Tuesday, December 20th, 2016
ইতিহাসের কালো অধ্যায় হলি আর্টিজান
December 20th, 2016 at 8:31 am
ইতিহাসের কালো অধ্যায় হলি আর্টিজান

প্রীতম সাহা সুদীপ, ঢাকা: সন্ত্রাসীরা কোনো রেস্টুরেন্ট কিংবা ব্যাংকে ঢুকে অস্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মি করে ফেলে, সিনেমা-নাটকে এ ধরণের দৃশ্য অনেকেই দেখেছেন। কিন্তু এ ধরণের হামলা কতটা ভয়াবহ হতে পারে তার বাস্তব চিত্র দেখা গেছে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলায়। ২০১৬ সালের ১ জুলাই ঘটে যাওয়া ওই হামলার পরই জিম্মি সংকটের ভয়াবহতা সম্পর্কে জানতে পারে দেশবাসী। আতঙ্ক ও শোকে স্তব্ধ হয়ে যায় গোটা জাতি।

ঢাকার বাতাসে তখন ঈদের আমেজ। নয় দিনের দীর্ঘ ছুটি পেয়ে নাড়ির টানে মানুষ শহর ছেড়ে বাড়ি ফিরছিলেন। ঢাকার স্বাভাবিক চাপ কমে গিয়েছিল অনেকটাই। শপিং মলগুলোতে চলছিলো শেষ মুহূর্তের বেচাকেনা। ঠিক এমন সময়ই জাতির জীবনে নেমে আসে ঘোর অন্ধকার।

দিনটি ছিল শুক্রবার। রাত সাড়ে আটটার দিকে হঠাৎ করেই গুলশান-২ এর হলি আর্টিজান বেকারি নামের স্প্যানিশ রেস্টুরেন্টে ঢুকে পড়ে অস্ত্রধারী ৮/১০ জন যুবক, যাদের বয়স ২২ থেকে ২৮ বছরের মধ্যে। তারা রেস্টুরেন্টের সবাইকে জিম্মি ঘোষণা করে। খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান শুরু করে। রাত সাড়ে ১০টার দিকে সেখানে বড় ধরনের বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির শব্দ পাওয়া যায়। পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সালাউদ্দিন নিহত এবং ৫০ জনেরও বেশি ব্যক্তি আহত হয়।

এরপরের ঘটনা পুরোটাই রক্তাক্ত, জঙ্গিরা একে একে ২০ জন জিম্মিকে নিষ্ঠুরভাবে জবাই করে হত্যা করে। নিহতদের মধ্যে তিনজন বাংলাদেশি, একজন ভারতীয়, ৯ ইতালীয় এবং সাতজন জাপানি নাগরিক। প্রায় ১২ ঘন্টার ওই ‘জিম্মি সংকট’ শেষ হয় সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযান ‘অপারেশন থান্ডারবোল্ট’ দিয়ে। অভিযানে পাঁচ জঙ্গি ও রেস্টুরেন্টের বাবুর্চি সাইফুল ইসলাম চৌকিদার নিহত হন। নিহত জঙ্গিরা হলেন- নিব্রাস ইসলাম, মীর সামি মোবাশ্বির, রোহান ইমতিয়াজ, রাইয়ান মিনহাজ ও আন্দালিব আহমেদ। পরে আক্রান্ত হোটেল থেকে উদ্ধার করা হয় হাসনাত করিম, তাহমিদ খানসহ ৩২ জিম্মিকে।

ঘটনার তিনদিন পর চার জুলাই গুলশান থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করে পুলিশ। মামলা নম্বর-১(৭)১৬। পরবর্তীতে হলি আর্টিজানে জিম্মিদশার বিভিন্ন ফাঁস হওয়া ভিডিও চিত্রে হাসনাত করিম ও তাহমিদকে রহস্যজনক ভাবে চলা ফেরা করতে দেখা যায়। এসময় জঙ্গিদের সঙ্গে তাদের বেশ ঘনিষ্টভাবে কথা বলতেও দেখা যায়। রহস্যজনক আচরণের কারণে তাদের গোয়েন্দা কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

তিন আগস্ট রাতে হাসনাত করিম এবং তাহমিদ হাসিব খানকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তদন্তে তাহমিদের সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় মামলা থেকে তাকে অব্যহতি দেয়া হয়। আর হাসনাত করিমকে মূল মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে হামলার মাস্টারমাইন্ড তামিম চৌধুরী, নুরুল ইসলাম মারজান, চাকরিচ্যুত মেজর জিয়াউল হক, জোনায়েদ খানসহ বেশ কয়েকজনকে শনাক্ত করে গোয়েন্দারা। কবে হামলার পরিকল্পনা করা হয়, কারা অস্ত্র ও অর্থের যোগান দেয়, প্রযুক্তিগত সহায়তা কারা করে ‘সবকিছুই ক্লু পায়’ পুলিশ।

শুধু তাই নয় সন্ধান মেলে একাধিক জঙ্গি আস্তানার। এসব তথ্যের ভিত্তিতেই ২৫ জুলাই রাজধানীর কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালানো হয়। ওই অভিযানে ৯ জঙ্গি নিহত হয়। পরে ২৭ আগস্ট নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় অপর এক অভিযানে গুলশান হামলার মাস্টার মাইন্ড ও নব্য জেএমবি’র প্রধান তামিম চৌধুরীসহ তিন জঙ্গি নিহত হয়।

গুলশান হামলা মামলার তদন্ত করছে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানা থেকে আটক রাকিবুল হাসান রিগ্যানকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন। আগামী ২২ জানুয়ারি মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশকে সময় দিয়েছেন আদালত।

এক নজরে গুলশান হামলা

শুক্রবার রাত ৮:৪৫: ‘আল্লাহু আকবর’ বলে আট/নয় জন বন্দুকধারী সন্ত্রাসী ঢাকার গুলশান এলাকার স্প্যানিশ রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় প্রবেশ করে।

শুক্রবার রাত ১০:৩০: একটি বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায় এবং গোলাগুলি শুরু হয়। এতে দু’জন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন এবং ৫০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়।

শুক্রবার রাত ১০:৩৪: জিম্মি পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র জন কিরবি ঢাকার ঘটনা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। কিরবি বলেন, ‘দূতাবাসের পক্ষে কাজ করা সব মার্কিন নাগরিকের দায়িত্ব আমাদের। কোনো মার্কিন নাগরিক এবং স্থানীয় কোনো কর্মকর্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কি না, তা নির্ধারণ করতে আমরা স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাজ করছি।’

শুক্রবার রাত ১১:৩০: র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ গণমাধ্যমকে ঘটনাস্থল থেকে সরাসরি সম্প্রচার বন্ধের আহ্বান জানান।

শুক্রবার দিবাগত রাত ১:৩০: মার্কিনভিত্তিক সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ একটি টুইট পোস্ট করে যাতে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) জঙ্গিরা এই হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করা হয়। আইএসের কথিত বার্তা সংস্থা আমাক নিউজ এই তথ্য জানিয়েছে বলে টুইটে উল্লেখ করে সাইট ইন্টেলিজেন্স।

শনিবার ভোর ৪টায়: পুলিশ এক তরুণকে আটক করে। গ্রেফতার এড়াতে পালানোর সময় তার পায়ে গুলি করে পুলিশ।

শনিবার ভোর ৪:২০: ইতালির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানায়, ঢাকার রেস্তোরাঁয় বন্দুকধারীদের হাতে জিম্মিদের মধ্যে ইতালির সাতজন নাগরিক আছেন। ইতালির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সূত্র জানায়, ঘটনাস্থল থেকে একজন ইতালিয় জিম্মি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন। দেশটির গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, পালিয়ে আসা ইতালিয় পুলিশকে জানিয়েছেন, ভেতরে আরো সাতজন ইতালিয় আটকে আছেন।

শনিবার ভোর ৫টা: আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী যৌথ বাহিনী অভিযান পরিচালনার জন্য প্রস্তুত হন। যৌথ বাহিনীতে ছিল- সেনাবাহিনী, পুলিশ, র্যা ব, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), নৌবাহিনীর কমান্ডো এবং বিশেষ বাহিনী সোয়াত।

শনিবার সকাল ৭টা: সেনাবাহিনীর কমান্ডো ফোর্সকে জিম্মি এলাকায় মোতায়েন করা হয়।

শনিবার সকাল ৭:৩০: যৌথ বাহিনীর অভিযান শুরু হয়।

শনিবার সকাল ৭:৪০: যৌথ অভিযানের প্রথম ১০ মিনিটে পাঁচজনকে উদ্ধার করা হয়।

শনিবার সকাল ৮:১৫: যৌথ বাহিনী ৪৫ মিনিটে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

যারা নিহত হন
গুলশান হামলায় নিহত ২০ জনের তিনজন ছিলেন বাংলাদেশি। তারা হলেন- শিল্প ব্যক্তিত্ব ইশরাত আখন্দ, ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানের নাতি ফারাজ হোসেন এবং যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী তরুণী অবিন্তা কবির।

এছাড়াও ওই হামলায় ৯ জন ইতালীয় নাগরিক নিহত হন। তারা হলেন- স্টুডিওটেক্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাদিয়া বেনেদেত্তি, ক্লাউদিয়া কাপেল্লি, ভিনচেনসো দালেস্ত্রো, ফেডো ট্রেডিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্লাউদিয়া মারিয়া ডি দান্তোনা, অন্তঃসত্ত্বা সিমোনা মোনতি, আদেলে পুলিজি, ক্রিস্টিয়ান রোজি, মারিয়া রিবোলি এবং মারকো তোসদাত।

হলি আর্টিজানের হামলায় তারুশি জৈন নামে এক ভারতীয় নাগরিকও নিহত হন। ভয়াবহ ওই হামলায় দুই নারীসহ সাতজন জাপানি নাগরিক নিহত হন, যাদের মধ্যে ছয়জনই মেট্রোরেল প্রকল্পের সমীক্ষা কাজে নিয়োজিত ছিলেন।

নিহতরা হলেন- তানাকা হিরোশি, ওগাসাওয়ারা, শাকাই ইউকু, কুরুসাকি নুবুহিরি, ওকামুরা মাকাতো, শিমুধুইরা রুই ও হাশিমাতো হিদেইকো।

ছবি: জীবন আহমেদ

সম্পাদনা: সজিব ঘোষ


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় মৃত ব্যক্তিকে যেকোনো কবরস্থানে দাফন করা যাবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

করোনায় মৃত ব্যক্তিকে যেকোনো কবরস্থানে দাফন করা যাবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর


সচেতন না হলে সরকার আবারও কঠোর হবে: কাদের

সচেতন না হলে সরকার আবারও কঠোর হবে: কাদের


করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৯৫

করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৯৫


পুরোনো চেহারায় ফিরছে ঢাকা

পুরোনো চেহারায় ফিরছে ঢাকা


দিল্লির সীমান্ত সাত দিনের জন্য বন্ধ: নয়াদিল্লির মুখ্যমন্ত্রী

দিল্লির সীমান্ত সাত দিনের জন্য বন্ধ: নয়াদিল্লির মুখ্যমন্ত্রী


করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৩৮১

করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৩৮১


‘করোনা মোকাবেলায় দেশকে লাল, সবুজ ও হলুদ জোনে ভাগ করা হবে’

‘করোনা মোকাবেলায় দেশকে লাল, সবুজ ও হলুদ জোনে ভাগ করা হবে’


এসএসসির ফল প্রকাশ, পাশের হার ৮২.৮৭%

এসএসসির ফল প্রকাশ, পাশের হার ৮২.৮৭%


বাস ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

বাস ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি


এই পরিস্থিতিতে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না: শিক্ষামন্ত্রী

এই পরিস্থিতিতে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না: শিক্ষামন্ত্রী