Thursday, October 27th, 2016
ইসি পুনর্গঠন প্রস্তাবনা তৈরি করছে বিএনপি
October 27th, 2016 at 10:33 pm
ইসি পুনর্গঠন প্রস্তাবনা তৈরি করছে বিএনপি

ঢাকা: নির্বাচন কমিশন (ইসি) পুনর্গঠন সম্বলিত প্রস্তাবনা তৈরি করছে বিএনপি। তৈরি শেষে এই প্রস্তাবনা বিদেশী কূটনীতিক, সুশীল সমাজ ও দেশবাসীর কাছে তুলে ধরবে দলটি। নিরপেক্ষ সার্চ কমিটির মাধ্যমে শক্তিশালী ইসি পুনর্গঠনের ইস্যু নিয়ে আগামী ৭ নভেম্বর থেকে মাঠে নামবেন বেগম খালেদা জিয়া।

এ বিষয়ে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ বলেন, ‘বিএনপি চায় সব দলের প্রতিনিধি নিয়ে সার্চ কমিটি গঠন। এই কমিটি একটি নিরপেক্ষ ও শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠনে সহায়তা করবে।’

ঢাকায় নিযুক্ত ইইউ রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদু বলেছেন, আগামী ২০ ডিসেম্বর ব্রাসেলসে বাংলাদেশ-ইইউ যৌথ কমিশনের গণতন্ত্র, সুশাসন ও মানবাধিকার-বিষয়ক উপকমিটির বৈঠকে নিরপেক্ষ ও শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে আলোচনা হবে।

২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে বর্তমান নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছিল। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি। সংবিধানের আলোকে প্রেসিডেন্ট সবসময় সিইসি ও ইসি নিয়োগ দিলেও ২০১২ সালে সর্বশেষ কমিশন হয় সার্চ কমিটির মাধ্যমে। সে সময় প্রথমবারের মতো রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে বসেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমান। ২০১২ সালের ২৪ জানুয়ারি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে নামের সুপারিশ তৈরি করতে চার সদস্যের সার্চ (অনুসন্ধান) কমিটি গঠন করেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমান। অবশ্য ওই কমিটি নিয়ে আপত্তি তোলে বিএনপি।

বর্তমান বাস্তবতায় বিএনপি নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের ইস্যুকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। বর্তমান ইসির মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি। মাঝখানে সময় মাত্র পাঁচ মাস। এরই মধ্যে ইসি পুনর্গঠনের বিষয়টি সামনে চলে এসেছে। বিএনপি নেতারা মনে করেন, সারাদেশে বিএনপির জনপ্রিয়তা আগের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। সুতরাং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন মোটামুটি সুষ্ঠু হলেও তারা ক্ষমতায় আসবেন। আর নির্বাচন সুষ্ঠু করতে হলে দরকার শক্তিশালী ও নিরেপেক্ষ নির্বাচন কমিশন। সুতারং সরকার আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন গঠন করলে বিএনপি এই ইস্যুতে মাঠে নামবে।

শুধু বিএনপি নয়, বর্তমানে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সুশীল সমাজ এবং দাতা দেশগুলো রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচন কমিশনকে শক্তিশালী করার জন্য তাগিদ দিচ্ছেন। হাইকোর্টের রায়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল হওয়ার পর দলীয় সরকারের অধীনের যেহেতু নির্বাচন হবে সেহেতু শক্তিশালী নির্বাচন কমিশনের প্রয়োজনীয়তার দেখা দিয়েছে। বিএনপি নিরপেক্ষ সার্চ কমিটির মাধ্যমে শক্তিশালী ইসি পুনর্গঠনের ইস্যু নিয়ে মাঠে নামছে। কারণ সংবিধান মতে বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষে আগামী নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে হবে। সুতারং শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন না হলে আগামী নির্বাচন সুষ্ঠ হবে না বলে মনে করে বিএনপি।

সংবিধানে আইনের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনের কথা বলা হলেও ৪৫ বছরেও আইন তৈরি হয়নি। বিএনপি প্রথমে আইন তৈরি করে তারপর ইসি পুনর্গঠন সম্বলিত একটি প্রস্তাবনা তৈরি করছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। অচিরেই এই প্রস্তাবনা বিদেশী কূটনীতিক, সুশীল সমাজ ও দেশবাসীর কাছে তুলে ধরা হবে। সরকারের তরফ থেকে সংবিধান অনুযায়ি ইসি পুনর্গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বিভিন্ন দাতা দেশ, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নসহ দেশের সুশীল সমাজও শক্তিশালী ইসি পুনর্গঠনের পক্ষে কথা বলছেন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সবদলের প্রতিনিধি নিয়ে সার্চ কমিটি গঠনের মাধ্যমে ইসি পুনর্গঠন করতে হবে।

সম্প্রতি ঢাকা সফরকারী মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের উচ্চ পর্যায়ের এক কর্মকর্তার সঙ্গে বিএনপির একটি প্রতিনিধিদল বৈঠক করে। সেখানে বিএনপির তরফ থেকে শক্তিশালী ও নিরেপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরা হয়। জবাবে ওই কর্মকর্তা বিএনপি প্রতিনিধি দলকে বলেন, বাংলাদেশের আগামী সংসদ নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ যুক্তরাষ্ট্র দেখতে চায়। রাজনৈতিক দলগুলো যাতে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে এমন পরিবেশ তৈরি করতে হবে। দেশের জনগণ যাতে সত্যিকার অর্থে পছন্দ অনুযায়ী ভোট দিতে পারে, সেই ব্যবস্থাও নিশ্চিত করতে হবে। নির্বাচনে সব দলের সমান সুযোগ (লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড) নিশ্চিত করাও জরুরি। এর জন্য নিরেপেক্ষ ও শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন দরকার। যুক্তরাষ্ট্র ইসি পুনর্গঠনে ভুমিকা রাখবে বলে ওই কর্মকর্তা বিএনপি প্রতিনিধি দলকে জানান।

প্রতিবেদন: ইকে, সম্পাদনা: জাহিদ

 


সর্বশেষ

আরও খবর

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার


ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক

ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক


ঢাকা-দিল্লি ৫ সমঝোতা স্মারক সই

ঢাকা-দিল্লি ৫ সমঝোতা স্মারক সই


করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু

করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু


করোনায় আক্রান্ত শচীন

করোনায় আক্রান্ত শচীন


নাশকতা ঠেকাতে র‍্যাব-পুলিশের কঠোর অবস্থান

নাশকতা ঠেকাতে র‍্যাব-পুলিশের কঠোর অবস্থান


শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে

শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে


মতিঝিলে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ, শিশুবক্তা রফিকুলসহ অন্তত ১০ জন আটক

মতিঝিলে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ, শিশুবক্তা রফিকুলসহ অন্তত ১০ জন আটক


ঈদের পর স্কুল-কলেজ খোলার ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর

ঈদের পর স্কুল-কলেজ খোলার ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর


৮ মাস পর দেশে করোনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৩৫৫৪ শনাক্ত

৮ মাস পর দেশে করোনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৩৫৫৪ শনাক্ত