Wednesday, July 6th, 2022
আইডিআরএ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান
August 7th, 2016 at 7:46 pm
আইডিআরএ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান

ঢাক: বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান এম শেফাক আহমেদের বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধান শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) । এ লক্ষ্যে একজন উপ-পরিচালককে অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আইডিআরএ’র চেয়ারম্যান হয়েও অন্তত ১৫টি ইন্সুরেন্স কোম্পানির শেয়ার লেনদেন করেছেন শেফাক আহমেদ। এসব কোম্পানির মধ্যে রয়েছে, কর্ণফুলী ইন্সুরেন্স, প্রগতি, সন্ধানী, প্রাইম, মার্কেন্টাইল, ফারইস্ট, এশিয়া প্যাসিফিক।

২০১৩ সালের ১৬ জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুঁজি বাজারের একটি বীমা কোম্পানিতেই ৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। মা সায়েদা এফ আহমেদ, প্রবাসী বোন নাজমা ইসলাম, ভাই শওকত আহমদ ও সাদেক আহমদের নামে খোলা একাউন্টের মাধ্যমে বিনিয়োগকৃত এ অর্থ লেনদেন হয়।

দিলকুশায় নতুন ভবনে ওঠার জন্য ১০ কোটি টাকা গচ্চা দেয় আইডিআরএ’র চেয়ারম্যান। ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে সাধারণ বীমা করপোরেশনের মালিকানাধীন দিলকুশার এসবিসি টাওয়ারের ৯ তলায় ২ হাজার ২৪০ বর্গফুট অফিস ভাড়া নেয় আইডিআরএ। প্রতি বর্গফুটের ভাড়া নির্ধারণ করা হয় ৭০ টাকা। এছাড়া প্রতি ২ বছর পর পর ৫ শতাংশ হারে ভাড়া বাড়ানোর হয়।

অভিযোগ রয়েছে, অফিসে ওঠার আগেই আড়াই বছরে অফিস ভাড়া দিয়েছে ৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা। অফিস সাজাতে ব্যয় হয়েছে আরো ৫ কোটি টাকার ওপরে। একই সঙ্গে তৎকালিন অফিসটির ভাড়া গুণতে হয় আরো প্রায় ৪০ লাখ টাকা। নতুন অফিসের ভাড়া বাবদ সাড়ে ১৪ লাখ টাকা ছাড়াও বিদ্যুৎ খরচের বাইরে জেনারেটর চালাতে খরচ হয় প্রতিমাসে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা।

এছাড়া বছরের পর বছর বেতনের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ গাড়ি ভাড়া নিচ্ছেন বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান শেফাক আহমেদ। তাকে নিয়োগ দেয়া হয় চুক্তিভিত্তিক। এতে চেয়ারম্যানের বেতন ধরা হয় ৮০ হাজার টাকা। সঙ্গে সার্বক্ষণিক গাড়ি সুবিধার পাওয়ার কথা। তবে গাড়ি না থাকায় গাড়ির খরচ বাবদ চেয়ারম্যান পাচ্ছেন ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এই হিসেবে চেয়ারম্যান শেফাক আহমেদ ৪৮ মাসে বেতনের সঙ্গে নিয়েছেন ৭২ লাখ টাকা। অফিসের ঢাকা মেট্রো বখ-১১৯৮৭৩ গাড়ি ব্যবহারের পরও ব্যক্তিগত আরেকটি গাড়ির জন্য তিনি আরো কয়েক লাখ টাকা নিয়েছেন।

অভিযোগ রয়েছে, এম শেফাক আহমেদ তার ব্যক্তিগত ১৮টি মামলার খরচ বাবদ আইডিআরএ’র কোষাগার থেকে ৩০ লাখ টাকার ওপরে ব্যয় করেন। এই ব্যয় তিনি নিয়ম বহির্ভূতভাবে করেন।

এছাড়া অবৈধ লেনদেনের বিনিময়ে বিভিন্ন বীমা প্রতিষ্ঠানে অযোগ্য ব্যক্তিদের এমডি নিয়োগ অনুমোদন করেন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে মূখ্য নির্বাহীদের অনুমোদনের আবেদন দীর্ঘ সময় আটকে রাখেন। এছাড়াও নতুন বীমা প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স প্রদানে অবৈধভাবে মোটা অংকের আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ রয়েছে।

এসব লেনেদেনের বেশিরভাগই ঘনিষ্টদের মাধ্যমে করেন এম শেফাক আহমেদ। দুর্নীতি দমন কমিশন এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে গত মাসে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/ডিএম/জাই


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার