Monday, February 27th, 2017
কারাবন্দী জীবন কেমন হয়!
February 27th, 2017 at 7:26 pm
কারাবন্দী জীবন কেমন হয়!

প্রীতম সাহা সুদীপ, ঢাকা: চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি, খুন- সব অপরাধীর একটাই জায়গা কারাগার। অপরাধ আছে, তাই কারাগার আছে। যদিও আজকাল বিনা অপরাধেও জেল খাটতে হচ্ছে অনেককেই। যাই হোক অনেকের কাছেই কারাগার মানে একটি হতশ্রী, নোংরা, দুর্গন্ধযুক্ত ঘরে লোহার শিকল দিয়ে আবদ্ধ থাকা। যেখানে বাসি পঁচা খাবার আর পুলিশের লাঠির মার ছাড়া হয়তো কিছুই পাওয়া যায় না।

সাধারণ মানুষের এমন ধারণা কি আসলেই সত্যি! বাস্তবে কেমন হয় কারাগারের পরিবেশ? কেমন হয় সেখানে থাকার অভিজ্ঞতা। অপরাধের কারণে কারাবন্দী জীবন পাওয়া মানুষগুলো কিভাবে দিনের পর দিন, রাতের পর রাত উঁচু প্রাচীরে ঘেরা ওই জায়গাটাতে কাটিয়ে দেয়। চলুন জেনে নেয়া যাক-

কারা অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে মোট কারাগারের সংখ্যা ৬৮টি, এর মধ্যে ১৩টি কেন্দ্রীয় কারাগার। সরকারি হিসাব মতে দেশের এসব কারাগারে বন্দীর ধারণক্ষমতা ৩৪ হাজার ৭০০ জন। অথচ সেখানে গড়ে ৮০ হাজার বন্দী থাকছেন। বন্দীদের সুযোগ সুবিধা দেয়া হচ্ছে ১৮৬৪ সালে ব্রিটিশ জেল কোড অনুযায়ী।

৬৮টি কারাগারের মধ্যে হাসপাতাল রয়েছে মাত্র ১২টিতে। এগুলোতে ১১৭ জন চিকিৎসকের পদ থাকলেও আছে মাত্র ৬ জন। থাকার জায়গা, চিকিৎসা সেবা সংকট ও মানহীন খাবারসহ নানা সমস্যায় অমানবিক হয়ে উঠেছে কারাগারের বন্দী জীবন।

আসলে কেমন হয় কারাগারের বন্দী জীবন?

কয়েদিদের কাছে জীবন মানেই চার দেয়াল আর স্বপ্ন মানে দেয়ালের বাইরের জগতে ফেরা। শাস্তি, অনুতাপ, প্রায়শ্চিত্ত, সংশোধন আর বোবা কান্নায় ভরা তাদের প্রতিটি মুহূর্ত। দেশের অন্য কারাগারগুলোর মতোই কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা বন্দীদের জীবনও একটি নির্দিষ্ট ছকের মধ্যে বাঁধা।

দিনের নির্দিষ্ট দশ ঘন্টা বাদে বাকি সময় বন্দীদের রাখা হয় গ্রিলের ভেতর। সকালে তারা লকআপ থেকে বাইরে বের হওয়ার সুযোগ পায়। ওই সময় টুকুর মধ্যেই স্বল্প পরিসরে সেরে নিতে হয় গোসল ও ব্যক্তিগত কাজকর্ম। এর পর যারা বই পড়ায় আগ্রহী তারা লাইব্রেরিতে গিয়ে বসেন।

একই সময়ে সশ্রম কারাদণ্ডপ্রাপ্তদের একটি অংশ রান্না করার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। নামে মাত্র তেল, মসলা দিয়ে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে বন্দীদের খাবার রান্না করা হয়। এরপর শুরু হয় ওয়ার্ড ভিত্তিক খাবার বিতরণ।

অন্যদিকে কেস টেবিলে তখন কারারক্ষীরা নতুনদের কাজ ভাগ করে দেয়ার পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ বিচার কাজ সম্পন্ন করেন। কেস টেবিল হচ্ছে ছোট খাটো একটা ভবনের নাম, যেখানে আসামিদের প্রাথমিক সালিশ বিচার হতে শুরু করে নানা রকম অফিসিয়াল কাজ করা হয়।

স্কুল কলেজের মতো কারাগারের ভিতরেও ঘণ্টা বাজাতে দেখা যায়। এক ক্লাস শেষ হয়ে নতুন ক্লাস শুরুর আগে যেমন ঘণ্টা বাজানো হয়, তেমনি কারাগারেও কয়েদিদের এক কাজ শেষ করে অন্য কাজ শুরু করার জন্য ঘণ্টা বাজিয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়।

দুপুরে খাওয়ার পর বন্দীরা বেরিয়ে পড়ে খেলাধুলায়। মূলত সেলের ভেতরে কাটানো অমানবিক জীবন ভুলে থাকার জন্য বন্দিরা এই দশ ঘন্টাই সময় পান। রুটিনে বাঁধা এ সময় শেষে আবার তাদের ফিরে যেতে হয় কারাপ্রকোষ্ঠে, যেখানে ফিরতে চান না কেউই। সাধারণ বন্দীরা দিনের দশ ঘণ্টা বাইরে কাটানোর সুযোগ পেলেও, জঙ্গি ও ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তদের খোলা জায়গায় আসার সুযোগ দেয়া হয় না।

কারাগার হোক সংশোধনাগার

‘বন্দীদের সংশোধন, সমাজে পুনর্বাসন’স্লোগানকে সামনে রেখে রোববার থেকে শুরু হয়েছে কারা সপ্তাহ-২০১৭। এদিন দুপুরে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার প্রাঙ্গণে কারা সপ্তাহের অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

মন্ত্রী বলেন, ‘এক সময় কারাগারকে শুধু সাজা কার্যকরের স্থান মনে করা হতো। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় বাংলাদেশ জেল তার পুরনো ধ্যান ধারণা বদলেছে। এখন কারা সদস্যরা কারাবন্দীদের সংশোধন করে সমাজের পুনর্বাসন করার চেতনা ধারণ করে কারা সাপ্তাহ উদযাপন করছেন। যা শুধু কারা বিভাগের নয় সরকারের সফলতার একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সদিচ্ছায় কারাবন্দীদের মোবাইল-টেলিফোনে পরিবারের সঙ্গে কথা বলার দ্বার উন্মোচিত হচ্ছে। এছাড়া স্পর্শকাতর বন্দীদের কারাগার থেকে আদালতে ভিডিও কনফারেন্সিং পদ্ধতিতে বিচার কার্যক্রম চালু করা হচ্ছে। কারা প্রশাসন র‌্যাবের সহযোগিতায় বন্দীদের তথ্যভান্ডার তৈরি করছে, যাতে আমাদের আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা আরো একধাপ এগিয়ে যাবে।’

কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেন, ‘শুধু পুনর্বাসন করে বন্দীদের শোধরানো সম্ভব নয়। কারণ, বন্দীদের মধ্যে চারিত্রিক ও মানসিক অপরাধ বোধ থাকে। এ জন্য তাদের চারিত্রিক ও মানসিক সংশোধন প্রয়োজন। এ শিক্ষা দেয়ার জন্য লোকবল প্রয়োজন। আমরা শুধু এখন বন্দীদের পুনর্বাসন এবং প্লাম্বার, টাইলস লেইন, মেসনরী, মোকাসিন তৈরি, হাউসহোল্ড ইলেকট্রিক ওয়্যারিং, এসি/ফ্রিজ মেরামত, ভারমি কমপোস্ট, মাশরুম চাষ, মেকওভার কোর্স ইত্যাদি প্রশিক্ষণের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকছি। বন্দীদের মানসিক উন্নতির লক্ষ্যে তাদের ধর্মীয় ও আত্মিক শিক্ষা প্রদান করার পাশপাশি মাদকাসক্তদের মোটিভেশনের লক্ষ্যেও কারাগারে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।’

‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন জেলকে সংশোধনাগার করার জন্য এমনটা উল্লেখ করে আইজি প্রিজন আরো বলেছেন, ‘জেল থেকে বন্দিদের সংশোধিত না করা পর্যন্ত পরিবর্তন সম্ভব নয়। শুধু জনসাধারণ ও কারা কর্তৃপক্ষের নয়, নীতি-নির্ধারকদেরও চিন্তা-ধারণার পরিবর্তন প্রয়োজন। জেল থেকে সংশোধনাগার চিন্তাধারাকে সবার মধ্যে আনতে হবে। আর একবার কেউ জেলে এলে সমাজের সবাই জানে ওই ব্যক্তি জেলে গেছে। তখন সবাই তাকে অন্য নজরে দেখে। কেউ ব্যাপারটি স্বাভাবিকভাবে নেয় না। তাই অন্য অপরাধীরা ওই ব্যক্তিকে কাছে টানে। তখন সে আর সঠিক পথে ফিরতে পারে না। তাই বন্দীদের চারিত্রিক ও মানসিক সংশোধনের পরও সমাজের মানুষের চিন্তাধারায়ও পরিবর্তন আনতে হবে। জেল থেকে বের হওয়ার পর তাদের (বন্দীদের) কর্মক্ষেত্রে সুযোগ তৈরি করে দিতে হবে।’

সম্পাদনা: জাহিদ


সর্বশেষ

আরও খবর

বগুড়ায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৫

বগুড়ায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৫


উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শাবি শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শাবি শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন


দেশে আরও ৯৫০০ জনের করোনা শনাক্ত, হার ২৫ ছাড়াল

দেশে আরও ৯৫০০ জনের করোনা শনাক্ত, হার ২৫ ছাড়াল


টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী

টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী


অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে বাস চলার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন

অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে বাস চলার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন


আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর

আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর


এবারের বিজয় দিবসে দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী

এবারের বিজয় দিবসে দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী


কমলো এলপিজির দাম

কমলো এলপিজির দাম


উন্নয়নশীল দেশ নিয়ে খুশি না হয়ে, উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

উন্নয়নশীল দেশ নিয়ে খুশি না হয়ে, উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির


জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন

জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন