Tuesday, April 9th, 2019
আবরারের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা দেয়ার আদেশ বহাল
April 9th, 2019 at 11:51 am
আবরারের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা দেয়ার আদেশ বহাল

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) এর শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরীর পরিবারকে ১০ লাখ টাকা জরুরি খরচ দিতে সুপ্রভাত পরিবহন কর্তৃপক্ষকে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। খারিজ হয়েছে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে সুপ্রভাত পরিবহন কর্তৃপক্ষের করা আবেদন।

মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ৪ সদস্যের আপিল বিভাগ এই আদেশ দেন।

এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২০ মার্চ আবরার আহমেদ চৌধুরীর পরিবারকে সাত দিনের মধ্যে ১০ লাখ টাকা দিতে সুপ্রভাত পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এই আদেশের বিরুদ্ধে গত সপ্তাহে চেম্বার বিচারপতির আদালতে আবেদন করে সুপ্রভাত কর্তৃপক্ষ। চেম্বার আদালত আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। এর ধারাবাহিকতায় আজ মঙ্গলবার আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

আদালতে সুপ্রভাত পরিবহন কর্তৃপক্ষের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ কে এম বদরুদ্দোজা। অন্যদিকে রিট আবেদনকারী আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল নিজে শুনানিতে অংশ নেন।

গত ১৯মার্চ রাজধানীর নর্দ্দা এলাকায় প্রগতি সরণিতে যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে বিইউপি’র বাসে ওঠার সময় আবরার নামে ওই ছাত্রকে চাপা দেয় সুপ্রভাত পরিবহণের একটি বাস। এরপর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 


সর্বশেষ

আরও খবর

আবারও বিয়ে করলেন ‘দ্য রক’

আবারও বিয়ে করলেন ‘দ্য রক’


অপরাধীদের শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে: হাইকোর্ট

অপরাধীদের শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে: হাইকোর্ট


নবম ওয়েজ বোর্ড: রায় সাংবাদিকদের পক্ষে

নবম ওয়েজ বোর্ড: রায় সাংবাদিকদের পক্ষে


লেদারল্যান্ডের ঢোল

লেদারল্যান্ডের ঢোল


১ বছর নিষিদ্ধ হলেন শেহজাদ

১ বছর নিষিদ্ধ হলেন শেহজাদ


আবারো বাড়ল সোনার দাম

আবারো বাড়ল সোনার দাম


নবম ওয়েজ বোর্ডের বিষয়ে আপিলের আদেশ মঙ্গলবার

নবম ওয়েজ বোর্ডের বিষয়ে আপিলের আদেশ মঙ্গলবার


নরসিংদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

নরসিংদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪


বরগুনার মেয়রের ছেলে ইয়াবাসহ ঢাকায় গ্রেপ্তার

বরগুনার মেয়রের ছেলে ইয়াবাসহ ঢাকায় গ্রেপ্তার


মিরপুরের আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ৩ হাজার পরিবার

মিরপুরের আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ৩ হাজার পরিবার