Monday, June 22nd, 2020
কটন টপ ট্যামারিন, খোঁজা বানর!
June 22nd, 2020 at 4:53 pm
কটন টপ ট্যামারিন, খোঁজা বানর!

শামীম আহমেদ :

খোজাদের গল্প নিশ্চয়ই শুনেছেন অনেকে। প্রাচীন ও মধ্যযুগে রাজকীয় হারেমে বা রাজার স্ত্রীমহলে ভৃত্য বা কর্মী হিসেবে খোজা নিয়োগ করা হতো। নিয়োগ দেয়ার পূর্বে এদের শিশ্ন ও শুক্রাশয় কেটে নেয়া হতো। অর্থাৎ এদেরকে প্রজননে অক্ষম বা নপংশুক করে রানী মহলে নিয়োগ দেয়া হতো এই উদ্দেশ্যে যে এরা হেরেম শরীফ পরিচালনাকালে কোনভাবেই যেন মহলের রানীদের সাথে শারীরিক সম্পর্কে না  জড়াতে পারেন। সন্তান উৎপাদন করতে না পারেন। রাজপুত্র বা রাজকন্যা  যেন শুধুই রাজার রক্তের কেউ হন সে নিশ্চয়তার লক্ষ্যেই খোজা শ্রেণীর উদ্ভট ঘটে সেই সমাজে। কিন্তু এ লেখায় খোজাদের গল্প কেন করছি? তার কারণ জানাচ্ছি একটু পরেই।

কলাম্বিয়ার উপকূলীয় রেইনফরেস্ট বা ঘণবর্ষণ বনাঞ্চলটি এমাজনের কাছে, ঠিক  আন্দিজ পর্বতমালার বিপরীত দিকে অবস্থিত। দক্ষিণ আমেরিকার অন্যান্য বনভূমির মতো এ বনাঞ্চলও প্রায় ধ্বংসের পথে। বন নিধন এখানে নিত্যদিনের ঘটনা। কলাম্বিয়াকে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম জীব-বৈচিত্রের দেশ বলা হলেও তার সে গৌরব আজ অনেকটাই ফিকে হয়ে আসছে। কারণ দেশটির প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ বনভূমি ইতোমধ্যে ইতিহাসের পাতায়। বাকিটুকুও হারানোর পথে।

ফলে এখানে হাজারো রকমের প্রাণ কালের পরিক্রমায় বিলুপ্ত হয়ে গেছে এবং এখনো হচ্ছে। এ কথা শুনতে কার ভালো লাগে? অনেকের তো বিশ্বাসই করতেই কষ্ট হয়! বিশ্বাস করে বাকিটুকু পড়ে যান। বিশ্বাসের প্রমাণ পাবেন।   

আজ করোনায় বিশ্বব্যাপী মানুষের মৃত্যুর মিছিল। প্রতিদিন অনেকেই আপনজন, প্রিয়জন হারাচ্ছেন। পৃথিবীর তার কাছে হয়ে ওঠছে বিষাদময়। এমনই বিষাদময় আপনজন হারানোর পরিবেশে বিলুপ্তির দিন গুনছে পৃথিবীর সবচেয়ে দুষ্প্রাপ্য প্রজাতির বানর- কটন টপ ট্যামারিন। একসময় কলাম্বিয়ার এ বনাঞ্চলের প্রায় সব জায়গায় এদের বিচরণ থাকলেও এখন মাত্র শতেকখানি টিকে আছে কয়েকটি জায়গায়। আর পৃথিবী জুড়ে রয়েছে মাত্র ছয় হাজারেরও কম।

পৃথিবীর বুদ্ধিমান স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মধ্যে সবচেয়ে ছোট কিন্তু অপেক্ষাকৃত বৃহৎ মস্তিষ্কের অধিকারী কটন টপ ট্যামারিন। এ প্রজাতির বানরেরা নানা ধরণের কিচির-মিচির শব্দ ও ডাকের মাধ্যমে একে অপেরের সাথে যোগাযোগ করে যা বিজ্ঞানীদের কাছে একটি প্রায় পূর্ণ ভাষা বলে বিবেচিত। পৃথিবীর সর্বভূক প্রাণিদের মধ্যে কটন টপ ট্যামারিন অন্যতম। কি খায় না এ বানর? কীট পতঙ্গ, ছোট উভচর কিংবা  সরিসৃপ প্রাণী, ফল, ফুলের মধু। এমন কি বড় গাছের বাকল থেকে নিঃসৃত আঠালো রসও বাদ যায় না তার খাবারের মেন্যু থেকে।

সর্বভুক মানুষকেও হার মানিয়েছে কটন টপ ট্যামারিন। কারণ তার পছন্দের তালিকায় খাবার হিসেবে রয়েছে ৫০,০০০ প্রজাতির প্রাণ। দিনের বেলায় কর্মঠ এ প্রাজতির বানরের আসল ভয়ের কারণ সাপ ও শিকারি পাখি। ডাঙ্গার সাপ আর আকাশের উড়ন্ত শিকারি পাখির চোখ সব সময় এ কটন টপ ট্যামারিনের দিকে। সর্বভূক এই প্রাণীকেও যে মাঝে মাঝে অন্যের খাবার হতে হয় প্রকৃতির নিয়মে। তাই সাবধানতাই তাদের বেঁচের থাকার উপায়। 

কটন টপ ট্যামারিনের পারিবারিক বিন্যাস আলোচনার সবচেয়ে মজার বিষয়। এখানেই যে নিহিত প্রকৃতির আরেক খোজাদের গল্প। এরা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে চলাফেরা করে। এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ১৩ জনের দল দেখা গেছে। প্রতিটি দলের শাসন ক্ষমতা একটি পুরুষ ও একটি স্ত্রী বানরের (আলফা ফিমেল) হাতে কুক্ষিগত থাকে। কেবল শক্তিশালী ও কর্তৃত্ব পরায়ণ এ বানর দম্পতিরই সন্তান জন্মদানের অধিকার রয়েছে একটি দলের মধ্যে। দলের বাকি সবাই রাজমাতা বা আলফা ফিমেল দ্বারা শাসিত হয়ে থাকে। অনেকটা রানী মৌমাছির শাসনের মতো।

কিন্তু রানী মৌমাছিও এতোটা কতৃত্বপনা দেখায় না। দলের আলফা ফিমেল অন্যান্য ফিমেল বানরদের এক ধরণের ফেরোমন হরমোন নিঃসরণের মাধ্যমে তাদেরকে সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা শেষ করে দেয়। যাতে আর কোন দিন আলফা ফিমেল ছাড়া আর অন্য কোন স্ত্রী বানর সন্তান ধারণ করতে না পারে। অর্থাৎ কটন টপ ট্যামারিন সমাজে খোজা হয় নারী বানরেরা।

বন নিধন করে কৃষি জমি, নদীতে জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র, রাস্তা, সেতু এমনকি কোকেইন উৎপাদন করে এ বনাঞ্চলের পরিবেশ আজ বিপন্ন প্রায়। ফলে দিন দিন গৃহহীন হচ্ছে কটন টপ ট্যামারিন। অস্তিত্ব-নাশের আশঙ্কা নিয়ে দিন গুনছে শতেক খানি এখনো টিকে থাকা এ প্রজাতির বানর! 

কি অদ্ভুত সব প্রাণে ভরা আমাদের এ বিপুলা পৃথিবী! আরো কতো মজার ও বিস্ময়কর বৈশিষ্ট্যের প্রাণী হয়তো হারিয়ে গেছে এ পৃথিবী থেকে। তার অধিকাংশই যে আমাদের কারণে। আমাদের ভয়ংকর বুদ্ধির জন্যে!

ছবিতে দেখুন স্যাটেলাইট ভিয়্যু। কিভাবে দক্ষিণ আমেরিকার বনভূমি উজার হচ্ছে দিন দিন।

তথ্য কৃতজ্ঞতাঃ Seven Worlds One Planet – Jonny Keeling and Scott Alexander

ছবি কৃতজ্ঞতাঃ BBC Documentary- Seven Worlds One Planet. (Narrated by David Attenborough)


সর্বশেষ

আরও খবর

চীন-ভারত বৈরিতা নতুন করে জঙ্গিবাদ  উত্থানের সম্ভাবনা তৈরী করেছে

চীন-ভারত বৈরিতা নতুন করে জঙ্গিবাদ উত্থানের সম্ভাবনা তৈরী করেছে


শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন: ‘পুতুল’ খেলার আঙিনায় বেজে উঠুক ‘জয়’র বাঁশি

শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন: ‘পুতুল’ খেলার আঙিনায় বেজে উঠুক ‘জয়’র বাঁশি


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু


করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ  ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা


ভাইরাসের সাথে বসবাস

ভাইরাসের সাথে বসবাস


মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা

মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা


লন্ডন ফিরছেন আইএস বধু ব্রিটিশ-বাংলাদেশী শামীমা বেগম!

লন্ডন ফিরছেন আইএস বধু ব্রিটিশ-বাংলাদেশী শামীমা বেগম!


তাসের ঘর : দুর্দান্ত স্বস্তিকায় নারীমুক্তি?

তাসের ঘর : দুর্দান্ত স্বস্তিকায় নারীমুক্তি?


অস্ট্রিয়ায় চালু হলো করোনাভাইরাস ট্রাফিক লাইট ব্যবস্থা

অস্ট্রিয়ায় চালু হলো করোনাভাইরাস ট্রাফিক লাইট ব্যবস্থা


সৌন্দর্যসেবায় আয় কমেছে সবার: বেকার ৪০ শতাংশ উদ্যোক্তা-কর্মী

সৌন্দর্যসেবায় আয় কমেছে সবার: বেকার ৪০ শতাংশ উদ্যোক্তা-কর্মী