Saturday, October 22nd, 2016
সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে একসাথে কাজ করার প্রতিশ্রুতি বিদেশিদের
October 22nd, 2016 at 1:28 pm
সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে একসাথে কাজ করার প্রতিশ্রুতি বিদেশিদের

ঢাকা: সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে একসাথে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আওয়ামী লীগের ২০ তম জাতীয় সম্মেলনে বক্তব্য দিয়েছেন আমন্ত্রিত বিদেশি অতিথিরা। ইতালির ডেমোক্রেটিক পার্টির সংসদ সদস্য উগো পাপাই বলেছেন, সন্ত্রাস নির্মূলে বাংলাদেশের সরকার যে ভুমিকা পালন করছে, তা নিসন্দেহে প্রশংসনীয়। যে কোন ধরণের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ইতালি বাংলাদেশের সঙ্গে একসাথে কাজ করবে।

শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সকাল সোয়া ১০টার দিকে শুরু হওয়া এ সম্মেলনে এখন বক্তব্য রাখেন বিদেশি অতিথিরা। সম্মেলনে বিভিন্ন দেশের মোট ৫৫ জন বিদেশি অতিথি উপস্থিত আছেন।

প্রসঙ্গত ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলায় ইতালির ৯ নাগরিক নিহত হন। ওই ঘটনার পর এই প্রথম বাংলাদেশে এসে দেশটির সংসদ সদস্য সন্ত্রাসবাদ নিয়ে কথা বললেন।

সম্মেলনে ভারতের কংগ্রেসের প্রতিনিধি, রাজ্যসভার বিরোধীদলীয় নেতা গোলাম নবী আজাদ বলেন, বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ দমনের সংগ্রামে এ অঞ্চলের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘মহাত্মা গান্ধী যেমন ভারতবাসীকে উপনিবেশবাদের বিরুদ্ধে অনুপ্রাণিত করে দেশকে স্বাধীন করেছিলেন, তেমনি বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতিকে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন সব রকম অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার জন্য; যা বাংলাদেশের স্বাধীনতায় রূপ নেয়।’

গোলাম নবী আজাদ আরো বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধকালীন দুর্যোগময় ক্ষণে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী এক কোটিরও বেশি মানুষকে ভারতে আশ্রয় দিয়েছিলেন এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে কাজ করেছিলেন।’

তিনি বলেন, ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। এই স’ম্পর্ক দিন দিন আরও বৃদ্ধি পাবে। ভারত-বাংলাদেশ নতুন নতুন কিছু চুক্তি হয়েছে। আমাদের দুই দেশের সম্পর্ককে যা আরও শক্তিশালী করে তুলবে।’

সম্মেলনে রাশিয়ার ক্ষমতাসীন দলের ডেপুটি জেনারেল সেক্রেটারি সারেগেই ঝেলেজেডনিয়াক বলেন, বর্তমান সরকারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ উচ্চগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের সঙ্গে রাশিয়ার বন্ধুত্ব অনেক আগের। এই দু’দেশের দ্বি-পাক্ষিক নানা উদ্যোগ সফল হয়েছে। আগামীতে এই সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে, পরবর্তীতে ১৯৭৪ সালে নানা উদ্যোগে রাশিয়া পাশে ছিলো। রাশিয়ার সহযোগিতায় এখানে প্রথম পারমাণবিক প্রকল্প হচ্ছে। আমরা আশা করি, বাংলাদেশের সামনে এক সুন্দর ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে।

পশ্চিমবঙ্গ বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিআইএম) কেন্দ্রীয় নেতা বিমান বসু বলেন, ‘বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতিকে আওয়ামী লীগ সারা পৃথিবীতে উঁচু স্থানে নিয়ে গেছেন।২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে বিশ্বের কাছে তুলে ধরেছে যা আমাদের গর্বিত করে।’

তিনি বলেন, আমি আশা করি এই কাউন্সিলের মাধ্যমে আপনারা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেবেন। জমি ক্ষেত্রে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চলছে। আশা করি নদী ক্ষেত্রেও আপনারা সমস্যা সমাধানের পদক্ষেপ নেবেন।’

সম্মেলনে বিদেশিদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক বিভাগের ভাইস মিনিস্টার ঝেং জিয়াওজং, শ্রীলঙ্কার সংসদ সদস্য, ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির মোহাম্মদ হাশিম, ভারতীয় জনতা পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট বিনয় প্রভাকর, নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির নেতা ড. রাম শর্মা মহত, কানাডার কানজারভেটিভ পার্টির দীপক ওভরয়।

প্রতিবেদন: প্রীতম সাহা সুদীপ, সম্পাদনা: প্রণব


সর্বশেষ

আরও খবর

ট্রাম্পকে আ.লীগের শুভেচ্ছা

ট্রাম্পকে আ.লীগের শুভেচ্ছা


জীবিত থাকতেই নতুনের হাতে দায়িত্ব দিতে চান শেখ হাসিনা

জীবিত থাকতেই নতুনের হাতে দায়িত্ব দিতে চান শেখ হাসিনা


আ.লীগের সংশোধিত গঠনতন্ত্র অনুমোদন

আ.লীগের সংশোধিত গঠনতন্ত্র অনুমোদন


পরবর্তী সাধারণ সম্পাদকের অপেক্ষায় নেতাকর্মীরা

পরবর্তী সাধারণ সম্পাদকের অপেক্ষায় নেতাকর্মীরা


নির্বাচনে জয় পেতে জনগণের কাছে যেতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনে জয় পেতে জনগণের কাছে যেতে হবে: প্রধানমন্ত্রী


দ্বিতীয় দিনের অধিবেশন শুরু

দ্বিতীয় দিনের অধিবেশন শুরু


আজও নিয়ন্ত্রিত থাকছে যান চলাচল

আজও নিয়ন্ত্রিত থাকছে যান চলাচল


কমিটি গঠন আজ

কমিটি গঠন আজ


‘অস্ট্রেলিয়ার উন্নয়নে বাঙালিদের অবদান অনেক’

‘অস্ট্রেলিয়ার উন্নয়নে বাঙালিদের অবদান অনেক’


নতুন উদ্যমে এগোতে চান নেতাকর্মীরা

নতুন উদ্যমে এগোতে চান নেতাকর্মীরা