Thursday, August 17th, 2017
কবি শামসুর রাহমানের একাদশ মৃত্যুবার্ষিকী
August 17th, 2017 at 10:32 am
কবি শামসুর রাহমানের একাদশ মৃত্যুবার্ষিকী

ঢাকা: আধুনিক বাংলা কবিতার বরপুত্র কবি শামসুর রাহমানের একাদশ মৃত্যুবার্ষিকী আজ বৃহস্পতিবার । ২০০৬ সালের ১৭ আগস্ট মৃত্যুবরণ করেন তিনি। সৃষ্টি ও মননের দ্যুতিময় উপস্থাপনা তাকে দিয়েছে সমকালীন বাংলা কবিতার প্রধানতম কবির মর্যাদা। কবি হিসেবে দুই বাংলায় সমান জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। তাকে নাগরিক কবিও বলা হয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ওপর তার লেখা দুটি কবিতা অত্যন্ত জনপ্রিয়তা পায়। বিংশ শতাব্দীর তিরিশের দশকের ৫ বিশিষ্ট কবির পর আধুনিক বাংলা কবিতার প্রধান পুরুষ হিসেবে বিবেচনা করা হয় তাকে।

শামসুর রাহমানের জন্ম ১৯২৯ সালের ২৩ অক্টোবর ঢাকার মাহুতটুলির নানাবাড়িতে। তার পৈতৃক বাড়ি নরসিংদী জেলার রায়পুরার পাড়াতলী গ্রামে। ১৯৫৭ সালে একজন সংবাদকর্মী হিসেবে দৈনিক মর্নিং নিউজ পত্রিকায় কর্মজীবন শুরু করেন তিনি। ১৯৫৭ সালে রেডিও পাকিস্তানে অনুষ্ঠান প্রযোজক হিসেবে যোগ দেন। ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত সেখানে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬০ সালে আবার মর্নিং নিউজে ফিরে আসেন এবং ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত মর্নিং নিউজের সহযোগী সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৪ সালের শেষের দিকে দৈনিক পাকিস্তানে সহকারী সম্পাদক পদে যোগ দেন শামসুর রাহমান। স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশে ওই পত্রিকাটি দৈনিক বাংলা নামে প্রকাশিত হয়। ১৯৭৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তিনি দৈনিক বাংলা ও সাপ্তাহিক বিচিত্রার সম্পাদক নিযুক্ত হন। ১৯৮৭ সালে সামরিক সরকারের শাসনামলে তিনি দৈনিক বাংলা থেকে পদত্যাগ করেন। এর পর সাহিত্য পত্রিকা অধুনার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৪৯ সালে সোনার বাংলা পত্রিকায় শামসুর রাহমানের প্রথম কবিতা প্রকাশিত হয়। তিনি বিভিন্ন পত্রিকায় সম্পাদকীয় ও উপ-সম্পাদকীয় লেখায় নিজের ছদ্মনাম হিসেবে সিন্দাবাদ, চক্ষুষ্মান, লিপিকার, নেপথ্যে, জনান্তিকে, মৈনাক ব্যবহার করেছেন। একজন প্রতিবাদী কবি হিসেবেও পরিচিতি রয়েছে তার। তৎকালীন সরকারি পত্রিকায় কাজ করা সত্ত্বেও তিনি আইয়ুব খানের স্বৈরশাসনের প্রতি বিদ্রুপ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কারাভোগের সময় তাকে উদ্দেশ করে তিনি কবিতা লিখেছেন। রবীন্দ্রসংগীতের ওপর পাকিস্তান সরকারের নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তিনি। তার লেখা ‘বর্ণমালা’, ‘আমার দুখিনী বর্ণমালা’, ‘আসাদের শার্ট’, ‘স্বাধীনতা তুমি’, ‘তোমাকে পাওয়ার জন্য, হে স্বাধীনতা’ এসব কবিতার মধ্যে বিদ্রোহী চেতনার বহিঃপ্রকাশ ঘটে। ১৯৮৭ সালে স্বৈরশাসন আমলে পর পর ৪ বছর ধরে ‘শৃঙ্খল মুক্তির কবিতা’, ‘স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে কবিতা,’ ‘সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে কবিতা’ এবং ‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কবিতা’ লেখেন তিনি। স্বৈরশাসনের পতন হলে তিনি লেখেন ‘গণতন্ত্রের পে কবিতা।’ শামসুর রাহমানের প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘প্রথম গান, দ্বিতীয় মৃত্যুর আগে’ ১৯৬০ সালে প্রকাশিত হয়। কবিতা, উপন্যাস, প্রবন্ধ, শিশুতোষ রচনাসহ তার শতাধিক বই প্রকাশিত হয়েছে।

সাহিত্যে অনন্য অবদানের জন্য আদমজী সাহিত্য পুরস্কার, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, একুশে পদক, নাসিরউদ্দিন স্বর্ণপদক, জীবনানন্দ পুরস্কার, আবুল মনসুর আহমেদ স্মৃতি পুরস্কার, সাংবাদিকতার জন্য মিৎসুবিশি পুরস্কার, স্বাধীনতা পদক ও আনন্দ পুরস্কার লাভ করেন। এ ছাড়া ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এবং রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের প থেকে কবিকে সম্মানসূচক ডিলিট উপাধি দেওয়া হয়।

শামসুর রাহমানের একাদশ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পরিবার এবং বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। আজ আলোচনাসভা, গান, আবৃত্তি ও নিবেদিত কবিতা পাঠের মধ্য দিয়ে তাকে স্মরণ করবে আন্তর্জাতিক সাহিত্য সংস্কৃতি সংযোগ। জাতীয় কবিতা পরিষদ, শামসুর রাহমান স্মৃতি পরিষদ, কবি শামসুর রাহমান ফাউন্ডেশন ও কবি পরিবারের পক্ষ থেকে বনানী কবরস্থানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে।

সম্পাদনা: জেডএইচ


সর্বশেষ

আরও খবর

জাতীয় কবির মৃত্যুবার্ষিকী আজ

জাতীয় কবির মৃত্যুবার্ষিকী আজ


জাপানে হেইসেই যুগের অবসান হচ্ছে আজ

জাপানে হেইসেই যুগের অবসান হচ্ছে আজ


হাঁটাহাঁটি করছেন ওবায়দুল কাদের

হাঁটাহাঁটি করছেন ওবায়দুল কাদের


ঢাকায় আসছেন থাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকায় আসছেন থাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী


কবি শামসুর রাহমানের জন্মদিন আজ

কবি শামসুর রাহমানের জন্মদিন আজ


বরিশালে জীবনানন্দ দাশের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

বরিশালে জীবনানন্দ দাশের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত


শুভ জন্মদিন, মাশরাফি

শুভ জন্মদিন, মাশরাফি


নড়াইলে সুলতান উৎসবে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা

নড়াইলে সুলতান উৎসবে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা


নড়াইলে ‘সুলতান উৎসব’

নড়াইলে ‘সুলতান উৎসব’


জাতীয় কবি নজরুলের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

জাতীয় কবি নজরুলের মৃত্যুবার্ষিকী আজ