Saturday, January 7th, 2017
বেকারত্বের বঞ্চনায় জঙ্গিবাদের সৃষ্টি
January 7th, 2017 at 5:17 pm
বেকারত্বের বঞ্চনায় জঙ্গিবাদের সৃষ্টি

মাসকাওয়াথ আহসান: যেসব সমাজে ধনী দরিদ্রের ব্যবধান বেশি, কর্মসংস্থানের অভাব, যে সমাজে তরুণরা বেকারত্বের বঞ্চনায় ক্লিষ্ট; সেখানে যে দুঃসহ হতাশা তৈরি হয়; সেখানে তারুণ্য দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ায় অপরাধ প্রবণ হয়ে ওঠে; পৃথিবীর নানা জায়গায় দেখা যায় অর্থনৈতিকভাবে প্রান্তিক হয়ে যাওয়া তারুণ্যই সন্ত্রাসে জড়িয়ে পড়ে। কেউ বিচ্ছিন্নতাবাদী হয়ে পড়ে; কেউবা জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ে।

এই তরুণেরা একটি স্বাভাবিক জীবনের গ্যারান্টি পেলে কখনোই এমন বিপথগামী হতো না। কেউই নিজের জীবনকে বিপন্ন করতে চায় না। সবার প্রত্যাশা থাকে একটি স্বাভাবিক জীবনের। কিন্তু যখনই তাদের জীবন দারিদ্র্যে বিশীর্ণ হয়; আলোর কোনো দিশা পায় না; তখনই তারা অন্ধকারের দিকে ঝুঁকে পড়ে। জঙ্গিবাদের রিক্রুটমেন্টগুলো এই কারণে পৃথিবীর দারিদ্র্য মলিন এলাকাগুলোতেই ঘটে থাকে।

অল্প কিছু সংখ্যক ধনী ঘরের সন্তানের জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়াটা সেই অতীতের ধনীর ছেলেদের সর্বহারা বা নকশাল আন্দোলনে জড়িয়ে পড়ার মতো। চলতি হাওয়ার সঙ্গে গা ভাসানোর মতো একটা বিষয়; যা জঙ্গিবাদের মূলধারার প্রতিনিধিত্বশীল নয়।

জঙ্গিবাদের রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতায় জড়িত হওয়া সিংহভাগ তরুণ-তরুণীই দারিদ্র্য মলিন এলাকার। বাংলাদেশে জঙ্গি গ্রুপের প্রথম উত্থান ঘটেছিলো যে রাজশাহীর বাগমারায়; সেটি প্রত্যন্ত দরিদ্র জনপদ। এই দারিদ্র্যকে কাজে লাগিয়ে তাদের পাশে সমাজ বদলের ভ্রান্তস্বপ্ন নিয়ে হাজির হয়েছিলো বাংলা ভাই নামের শীর্ষজঙ্গি; ওই এলাকায় দারিদ্র্য না থাকলে সেখান থেকে জঙ্গি রিক্রুট করা সম্ভব হতো না।

আফগানিস্তানে যুদ্ধের পর অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে জঙ্গি রিক্রুট সহজ হয়েছে; তাছাড়া শরণার্থী জীবনের অনিশ্চয়তায় অনেক আফগান তরুণ জঙ্গিবাদের খাতায় নাম লিখিয়েছে। ছোট ভাইবোনের খাবারের ব্যবস্থা করার জন্য বড় ভাই নিজেকে জঙ্গিদের কাছে কিছু টাকায় বিক্রি করে আত্মঘাতি বোমা হামলা করেছে। এরকম অসংখ্য কেসস্টাডি খুঁজে পাওয়া যায়, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে। পাকিস্তানেও ধনী-দরিদ্রের অধিক ব্যবধান অসংখ্য জঙ্গির জন্ম দিয়েছে; যাদের কর্মসংস্থানের কোনো সুযোগ ছিলো না। যুদ্ধাহত ভঙ্গুর ইরাকের দরিদ্র তারুণ্য জঙ্গিবাদে অংশ নিয়েছে অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে। অনেকেই আত্মঘাতি হয়েছে; নিজের বিপন্ন ক্ষুধার্ত পরিবারের মুখে খাবার তুলে দেবার চেষ্টায়। এছাড়া পশ্চিমা বিশ্বে শরণার্থী জীবনের অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তায় অনেকেই জঙ্গিবাদের অন্ধকার পথে পা বাড়িয়েছে।এইভাবে পুরো পৃথিবীতে জঙ্গিবাদের কেসস্টাডি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, অর্থনৈতিক মুক্তির পথ খুঁজে না পেয়ে লাখো তরুণ জঙ্গি হয়েছে।

যুগে যুগে যারা অস্ত্রব্যবসা, শেয়ার বাজার লুন্ঠন, দেশে দেশে প্রাকৃতিক সম্পদ লুন্ঠনের লক্ষ্যে নানারকম ইজম তৈরি করে দরিদ্র তরুণদের সন্ত্রাসবাদে রিক্রুট করেছে; তারাই এই র‌্যাডিকালিজম নামের নতুন ইজম নিয়ে তৈরি করেছে যুদ্ধের ব্যবসা। এখানে জঙ্গি রিক্রুটের সহজ শিকার দারিদ্র্যমলিন জনপদগুলো। কারণ একজন ক্ষুধার্ত মানুষের কানে মিডিয়ার বিজ্ঞাপন দিয়ে সচেতনতা খাওয়ানো যায়না তাকে। সচেতনতায় পেট ভরে না; পেটের ভাতের জন্যই অপেক্ষা থাকে হতদরিদ্র মানুষের। এর ওপরে তারা শিক্ষার অধিকার বঞ্চিত অথবা দিকনির্দেশনাহীন সামান্য শিক্ষার সুযোগ পেয়েছে; যা পরমতসহিষ্ণুতার মৌলিক মানবিক পাঠ দিতেই ব্যর্থ। পাঠ্যপুস্তকেই কট্টরপন্থা থাকলে; স্বাভাবিক ঔদার্য্য অনুপস্থিত থাকলে পরমতসহিষ্ণুতার সচেতনতা হ্রাস পায়। তাই রাষ্ট্র যদি কল্যাণরাষ্ট্র হতে না পারে; সাম্যভিত্তিক সমাজ সৃষ্টি করতে না পারে; তাহলে অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে অধিকার বঞ্চিত মানুষের সন্ত্রাসবাদে অংশগ্রহণ কোনোভাবেই বন্ধ করা সম্ভব নয়।

জঙ্গিবাদের কোনো চটজলদি সমাধান “সচেতনতার” বিজ্ঞাপন দিয়ে সম্ভব নয়। প্রয়োজন অধিকারবঞ্চিত মানুষের দারিদ্র্য বিমোচনে আন্তরিক হওয়া। এই ক্ষেত্রে আন্তরিকতায় ফাঁকিঝুঁকির বিবর্ণ দৃষ্টান্ত দারিদ্র্যে মলিন পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ইরাক। এইসব ব্যর্থ রাষ্ট্রের পরিণতি দেখে জঙ্গিবাদ আক্রান্ত অন্যান্য রাষ্ট্রগুলোর সাবধান হওয়া জরুরি। সময় দ্রুতই বয়ে যাচ্ছে। গুটিকতক জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযান থেকে আত্মতুষ্টিতে ভুগে ভুগেই আজ নিমজ্জিত পাকিস্তান-আফগানিস্তান-ইরাক। তাই আমাদের দারিদ্র্যের অগমে-দুর্গমের অধিকার বঞ্চিত মানুষের ব্যাপারে মনোযোগী হতে হবে। অর্থনৈতিক মুক্তির নিরাপত্তা জাল সৃষ্টি করা না গেলেই; উপায়হীন তারুণ্য জঙ্গিবাদের অশুভ জালে জড়িয়ে পড়বে।

লেখক: প্রবাসী সাংবাদিক ও ব্লগার


সর্বশেষ

আরও খবর

রাইফেল রোটি আওরাত

রাইফেল রোটি আওরাত


মৃত্যুমুখী নগর বাঁচাতে জীবন দিলেন যিনি

মৃত্যুমুখী নগর বাঁচাতে জীবন দিলেন যিনি


প্রশ্নফাঁসঃ নৈতিকতার জনহত্যা

প্রশ্নফাঁসঃ নৈতিকতার জনহত্যা


পণ্যমূল্যের উলম্ফন: বিপর্যস্ত জনগণ

পণ্যমূল্যের উলম্ফন: বিপর্যস্ত জনগণ


স্বপ্নভঙ্গের রঙ কী আলাদা হয়! সন্ত্রাসের রং-ই কী আলাদা হয়!

স্বপ্নভঙ্গের রঙ কী আলাদা হয়! সন্ত্রাসের রং-ই কী আলাদা হয়!


‘খেলা- মেলা’ বনাম ‘জঙ্গি-মাদক’

‘খেলা- মেলা’ বনাম ‘জঙ্গি-মাদক’


সহনশীল হওয়ার জন্য সহনশীলতার চর্চা জরুরি

সহনশীল হওয়ার জন্য সহনশীলতার চর্চা জরুরি


কিশোর সাগরের নির্যাতনকারীদের রুখবে কে?

কিশোর সাগরের নির্যাতনকারীদের রুখবে কে?


শারদীয় দুর্গোৎসব: ধর্ম যার যার, উৎসব সবার

শারদীয় দুর্গোৎসব: ধর্ম যার যার, উৎসব সবার


এ সংকট থেকে বের হয়ে আসতেই হবে

এ সংকট থেকে বের হয়ে আসতেই হবে