Tuesday, August 22nd, 2017
আসন্ন হৃদরোগের লক্ষণ কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল
August 22nd, 2017 at 9:21 pm
আসন্ন হৃদরোগের লক্ষণ কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল

ডেস্ক: সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় বিজ্ঞানীরা হৃদরোগের এমন একটি নতুন লক্ষণ খুঁজে পেয়েছেন, মানবদেহে যার উপস্থিতিতে আসন্ন হৃদরোগের ইঙ্গিত পাওয়া যেতে পারে বলে ধারণা করছেন তারা। গবেষকরা এটিকে কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল নামে অভিহিত করেন।

আমেরিকান জার্নাল অব কার্ডিওলোজির অনলাইন সংস্করণে গবেষণা প্রবন্ধটি প্রকাশিত হয়। মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির মেডিসিনের অধ্যাপক ডাক্তার জর্জ এস. আবেলার নেতৃত্বে এই গবেষণা সম্পন্ন হয়।

মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির একদল বিজ্ঞানী এবং চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ দল জানান, কোন মানবদেহে কোলেস্টেরল যখন ক্রিস্টালের মত কঠিন আকার ধারণ করে তখন নিশ্চিত করা বলা যেতে পারে তার হৃদরোগ আসন্ন।

গবেষকরা হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীদের শতকরা ৮৯ ভাগের করোনারি ধমনির দেয়ালে দানা বাঁধা পদার্থের অতিরিক্ত উপস্থিতি দেখতে পেয়েছেন। এগুলোকে তারা কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল হিসেবে উল্লেখ করেন।

মূলত হৃৎপিণ্ডের করোনারি ধমনির দেয়ালে প্লাক জমা হওয়ার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে কোলেস্টেরল ক্রিস্টালের সৃষ্টি হয়। ক্যালসিয়াম, চর্বি জাতীয় পদার্থ এবং অন্যান্য দ্রব্যের সংমিশ্রণে এগুলির উৎপত্তি। এসব ক্রিস্টাল ঘনীভূত হয়ে ধমনির দেয়ালে বিস্তার লাভ করতে শুরু করে, ফলে ধমনি সংকুচিত হয়ে স্বাভাবিক রক্ত প্রবাহে বাধার সৃষ্টি করে।

ডাক্তার আবেলার নেতৃত্বাধীন গবেষক দল বেশ কিছু রোগীর ধমনিতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী এসব পদার্থ পরীক্ষা করেন। তারা আবিস্কার করেন, এগুলি মূলত কোলেস্টেরল কিন্তু বড় আকারের ক্রিস্টাল ফর্মে আছে।

গবেষক দলের প্রধান বলেন, ‘গবেষণায় আমরা দেখিয়েছি, কোলেস্টেরল যখন তরল থেকে কঠিন বা ক্রিস্টালের মত আকার ধারণ করে তখন এটির আয়তন বরফ কিংবা পানির মত প্রসারিত হয়।’

তিনি উল্লেখ করেন, ধমনির দেয়ালের অভ্যন্তরে কঠিন পদার্থের এধরনের বিস্তৃতি রক্ত প্রবাহে বাধার সৃষ্টি করে, যার ফলে হৃদরোগ অথবা স্ট্রোক হয়।

এসব ক্রিস্টাল কিভাবে এতোটা ক্ষতি করে তা দেখার জন্য গবেষক দল যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন হাসপাতালের ২৪০টির বেশি ইমার্জেন্সি রুমে সরাসরি প্রবেশ করেন।

তারা হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীদের ধমনি থেকে ক্রিস্টাল কোলেস্টেরল সংগ্রহ করে এগুলোর আকার এবং কাঠিন্য পরীক্ষা করেন। বিজ্ঞানীরা দেখতে পান, গুচ্ছবদ্ধ বড় বড় ক্রিস্টাল ধমনির প্লাক এবং দেয়াল ভেদ করতে সক্ষম। এমনকি এগুলো হৃৎপিণ্ডেও প্রবেশ করতে পারে।

আবেলা জানান, এই গবেষণার ফলে কোলেস্টেরল ক্রিস্টাল কিভাবে ধমনিতে বিস্তৃতি লাভ করে রক্তপ্রবাহে বাধার সৃষ্টি করছে তা দেখা গেছে। হৃৎপিণ্ডের ক্ষতি কমাতে চিকিৎসার মাধ্যমে এসব ক্রিস্টালকে দ্রবীভূত করা যেতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। সূত্র: ইনডিপেনডেন্ট

গ্রন্থনা: ফারহানা করিম, প্রকাশ: ওয়াইএ


সর্বশেষ

আরও খবর

ঢাকায় চতুর্থ আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালন

ঢাকায় চতুর্থ আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালন


ওষুধ না খেয়ে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব

ওষুধ না খেয়ে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব


তীব্র শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে রোগ

তীব্র শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে রোগ


বিএসএমএমইউ’র অধীনে এমবিবিএস বিডিএসসহ সব চিকিৎসা কোর্স

বিএসএমএমইউ’র অধীনে এমবিবিএস বিডিএসসহ সব চিকিৎসা কোর্স


২০২২ সালের মধ্যে জলাতঙ্কমুক্ত হবে বাংলাদেশ

২০২২ সালের মধ্যে জলাতঙ্কমুক্ত হবে বাংলাদেশ


চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে গাপ্পি মাছ

চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে গাপ্পি মাছ


স্কেলিং কি দাঁতের ক্ষতিকারক?

স্কেলিং কি দাঁতের ক্ষতিকারক?


পাকস্থলী ক্যানসারের ওষুধ টমেটো!

পাকস্থলী ক্যানসারের ওষুধ টমেটো!


রাজধানীর ২১টি এলাকা চিকনগুনিয়া বিস্তারে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ

রাজধানীর ২১টি এলাকা চিকনগুনিয়া বিস্তারে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ


সিরাজগঞ্জে শিশু-মহিলাসহ ২১ জন অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত

সিরাজগঞ্জে শিশু-মহিলাসহ ২১ জন অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত