Tuesday, December 27th, 2016
বিবেক তুমি কোথায়?
December 27th, 2016 at 9:13 pm
বিবেক তুমি কোথায়?

ঢাকা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রাক্তন মেধাবী ছাএ নাসির উদ্দিন প্রতারিত হয়ে এবং তার অভিযোগের সকল তথ্য প্রমানাদি শাহবাগ থানায় পেশ করেও মামল করতে পারল না। এ অপমান সমগ্র ছাএ ও শিল্পী সমাজের। আসুন সবাই একসাথে এই অন্যায়ের তিব্র প্রতিবাদ করি।

একজন লেখকের লেখা তার নিজের সন্তানের মতো। গান কবিতা নাটক সাহিত্য উপন্যাস টেলিফিল্ম ছবি আরো সব সৃজনশীল কাজের পেছনে থাকে এক মাতাল অনুভব, অজস্র নির্ঘুম রাত কষ্ট সুখ স্মৃতি অপুর্নতা আরো অনেক কিছু।

এভাবে কঠোর সাধনার দীর্ঘ সময় পর একজন মানুষ সৃজনশীল হতে পারে। এ জন্য সে কোনো কিছুই প্রাপ্তির আশা করে না। চাওয়া শুধু একটাই সুন্দর কিছু সৃষ্টি যা মৃত্যুকে হার মানাবে।

আমার বাল্য বন্ধু নাসির উদ্দিনের লেখা ‘মুখোশ-মানুষ’ নামের গল্পটি ইয়াসির আরাফাত জুয়েল নাটক বানাবে বলে চিএনাট্য করিয়ে নিলেও ইউটিউবে প্রথম ট্রেইলর দেখে জানা গেল এটা টেলিফিল্ম। রচনা ও চিএনাট্য করেছেন নাসির উদ্দিন। পরিচালক ইয়াসির আরাফাত জুয়েল।

জাপান বাংলাদেশের এর প্রযোজনায় পি. আর প্লাসিড। ঘৃণার বিষয় হলো, আমার বন্ধু নাসির উদ্দিনের লেখা ‘মুখোশ মানুষ’ টেলিফিল্মটি ছায়াছবি বলে মিড়িয়ায় প্রচার করা হয়েছে। যার রচনা আহাদুর রহমান, প্রযোজোক মো. সাহেদুল্লাহ, চিএনাট্য ও পরিচালনা: ইয়াসির আরাফাত জুয়েল। ৩০ ডিসেম্বর অশুভ মুক্তি পেতে যাচ্ছে। কি অদ্ভুত ব্যপার!

নাটক থেকে টেলিফিল্ম তারপর ছায়াছবি হতেই রচনা কার, চিএনাট্য প্রযোজক সব বদলে গেল গেল কি করে?

আসলে ‘মুখোশ মানুষ’র পরিচালক ইয়াসির আরাফাত জুয়েল একটা ধান্দাবাজ, যার পূর্বে ভাল কোনো কাজের উদাহরণ নাই। দুই একটা প্রডাকশনে কাজ করে ডিরেক্টর হয়ে গেছে। সহযোগী কর্মী, ক্যামেরা ম্যান, এডি, ফটোগ্রাফার, মেকাপ ম্যান প্রডাকশন বয় সহ সকলের সাথে খারাপ ব্যবহার করে মুজুরি মেরে খায়, অভিনয় শিল্পীদের নানা অভিযোগ এবং মুখোশ মানুষ গল্পে বারবার প্রযোজক বদলিয়ে সবার সাথে প্রতারণা করছে। এভাবে নাটককে টেলিফিল্ম এবং এখন সেটি ছায়াছবি করেছে।

আমার বন্ধু নাসির উদ্দিন বারবার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে ‘আমার নাটকের গল্প আমার অনুমতি বা কোনো প্রকার সৌজন্যতা ছাড়া দৃশ্যপট পালটে ছায়াছবি বানিয়ে ফেলেছ, আবার আমার নামটাও বাদ দিতে পার না।’

পরিচালক ইয়াসির আরাফাত জুয়েল বলেন, আমার এডি সাম্যকে দিয়ে ২০ হাজার টাকা পাঠিয়ে দিব, কিন্তু নাসির ভাই আপনাকে ভুলে যেতে হবে যে এটা আপনার লেখা গল্প ছিল।

আমার বন্ধু নাসির উদ্দিন পরিচালক ও এডি সোম্যকে বলেছিল, টাকা লাগবে না। অশ্লীল দৃশ্য বাদ দিয়ে আমার নাম দিতে হবে, তারপর যদি টাকা দিতে চাও আমার পথশিশু স্কুল শিশুস্বর্গে দিয়ে দিও।

অনেক চেষ্টা করে কোনো সমাধান করতে পারেনি আমার বন্ধু নাসির। অথচ এই নর পিশাচরা বা নব্য রাজাকার গুলো আমার বন্ধু নাসির উদ্দিনের গল্প চুরি করে। কোন প্রকার অনুমতি আলোচনা সৌজন্যতা ছাড়া নাটককে টেলিফিল্ম বানিয়ে আবার এখন গল্পের দৃশ্যপট পালটে আপত্তিকর নোংরা দৃশ্য যুক্তকরে মুখোশ মানুষ ছায়াছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে যা আমার দেশকে নোংরা ভাবে উপস্থাপন করবে যা মুখোশ মানুষ গল্পের লেখক আমার বন্ধু নাসির কখনই চায় না।

মানুষ কত নোংরা হলে একজনের কষ্টের লেখা গল্প নিজের বলে দাবি করে! একবার ভাবুন তো যদি আপনার কোনো লেখা গল্প বা সৃষ্টিশীল কোনো কাজ চুরি করে একজন অযোগ্য ভণ্ড প্রতারক নিজের বলে দাবি করে বিক্রি করে দেয়, তখন শিল্পী হিসাবে আপনার কেমন লাগবে।

এরইমধ্যে প্রথম প্রযোজক লেখক পি. আর প্লাসিড প্রতারিত হয়ে আদালতে মামলা করেছেন। মামলা মিস আপিল নং ১১0/২0১৬ এবং মহামান্য আদালতের রায় দিয়েছেন যে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়া পর্যন্ত ছায়ছবির সকল প্রকার প্রচার প্রচারণা এডিটিং বন্ধ থাকবে কিন্তু আদালতের রায় অমান্য করে ৩০ ডিসেম্বর মুখোশ-মানুষ ছায়াছবি মু্ক্তি পেতে যাচ্ছে। আমার বন্ধু নাসির সকল প্রমানদি সহ শাহবাগ থানায় মামলা করতে গেলে মামলা না নিয়ে জিডি নিয়েছেন। এ অপমান সহ্য করার মতো?

আসুন আমরা সবাই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে ওই সব ধান্দাবাজ হায়েনাদের কবল থেকে আমাদের লেখক ও শিল্পী সমাজকে বাঁচাই এবং অশ্লীলতা জোচ্চুরি মুক্ত সোনালী পর্দার দিন ফিরিয়ে আনি। এই দ্বায়িত্ব আমাদের সকলের। অন্যথায় নতুন প্রজন্ম আগ্রহ হারাবে।

আমার এই অভিযোগের সকল তথ্য প্রমাণ আমাদের হাতে আছে যা আমার বাল্য বন্ধু ও মুখোশ মানুষের গল্পের আসল রচয়িতা নাসির উদ্দিন আমাকে দিয়েছে। আসুন একটা সত্যের সুন্দেরের জন্য একজন দেশ প্রেমিক প্রতিভাবান লেখক মেধাবি ও ভাল মানুষের পাশে দাঁড়াই।

জয় বাংলা

লেখক: রনি
মিউজিশিয়ান এন্ড লিরিসিস্ট

 


সর্বশেষ

আরও খবর

হয়ত শাকিব অপুও থাকবে না

হয়ত শাকিব অপুও থাকবে না


পাঠ প্রতিক্রিয়া: ফরিদপুরে বিতর্ক চর্চা

পাঠ প্রতিক্রিয়া: ফরিদপুরে বিতর্ক চর্চা


একটি আত্মহত্যা ও কিছু প্রশ্ন

একটি আত্মহত্যা ও কিছু প্রশ্ন


অপরাজিতা মেয়ের পরাজয়ের গল্প

অপরাজিতা মেয়ের পরাজয়ের গল্প


বাঙালির দ্বি-মুখী লড়াই: হিন্দুত্বের সাথে এবং মুসলমানিত্বের সাথে

বাঙালির দ্বি-মুখী লড়াই: হিন্দুত্বের সাথে এবং মুসলমানিত্বের সাথে


দ্রোহের গুঞ্জন: সংস্কৃতি ও রাজনীতি

দ্রোহের গুঞ্জন: সংস্কৃতি ও রাজনীতি


কেউ কষ্টের কথাগুলি বলতে চায় না

কেউ কষ্টের কথাগুলি বলতে চায় না


আমগো যা কওয়ার ছিলো; তাই কইতাছে বাংলাদেশ: সাঈদী

আমগো যা কওয়ার ছিলো; তাই কইতাছে বাংলাদেশ: সাঈদী


শ্রমিক আর সংবাদকর্মী: সবাই আজ শোষিত

শ্রমিক আর সংবাদকর্মী: সবাই আজ শোষিত


বাজিলো কাহারো বীণা

বাজিলো কাহারো বীণা