Monday, May 14th, 2018
আরো এক মল সন্ত্রাসী গ্রেফতার
May 14th, 2018 at 7:31 pm
আরো এক মল সন্ত্রাসী গ্রেফতার

বরিশাল: জেলার বাকেরগঞ্জে মাদ্রাসার জমি ও কমিটি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সুপারকে প্রকাশ্যে মারধর ও মাথায় মল ঢেলে দেয়ার ঘটনার আরো ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ নিয়ে এ পর্যন্ত ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

সবশেষে আটককৃত মিরাজ হোসেন সোহাগ বাকেরগঞ্জ উপজেলার রাজাপুর এলাকার বাসিন্দা আঃ মজিদ সরদারের ছেলে।

এ বিষয়ে মামলা হওয়ার পর রোববার (১৩ মে) দিবাগত রাতেই মিনজু এবং বেল্লাল ওরফে বাদল নামে আরো ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

সোমবার (১৪ মে) দুপুরে মিরাজকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বরিশাল জেলার পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম। সোমবার দুপুরে বরিশাল জেলার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিং-এ তিনি জানান, মিরাজকে আটকের আগে ঘটনার সাথে জড়িত বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের কাঠালিয়া গ্রামের মৃত মোঃ হাসেম মুসুল্লীর ছেলে মিনজু (৪৫) ও বাকেরগঞ্জ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্র্ডের হারুন হাওলাদারে ছেলে বেলাল (২৫) ওরফে বাদলকে আটক করা হয়।

তিনি বলেন, মাদ্রাসা সুপারের মাথায় ও শরীরে মানুষের পরিত্যক্ত মল ঢেলে লাঞ্ছনার এ ঘটনা দুঃখজনক। খবরটি পাওয়ার পর থেকেই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত ও মামলায় অভিযুক্তদের আটক করার জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যে ভিডিওটি ফেসবুকে প্রকাশ হয়েছে, সেই ভিডিও চিত্রের বাইরেও অনেকে এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকতে পারেন। তাদের বিষয়েও পুলিশ তথ্য নিচ্ছে, কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।

এ আগে গ্রেফতারকৃত দুই জনের মধ্যে মিনজু (৪৫) দায়েরকৃত মামলার এজাহারভুক্ত ৫ নম্বর আসামি। আর বেল্লাল (২৫) ওরফে বাদলকে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়া ভিডিও ফুটেজ দেখে গ্রেফতার করা হয়।

রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন বলেছেন, মাদ্রাসার কমিটি নিয়ে বিরোধের জের ধরে জামায়াত-শিবিরের লোকজন তার ওপরে এমন অমানবিক ঘটনা ঘটিয়েছে।

তবে স্থানীয় অধিবাসী আবদুর রশিদ তালুকদার জানান বিবদমান উভয় গ্রুপই জামায়াতপন্থী এবং একই পরিবারের আত্মীয়স্বজন। এদের দ্বন্দ্ব অনেক দিনের পুরানো। সম্পত্তি, টাকা-পয়সা নিয়ে তাদের বিবাদ রয়েছে।

এ মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনার পেছনে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সূত্রে পাওয়া আর্থিক সহায়তার ভাগ-বাটোয়ারার সংঘাত জড়িত থাকতে পারে বলে তারা মনে করেন।

উল্লেখ্য শুক্রবার (১১ মে) বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নে কাঠালিয়া গ্রামের কাঠালিয়া ইসলামিয়া দারুচ্ছুন্নাৎ দাখিল মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও সুপারিন্টেন্ডেট মাওলানা মোঃ আবু হানিফকে প্রকাশ্যে লাঞ্ছিত করে লাঞ্ছনার ভিডিও ধারন করা হয়।

ঘটনার পর লাঞ্ছনার শিকার পবিবারের সদস্যরা জড়িত থাকায় মাদ্রাসার সুপার ও তার পরিবার লোকলজ্জায় বিষয়টি গোপন রাখেন।

তবে রোববার (১৩ মে) লাঞ্ছনার একটি ভিডিও ধারনকারীদের মাধ্যমে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় তীব্র সমালোচনা।

এরপর লাঞ্ছিত মাদ্রাসা সুপার মাওলানা মোঃ আবু হানিফ বাদী হয়ে নিজের ছোটভাই জাকারিয়া হোসেন জাকিরসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৬ জনকে আসামি করে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বরিশাল প্রতিনিধি, সম্পাদনা: জাই


সর্বশেষ

আরও খবর

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস: প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ, আশ্বাস আইনমন্ত্রীর

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস: প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ, আশ্বাস আইনমন্ত্রীর


বিএফইউজের নতুন সভাপতি ফারুক, মহাসচিব দীপ

বিএফইউজের নতুন সভাপতি ফারুক, মহাসচিব দীপ


কালীপূজায় হবে না দীপাবলি!

কালীপূজায় হবে না দীপাবলি!


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতেই মুহিবুল্লাহকে হত্যা: পুলিশ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতেই মুহিবুল্লাহকে হত্যা: পুলিশ


সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭

সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭


ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪

ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪


সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান


কুমিল্লার মণ্ডপে কোরআন রাখা ব্যক্তি শনাক্ত

কুমিল্লার মণ্ডপে কোরআন রাখা ব্যক্তি শনাক্ত


কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে, দ্রুতই গ্রেপ্তার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে, দ্রুতই গ্রেপ্তার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ