Friday, November 4th, 2016
‘এই মন্ত্রী মানুষ তো?’
November 4th, 2016 at 10:11 pm
‘এই মন্ত্রী মানুষ তো?’

ঢাকা: ক্ষোভে ফুঁসছে বাংলাদেশ। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর উপর্যুপরি হামলা, মন্দির ভাংচুর, বাড়িঘর লুটপাট, হামলার শিকার হওয়াদের নিয়ে মন্ত্রীর অভব্য উচ্চারণ, শিশু ধর্ষণ আর এসবের প্রতিবাদে মুখর এখন বাংলাদেশ। অস্থিরতা চারদিকে। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্যেও দ্বিতীয় দফা হিন্দুপল্লীতে অগ্নিসংযোগে উদ্বিগ্ন সবাই। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ-এর ভোট ব্যাংক নামে পরিচিত হিন্দু সম্প্রদায় আজ বিপন্ন। জাতীয়তাবাদী চেতনাধারীরা রাজনীতির উন্মত্ত খেলায় মত্ত। তাদের যেন কিছু এসে যায় না।

nasirnagar-1

ব্রাহ্মণবাড়িয়া আজ একটি আতংকের নাম। আক্রান্ত এলাকার মন্ত্রী ছায়েদুল হক শতশত মৌলবাদীদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দুদের সহানুভূতি দেখানোর পরিবর্তে তাদেরকে ‘অভিশপ্ত’ বলেছেন। তিনি এই মানুষদের ‘মালাউন’ বলে উল্লেখ করে বলেছেন, ‘এরা বাড়িয়ে বলছে।’ একজন দায়িত্বশীল রাজনীতিকের কন্ঠে এহেন সভ্যতা, ভব্যতা, শালীনতা ও শ্লীলতা বিবর্জিত শব্দ চয়নের পর সাধারণ মানুষের কন্ঠে কেবল একটি প্রশ্নই উচ্চারিত হচ্ছে, ‘এই মন্ত্রী মানুষ তো? তিনি কখন পদত্যাগ করবেন?’

মন্ত্রীর ‘মালউন’ উচ্চারণের প্রতিবাদে গীতিকার মনিরুল ইসলাম রানা নিজের ফেসবুক সময়রেখায় লিখেন, ‘এইটা ভাল, প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় একটা জানোয়ারের হাতে।’ কেবল রানাই নয়, সমালোচনায় মুখর এখন প্রায় সবাই। পশু মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই ছায়েদুল হককে ‘পশুমন্ত্রী’ বলেও সম্বোধন করছেন। মন্ত্রীর পক্ষ থেকে এরপর আর কোনো উচ্চবাচ্য নেই। ফলে প্রশ্নটি আসছে বারংবার, ‘এই মন্ত্রী মানুষ তো!’

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জয়দেব নন্দী লিখেছেন, ‘কেউ নিজে মালাউন (অভিশপ্ত) হয়ে যদি অন্যকে মালাউন বলে; তাকে বারবার মালাউনই বলবেন।

কবি ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ডাল্টন সৌভাত হীরা নিজের ফেসবুক পৃষ্ঠায় জুড়ে দিয়ে বেশ বড় আলোচনা। তিনি লিখেছেন,

ছায়েদুল সাহেবকে পুষে আওয়ামী লীগের লোকসান কতটা সেটা সম্ভবত আগামী কয়েকদিনে বোঝা যাবে।সম্ভবত আওয়ামী বিরোধী শিবিরের ট্রাম্প কার্ড আগামী রাজনীতিতে ছায়েদুল সাহেব।

একটা ব্যাপার গড় পড়তা আওয়ামী রাজনীতি এখনো অসাম্প্রদায়িক, ব্রাহ্মনবাড়িয়া ঘটনায়,এমনকি ছায়েদুল এর বিপক্ষেও সবচেয়ে সরব আওয়ামী এই অসাম্প্রদায়িক অংশই।বিরোধী অংশ সারা জীবন ই এই ইস্যুতে নীরব(ইনক্লুডিং বামাতিজ), হঠাৎ ছায়েদুল জড়িত থাকায়,এই ইস্যুতে প্রবল সরব।রাজনীতির কার্ড মিস ত কেউ ই করতে চায় না।আর আমাদের য়্যাপোলেজেটিক রা ঠিক এই জায়গাটাকেই ব্যবহার করে,তাদের ঐতিহাসিক নীরবতা ও সাম্প্রদায়িক বিষাক্ততার দাঁড়ি টানছেন।

দোষ কাদের?দোষ ত আওয়ামী লীগেরই।এরকম সাম্প্রদায়িক মনোভাব সম্পন্ন ছাগল মন্ত্রী কম নাই খুব।একই সাথে প্রবল অসাম্প্রদায়িক মনোভাব সম্পন্ন কর্মী সমর্থকের সংখ্যাও প্রচুর ই।

আওয়ামী লীগের এই প্রবল অসাম্প্রদায়িক কর্মী সমর্থকদের লড়াইকে মাটি করতে একজন ছায়েদুলই যথেষ্ট। এবং এই হাইব্রিড ছাগল গুলাই আমার মিনিষ্টার হচ্ছে।

খুব বেশি কিছু বলার নাই।আওয়ামী লীগের কর্মী সমর্থকদের সমস্ত লড়াই,এভাবেই চুরি হয়।যারা চুরি করে তারাই আওয়ামী লীগকে দু:সময়ে ফেলে সরে যায়।এ এক দুষ্ট চক্র।এ দুষ্ট চক্র থেকে আওয়ামী রাজনীতি কখনোই শিক্ষা নেই নি।আফসোস এখানে।  

প্রসঙ্গত, ব্রাহ্মনবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনায় প্রশাসন পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ ওঠে। অভিযোগের জবাবে উত্তেজিত মৎস ও প্রানীসম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হক বলে ওঠেন ‘মালাউনের বাচ্চারা বেশি বাড়াবাড়ি করতাছে’। এটিই স্বাধীন বাংলাদেশে কোন মন্ত্রীর প্রথম ‘মালাউন’ উচ্চারন।

প্রতিবেদন: তুহিন সাইফুল


সর্বশেষ

আরও খবর

মহামারী, পাকস্থলির লকডাউন ও সহমতযন্ত্রের নরভোজ

মহামারী, পাকস্থলির লকডাউন ও সহমতযন্ত্রের নরভোজ


করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু

করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু


করোনায় আক্রান্ত শচীন

করোনায় আক্রান্ত শচীন


শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে

শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে


মতিঝিলে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ, শিশুবক্তা রফিকুলসহ অন্তত ১০ জন আটক

মতিঝিলে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ, শিশুবক্তা রফিকুলসহ অন্তত ১০ জন আটক


৮ মাস পর দেশে করোনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৩৫৫৪ শনাক্ত

৮ মাস পর দেশে করোনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৩৫৫৪ শনাক্ত


শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে ১৪ জঙ্গিকে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদণ্ড

শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে ১৪ জঙ্গিকে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদণ্ড


শবে বরাতের ছুটি ৩০ মার্চ

শবে বরাতের ছুটি ৩০ মার্চ


গান্ধী শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হলেন বঙ্গবন্ধু

গান্ধী শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হলেন বঙ্গবন্ধু


করোনায় আক্রান্ত ইমরান খান

করোনায় আক্রান্ত ইমরান খান