Tuesday, July 19th, 2016
‘আঘাতের বিরুদ্ধে হুমায়ূনের কলম সোচ্চার ছিলো’
July 19th, 2016 at 9:22 pm
‘আঘাতের বিরুদ্ধে হুমায়ূনের কলম সোচ্চার ছিলো’

ঢাকা: নুহাসপল্লী, যেখানে চির শায়িত হয়েছেন জনপ্রিয় লেখক ও নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। সেই নুহাস পল্লীতে মঙ্গলবার তার চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

এ সময় স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন বলেন, ‘দেশের ওপর যখনি কোনো বড় ধরনের আঘাত এসেছে তখনি হুমায়ূনের কলম তাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছিলো।’

২০১২ সালের ১৯ জুলাই নন্দিত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ মৃত্যুবরণ করেন। পরে  তাকে গাজীপুরের নুহাশ পল্লীর লিচু বাগানে দাফন করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন তার দুই ছেলে নিষাদ ও নিনিদকে নিয়ে নুহাশ পল্লীতে এসে হুমায়ুন আহমেদের কবর জিয়ারত করেন এবং পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পড়ে নুহাশ পল্লীর নিয়মিত কর্মী ও হুমায়ুন ভক্তরা তাদের সঙ্গে দোয়ায় অংশ নেন। হুমায়ুনের আত্মার শান্তি কামনা করে প্রার্থনা করা হয়।

কবর জিয়ারত শেষে শাওন সাংবাদিকদের বলেন, মৃত্যুবার্ষিকী পারিবারিক বিষয়। তিনি কেবল কবর জিয়ারত করতে এসেছেন, এছাড়া অন্য কর্মসূচি নেই।

শাওন বলেন, ‘হুমায়ূন আহমেদের নিজস্ব স্বপ্নের চেয়ে সামগ্রিক বাংলাদেশের স্বপ্নটা ছিল অনেক বড়। এই মুহূর্তে তার স্বপ্ন পূরণে কিছু বাঁধা আছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পুরো দেশে যে অবস্থা চলছে, যে ধরনের আঘাত এসেছে দেশের ওপর। আমার কাছে মনে হচ্ছে এটা ভেবে হুমায়ূন সবচেয়ে বেশি কষ্ট পাচ্ছেন।’

এর আগে সকালে হুমায়ূন আহমেদের ছোটভাই ড. অধ্যাপক মো. জাফর ইকবাল ও কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব এবং তিন বোন সুফিয়া হায়দার, মমতাজ শহীদ, রোকসানা আহমেদসহ তাদের সন্তানরা নুহাশ পল্লীতে আসেন এবং কবর জিয়ারত করেন।

এ পর্যন্ত হুমায়ুন আহমেদের জনপ্রয়তা কমেনি উল্লেখ করে অধ্যাপক মো. জাফর ইকবাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘হুমায়ূন আহমেদের শূন্যতা কখনোই পূরণ সম্ভব নয়। হুমায়ূন আহমেদ নিজে যা করতেন তা অন্য কাউকে দিয়ে সম্ভব নয়।’

সংক্ষেপে হুমায়ুন আহমেদ:  হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর ডাক নাম কাজল। বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ ও মা আয়েশা ফয়েজের প্রথম সন্তান তিনি। ১৯৬৫ সালে বগুড়া জেলা স্কুল থেকে মাধ্যমিক, ১৯৬৭ সালে ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন শাস্ত্রে স্নাতক ও ১৯৭২ সালে স্নাতকোত্তর পাস করেন।

১৯৮২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ডাকোটা ইউনিভার্সিটি থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রসায়ন বিভাগের শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। নব্বই দশকের মাঝামাঝি তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বেচ্ছায় অবসরগ্রহণ করে লেখালেখিতে পুরোপুরি মনোযোগ দেন।

হুমায়ূন আহমেদের লেখা উল্লেখযোগ্য উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে- নন্দিত নরকে, লীলাবতী, কবি, শঙ্খনীল কারাগার, গৌরীপুর জংশন, নৃপতি, বহুব্রীহি, এইসব দিনরাত্রি, দারুচিনি দ্বীপ, শুভ্র, নক্ষত্রের রাত, কোথাও কেউ নেই, আগুনের পরশমণি, শ্রাবণ মেঘের দিন, জোছনা, জননীর গল্প প্রভৃতি।

পরিচালিত চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে- আগুনের পরশমনি, শ্যামল ছায়া, শ্রাবন মেঘের দিন, দুই দুয়ারী, চন্দ্রকথা ও নয় নম্বর বিপদ সংকেত। সম্প্রতি মুক্তিপ্রাপ্ত তার সর্বশেষ চলচ্চিত্র ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ও জয় করেছে দর্শক ও সমালোচকদের হৃদয়।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এমআই


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার


বিরোধী নেতাদের কটাক্ষ করতেন না বঙ্গবন্ধু: রাষ্ট্রপতি

বিরোধী নেতাদের কটাক্ষ করতেন না বঙ্গবন্ধু: রাষ্ট্রপতি


মসজিদ-মন্দিরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলো সরকার

মসজিদ-মন্দিরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলো সরকার


করোনায় একদিনে আরও ১৮ প্রাণহানি

করোনায় একদিনে আরও ১৮ প্রাণহানি