Tuesday, June 7th, 2016
আইএস-জেএমবি’র পার্থক্য নেই : ইরানি বিশ্লেষন
June 7th, 2016 at 10:21 pm
আইএস-জেএমবি’র পার্থক্য নেই : ইরানি বিশ্লেষন

ডেস্ক: বাংলাদেশের ব্যাপারে ইসরাইলের আগ্রহ নিয়ে ভিনদেশি গণমাধ্যমগুলোও বেশ আগ্রহী। এ নিয়ে প্রচুর প্রতিবেদনের পর এখন বিশ্লেষন প্রকাশও শুরু হয়েছে। এমনই এক বিশ্লেষনে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশের সরকার বলছে সেদেশে আইএসআইএল বা দায়েশ নেই এবং এসব হত্যাকাণ্ড ঘটাচ্ছে জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ বা জেএমবি। কিন্তু বাস্তবতা হলো, আইএসআইএল এবং জেএমবি’র মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই।’

‘বাংলাদেশে ধারাবাহিক হত্যাকাণ্ডে ইসরাইলের সম্পৃক্ততার সম্ভাবনা কতটুকু?’ শিরোনামে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এ বিশ্লেষনটি প্রকাশ করেছে ইরানী অনলাইন নিউজ পোর্টাল পার্স টুডে। বাংলাদেশে চলমান টার্গেড কিলিংয়ের সঙ্গে ইসরাইলি গুপ্তচর সংস্থা মোসাদের সম্পৃক্ততার ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সোমবার (৬ জুন) গণমাধ্যমকে যে ইঙ্গিত দিয়েছেন, তা সমর্থন করা হয়েছে এই বিশ্লেষনে। এর আগেই গত সপ্তাহে (২ জুন) বাংলাদেশের ব্যাপারে ইসরাইলের তুমুল আগ্রহ নিয়ে এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিলো ভারতীয় পত্রিকা আনন্দবাজার।

বাংলা সংস্করণে বিশ্লেষকদের বরাত দিয়ে পার্স টুডে বলছে, ‘একটি দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেহেতু এ ধরনের কথা বলেছেন, সেহেতু অবশ্যই তার কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য রয়েছে। এছাড়া জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সম্পৃক্ততার বিষয়টি এখন প্রায় সবার কাছেই স্পষ্ট। কারণ সিরিয়ায় প্রকাশ্যেই দায়েশ বা আইএসআইএলসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে অস্ত্রসহ সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। সিরিয়ায় সরকারি বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে আহত জঙ্গিদেরকে ইসরাইলের হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা দেয়ার বহু ছবিও গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।’

সংবাদ মাধ্যমটির দাবি , ‘জঙ্গিদের সমর্থন ও সহযোগিতা দেয়ার বিষয়টি ইসরাইল নিজেও অস্বীকার করে না। কাজেই ইসরাইল ও দায়েশের মধ্যে সম্পর্কের বিষয়টি এখন আর কারো কাছেই অজানা নয়। এ অবস্থায় বাংলাদেশে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের পরপরই দায়েশ বা আইএসআইএল সেগুলোর দায় স্বীকার করছে। যেহেতু দায়েশের সঙ্গে আগে থেকেই ইসরাইলের সম্পর্ক রয়েছে, সেহেতু ইসরাইলের মদদে বাংলাদেশেও তারা হত্যাকাণ্ড চালিয়ে থাকতে পারে।’

বিশ্লেষনে জানানো হয়, এসআইএল’র অনুকরণে বিভিন্ন অঞ্চলে ভিন্ন ভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠী গড়ে উঠেছে। নাম ভিন্ন হলেও এসব গোষ্ঠীর লক্ষ্য ও আদর্শ অভিন্ন এবং আইএসআইএলের সঙ্গে তাদের যোগসাজশ রয়েছে। আফ্রিকায় দায়েশের লোকজন তৎপরতা চালাচ্ছে ‘বোকো হারাম’ গোষ্ঠীর ব্যানারে। আসলে ইহুদিবাদী ইসরাইলের মতো শত্রু-দেশগুলো মুসলমানদের মধ্যে হানাহানি বাধিয়ে নিজেদের অস্তিত্ব ও অবস্থানকে সুসংহত করতে চায়। তারা চায় মুসলমানরাই মুসলমানদের ধ্বংস করুক। বাংলাদেশও তাদের ষড়যন্ত্রের বাইরে নয়।

পার্স টুডে আরো বলছে, ‘বিজ্ঞ আলেমরা মনে করেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল ও দায়েশই এখন ইসলামের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করছে। ইসলামের ভ্রান্ত চেহারা তুলে ধরছে দায়েশ, আর সেটাকে অপব্যবহার করছে ইসরাইল ও আমেরিকাসহ মুসলিম বিদ্বেষী রাষ্ট্রগুলো। আইএসআইএল বা দায়েশের সঙ্গে ইসরাইলের সম্পর্কের আরেকটি প্রমাণ হলো, ইহুদিবাদীরা মুসলমানদের প্রথম কেবলা দখল করে রাখার পাশাপাশি ফিলিস্তিনি মুসলিম ভাইদের নির্মমভাবে হত্যা অব্যাহত রাখলেও এর বিরুদ্ধে কিছুই বলছে না আইএসআইএল বা দায়েশ। বাংলাদেশের মুসলমানেরা শত্রুদের ষড়যন্ত্র উপলব্ধি করে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধ আরো সোচ্চার হয়ে উঠবে বলে মনে করেন বিশ্লেষকেরা।’

এর আগে আনন্দবাজার তার সংবাদে বলেছে, ‘বাংলাদেশে নজর ইসরাইলের। কাছে আসতে চাইছে। ব্যবধান টপকাতে সাঁকো খুঁজছে। কাজটা কঠিন শুধু নয়, অসম্ভব জেনে খড়কুটো পেলেও ছাড়ছে না। আঁকড়ে ধরছে। ধারণা হয়েছে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার সবচেয়ে বড় বাধা। তাকে সরালে রাস্তা খুলবে’।  পত্রিকাটি ‘হাসিনা সরকার ফেলার ষড়যন্ত্র? ইসরাইলের গতিবিধি কিন্তু সন্দেহজনক’- শিরোনোমে লেখাটি প্রকাশ করেছে।

পত্রিকাটি বলেছে, ‘হাসিনার দুরন্ত উন্নয়ন অভিযান খরস্রোতা নদীর মতো বইছে। সেখানে ইটপাটকেল পাথর ছুড়ে আটকানো যায় কখনো? হবে না। সব ডুববে। মাঝখান থেকে দূরত্ব বাড়বে। বাংলাদেশের বন্ধুত্ব পেতে নিজেদের বদলাতে হবে। ইসরাইলের মানবতা বিরোধী কাজ হাসিনা সরকার কেন, কোনো রাজনৈতিক দলই সমর্থন করে না। দু’দেশের দূরত্ব সে কারণেই। কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই। যাতায়াত স্থগিত।’

আনন্দবাজার লিখেছে, ‘ইসরাইলের শাসক দল লিক্যুদ পার্টির সদস্য, সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড অ্যাডভোকেসির প্রধান মেন্দি এন সাফাদি ভারতে দেখা করেছেন বিএনপির নতুন যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরীর সঙ্গে। কথা বলেছেন। অভিযোগ, ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদকে দিয়ে হাসিনা সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র। আসলাম, সাফাদির সঙ্গে সাক্ষাতের কথা স্বীকার করলেও ষড়যন্ত্রের অভিযোগ মানেননি। বিএনপির দাবি, এটা আসলামের ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকার। এর সঙ্গে দলের যোগ নেই। তবে এটা পরিষ্কার, সাফাদি যে ভারত সফর করছেন আসলাম চৌধুরী তা জানতেন। তার সঙ্গে আগে যোগাযোগ করে বৈঠকের ব্যবস্থা হয়। যাদের সঙ্গে দেশের সম্পর্ক নেই তাদের প্রতি আসলামের কীসের এত টান যে ডাকলেই ছুটে যেতে হবে।’

পত্রিকাটি আরো বলছে -‘ফিলিস্তিন উদ্বিগ্ন। ঢাকায় ফিলিস্তিনের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স ইউসেফ এস ওয়াই রামাদানের দাবি, ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে আসলাম চৌধুরীর বৈঠকের কথা ফিলিস্তিনের গোয়েন্দা সংস্থা জানত। বাংলাদেশের মানুষ ফিলিস্তিনের পক্ষে, ইসরাইলের বিপক্ষে। ইসরাইলের সঙ্গে বৈঠক, বাংলাদেশের রাজনৈতিক স্বার্থে ইসরাইলকে সুবিধা দেয়ার আশ্বাসে ফিলিস্তিন বিস্মিত। ফিলিস্তিনের ধারণাটাও ভুল।’

‘ফিলিস্তিনের  মুক্তিকামী মানুষের পাশে যে বাংলাদেশ, ইসরাইল তা জানে। সেটা ভেঙে তারা মাথা গলাতে চাইছে।’ – এমনটা উল্লেখ করে ওপার বাংলার সর্বাধিক প্রচারিত এই দৈনিকটি লিখেছে, ‘১৯৪৮-এর ১৪ মে সরকারি ভাবে ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর থেকেই আরব-ইসরাইল সংঘাতের শুরু। ইসরাইলের সব থেকে বেশি আক্রমণ ফিলিস্তিনিদের ওপর। বিশেষ করে গাজা স্ট্রিপ, ওয়েস্টব্যাঙ্কে বোমা বর্ষণ করে যেভাবে ফিলিস্তিনকে নস্যাৎ করার চেষ্টা হয়েছে দেখলে শিউরে উঠতে হয়। নিশানায় নারী, শিশুও বাদ যায়নি। ২০১৩’র জুলাইতে ফিলিস্তিনের সঙ্গে শান্তি আলোচনা শুরু করে ইসরাইল। ২০১৪-তে ভেস্তে যায়। ইসরাই ফের বোমাবর্ষণ করে গাজায়। নতুন করে চলে মৃত্যুর মিছিল। এর আগে ২০০৩এ আমেরিকা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জাতিসংঘ, রাশিয়া শান্তি স্থাপনের প্রয়াস চালিয়েও সফল হয়নি। এ অবস্থায় সমর্থক দেশের সংখ্যা বাড়িয়ে ইসরাইল নিজেদের কাজকে বৈধতা দিতে চাইছে। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক যোগাযোগ বাড়ানোটাও লক্ষ্য।’

আনন্দবাজার আরো বলছে, ‘বাংলাদেশের মানুষ সম্পর্কে সামান্যতম ধারণা থাকলে ইসরাইলের রাষ্ট্রপতি রেউভেন রিভালন, প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু সতর্ক হতেন, এ সব খেলায় মাততেন না।’

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এসকে/এসজি


সর্বশেষ

আরও খবর

কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত হচ্ছেন ইরফান সেলিম

কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত হচ্ছেন ইরফান সেলিম


করোনা: আরও ২৩ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩০৮

করোনা: আরও ২৩ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩০৮


সেনাপ্রধান ফেইসবুকে নেই: আইএসপিআর

সেনাপ্রধান ফেইসবুকে নেই: আইএসপিআর


ধর্ষণের সাজা মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত অনুমোদন

ধর্ষণের সাজা মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত অনুমোদন


করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু

করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু


বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত ব্যারিস্টার রফিক-উল হক

বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত ব্যারিস্টার রফিক-উল হক


সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন

সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন


দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী


সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার

সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার


অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা