Saturday, March 10th, 2018
যতদিন পৃথিবী থাকবে ততদিন মশা থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
March 10th, 2018 at 4:08 pm
যতদিন পৃথিবী থাকবে ততদিন মশা থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মাসকাওয়াথ আহসান: যতদিন পৃথিবী থাকবে, ততদিন মশাও থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, ‘যতদিন পৃথিবী থাকবে, ততদিন মশাও থাকবে। কামড়ও থাকবে। তবে এবার মশার কামড় থেকে চিকুনগুনিয়া ও ডেঙ্গু রোগের কোনও আশঙ্কা নেই।

মন্ত্রী মহোদয়ের বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়ে মশা অধিকার বাস্তবায়ন কমিশনের চেয়ারম্যান বলেছেন, নগরবাসীর আর মশার ব্যাপারে আক্ষেপ না করে মশার সঙ্গে একটি শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের কথা ভাবা প্রয়োজন। আত্মীয়-স্বজন বন্ধু বান্ধবের জন্য রক্তদান করে মানুষ যেভাবে মানবিকতার পরিচয় দেয়; মশার ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা তা-ই। আমৃত্যু যার সঙ্গে নিত্য বসবাস; সে তো আত্মীয়ের অধিক। কাজেই মশার জীবন বাঁচাতে মানুষ তার রক্তদান করে মানবিকতার বৃহত্তর বিকাশ ঘটাতে পারে।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘সিটি করপোরেশন মশা মারবে। তবে বাড়ির ভেতরে যেখানে মশা জন্মায়, বাড়ির মালিককে তা পরিষ্কার রাখতে হবে।’

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে সর্ববিষয় জাস্টিফিকেশান পরিষদের সভাপতি বলেছেন, বেডরুমের মশার দায়িত্ব সিটি কর্পোরেশান কেন নেবে। যে মশা বাড়ির বাইরে কামড়ায়; তাদের ভয় দেখাতে একজন দুঃসাহসী কাউন্সিলর পিক-আপে চড়ে দুইদিকে দুটি কামান নিয়ে যথেষ্ট শো-ডাউন করেছেন। বাড়ির মধ্যে তো আর পিক-আপে করে কামান নিয়ে প্রবেশ করা সম্ভব নয়। সুতরাং মশার পিন্ডি মেসোর ঘাড়ে চাপাবেন না।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শেখ সালাহউদ্দিন বলেন, ‘যেখানে মশার জন্ম হতে পারে, সেই পানির ফ্লো যদি আমরা অব্যাহত রাখতে পারি, আমি মনে করি ৭০ শতাংশ মশা জন্মগ্রহণই করবে না। এটি হচ্ছে আমাদের জন্য একটা চ্যালেঞ্জ। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কিছু ড্রেন ঢাকা আছে, সেখানে আমরা যেতে পারছি না। এছাড়া ঢাকার আশপাশে অপরিকল্পিত ডোবা-নালা আছে, এ জায়গাগুলো থেকে মশার জন্ম হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘মশার লাস্ট স্টেজটা হচ্ছে উড়ন্ত মশা। এর আগে মশা তিনটি স্টেজে পানিতে অবস্থান করে। উড়ন্ত মশা হচ্ছে পূর্ণ বয়স্ক মশা। এটাকে এই পরিবেশে মারা একটু কঠিন।’

বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা “মশার জন্য মানবতা”-র নির্বাহী পরিচালক মন্তব্য করেছেন, জীবনচক্রের সব শেষ ধাপে এসে মশা যখন পূর্ণ বয়স্ক; উড়ন্ত মশা; তখন এমন জ্যোষ্ঠ মশা বা সিনিয়র মসকুইটো হত্যা অত্যন্ত অমানবিকও। তাছাড়া জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশের শৃংখলা বজায় রাখতে মশাকে বাঁচিয়ে রাখা অবশ্য কর্তব্য। মশার কল্যাণে মশক কল্যাণ মন্ত্রণালয় খুলে বিজ্ঞ স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বাড়তি দায়িত্ব দেবার আহবান জানাই। এই মানুষটিই মশার মন বুঝতে পেরেছেন।

একজন সাহিত্যবেত্তা মন্তব্য করেছেন, সেই যুগে মশার কামড় খেয়ে কবিতা লিখে রবীন্দ্রনাথ নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন, নজরুল বিদ্রোহী কবি হয়েছেন, শক্তি চট্টোপাধ্যায় কবিতায় শক্তি দেখিয়েছেন। এখন এ যুগে এতো মশারী খাটিয়ে, কয়েল জ্বালিয়ে, মরটিন-এরোসোল স্প্রে করে বসে কবিতা লিখেও তো কেউ কিছু করে দেখাতে পারলো না। যারা পারে তারা অযথা নিজের ব্যর্থ কবিজীবনের জন্য মশাকে দায়ী করে না। আমি তো সাহিত্য সমালোচনার ক্ষেত্রে মশার কামড় খেয়েই অনুপ্রাণিত হই; শব্দের হুল ফুটিয়ে দিই কবি-লেখকের লেখালেখি নিয়ে আলোচনায়।

এক বিজ্ঞ সমাজতন্ত্রী মন্তব্য করেছেন, মানুষ তার আচার-আচরণে সাম্যবাদী হতে পারে না। ক্ষমতা কাঠামোকে তোয়াজ করে চলে। ধনীদের তেল দেয় আর গরীবদের গাল দেয়। অথচ মশা কিন্তু অনায়াসে ঢুকে পড়েছে মন্ত্রী পাড়ায়। মন্ত্রী বলে কাউকে এতোটুকু ছাড় দেয় না মশা। চারিদিকে লেনিনের মূর্তি ভেঙ্গে ফেলার খবরে অনেক কষ্ট পেয়ে মশার সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের খবরে হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছি। দেখে নিয়েন, এই মশাই আবার সমাজতন্ত্রের নতুন ইতিহাস গড়বে। আমরা এবার স্থানে স্থানে মশার মূর্তি গড়বো।

একজন পর্যবেক্ষক বলেছেন, এতোদিন জানতাম, যতদিন পৃথিবী থাকবে, ততদিন ভালোবাসা থাকবে। অথচ একজন বর্ষীয়ান মন্ত্রী যখন বলছেন, যতদিন পৃথিবী থাকবে, ততদিন মশাও থাকবে। ঠিকই তো আছে। কবি হুমায়ূন রেজা লিখেছেন, “বিশ শতকের প্রয়াণের ইহলৌকিক স্মরণযোগ্য ভালোবাসাময় স্মৃতি নেই… ” তারমানে মন্ত্রী মহোদয় ঠিকই বুঝতে পেরেছেন বিশশতকের ভালোবাসার জায়গাটা একবিংশ শতকে এসে মশা দখল করেছে।

লেখক: ব্লগার ও প্রবাসী সাংবাদিক


সর্বশেষ

আরও খবর

আকাশবীণা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আকাশবীণা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


জেনে নিন কলার গুণাগুণ

জেনে নিন কলার গুণাগুণ


দুর্নীতি করলে যে দলেরই হন রেহাই পাবেন না: শেখ হাসিনা

দুর্নীতি করলে যে দলেরই হন রেহাই পাবেন না: শেখ হাসিনা


যা ইচ্ছে সাজা দেন, বারবার আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া

যা ইচ্ছে সাজা দেন, বারবার আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া


পাকিস্তানের ১৩তম রাষ্ট্রপতি হলেন আরিফুর রেহমান আলভি

পাকিস্তানের ১৩তম রাষ্ট্রপতি হলেন আরিফুর রেহমান আলভি


ভুটানকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা বাংলাদেশের

ভুটানকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা বাংলাদেশের


ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে আরও ১১ মামলা

ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে আরও ১১ মামলা


ওয়েডিং ফটোগ্রাফার এলেন খান, যার শিডিউল পাবার পর ঠিক হয় বিয়ের তারিখ

ওয়েডিং ফটোগ্রাফার এলেন খান, যার শিডিউল পাবার পর ঠিক হয় বিয়ের তারিখ


বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু


কারাগারেই হবে খালেদার দুর্নীতি মামলার শুনানি

কারাগারেই হবে খালেদার দুর্নীতি মামলার শুনানি