনের উপর এক এক কাজ নির্ধারণ ছিল। যেমন কেউ কেউ রেকি করত, রেকি ছিল আমাদের সাংকেতিক সংকেত। এর মানে হলো পাকিস্তানি ক্যাম্পে কতজন আছে, তাদের কাছে কি ধরনের অস্ত্র আছে ইত্যাদি তথ্য সংগ্রহ করা। এরপর দলের সবাই মিলে মাটির উপর একটি ম্যাপ তৈরী করত যে তারা কোন পথে গিয়ে মিলিটারিদের কিভাবে করব সেই প্ল্যান করা। কেউ কেউ ছিল ফায়ারিং এ আবার মিলিটারিদের উপর হামলা করার পর কেউ কেউ তাদের অস্ত্র গুলো সংগ্রহ করত। আমার কাজ ছিল ফায়ারিং করা।

তরুণদের উদ্দেশ্যে …

তরুণদের উদ্দেশ্যে আমার একটাই কথা, দেশকে ভালবাসতে হবে মায়ের মতো করে। আমরা যুদ্ধ করে দেশকে শত্রু মুক্ত করেছি। এখন তরুণদের সেই দেশকে সুন্দর করে সাজাতে হবে। যেখানে থাকবে না কোনো হানাহানি, মারামারি, সংঘর্ষ। দেশকে শান্তি ও উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে তরুণদের বিকল্প কিছু নেই।

সম্পাদনা: সজিব ঘোষ


সর্বশেষ

আরও খবর

চকরিয়ায় লেগুনা-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ৪

চকরিয়ায় লেগুনা-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ৪


রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প


কোটা সংস্কার চেয়ে আবারও শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

কোটা সংস্কার চেয়ে আবারও শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ


নাইজেরিয়ায় গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে নিহত ৩৫

নাইজেরিয়ায় গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে নিহত ৩৫


অক্টোবরের মাঝামাঝি নির্বাচনকালীন সরকার: কাদের

অক্টোবরের মাঝামাঝি নির্বাচনকালীন সরকার: কাদের


জামিন পেলেন না আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

জামিন পেলেন না আলোকচিত্রী শহিদুল আলম


আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন


বিএনপির মানববন্ধন থেকে ফেরার পথে আটক অর্ধশতাধিক

বিএনপির মানববন্ধন থেকে ফেরার পথে আটক অর্ধশতাধিক


৩০ অক্টোবরের পর যে কোনো দিন তফসিল: ইসি সচিব

৩০ অক্টোবরের পর যে কোনো দিন তফসিল: ইসি সচিব


খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় বিশেষ মেডিক্যাল বোর্ড বসবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় বিশেষ মেডিক্যাল বোর্ড বসবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী