Monday, August 22nd, 2016
কী থাকছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে
August 22nd, 2016 at 7:21 pm
কী থাকছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে

তুহিন সাইফুল, ঢাকা: আধুনিক প্রযুক্তিপণ্য বা ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে পরিচালিত যেকোনো ধরনের নেতিবাচক প্রচার ও প্রচারণাকে আইনের আওতায় আনতে সরকার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তৈরি করতে যাচ্ছে। সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অুনষ্ঠিত মন্ত্রীসভার নিয়মিত বৈঠকে এই আইনের খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়। এই আইনে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা লঙ্ঘনসংক্রান্ত বিষয়ে সর্বোচ্চ ১৪ বছর কারাদণ্ডের প্রস্তাব করা হয়েছে। আইনের খসড়ায় প্রযুক্তিপণ্য বা ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারের মাধ্যমে অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনা করে পৃথক পৃথক শাস্তির ব্যবস্থা  রাখা হয়েছে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়ায় ধারা ১৫(৫) এ উল্লেখ করা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি ইলেকট্রনিক মাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বা মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে আদালত কর্তৃক মীমাংসিত বিষয়াবলী বা জাতির পিতার (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান) বিরুদ্ধে নেতিবাচক প্রচারণা, প্রচারণা বা তাতে মদদ দেয়, তাহলে তার শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড অথবা অনধিক এক কোটি টাকা অর্থদণ্ড অথবা তিনি উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

আইনের ১৯ ধারায় বলা হয়েছে, কেউ যদি ওয়েবসাইট বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন, যা মিথ্যা, অশ্লীল এবং যা মানুষের মনকে বিকৃত ও দূষিত করে, মর্যাদাহানি ঘটায় বা সামাজিকভাব হেয়প্রতিপন্ন করে; অথবা কেউ যদি স্বেচ্ছায় কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার উদ্দেশে ওয়েবসাইটে বা অন্য কোনো বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন যা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেউ পাঠ করলে বা দেখলে বা শুনলে তা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করতে পারে, তাহলে তিনি অনধিক দুই বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবেন অথবা দুই লাখ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ১৯ ধারার সাথে ২০১৩ সালে প্রনীত আইসিটি আইনের ৫৭ ধারার সঙ্গে বেশ মিল রয়েছে। তবে ৫৭ ধারায় উল্লেখ করা শাস্তির তুলনায় ১৯ ধারায় শাস্তির পরিমাণ কম। ৫৭ ধারায় অপরাধকে জামিন অযোগ্য বলে বিবেচিত করলেও নতুন আইনের ১৯ ধারায়  কয়েকটি অপরাধকে জামিনযোগ্য রাখা হয়েছে। খসড়ায় বলা হয়েছে নতুন এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার্যকর হওয়ার সাথে সাথে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৪, ৫৫, ৫৬, ৫৭ ধারা রহিত হবে এবং এই ধারাগুলোর অধীনে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা নতুন এই আইনের অধীনে নেওয়া হয়েছে বলে গণ্য হবে।

এখানে উল্লেখ্য যে, আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় ইলেকট্রনিক ফর্মে মিথ্যা, অশ্লীল অথবা মানহানিকর তথ্য প্রকাশ সংক্রান্ত অপরাধ ও এর দণ্ড সম্পর্কে বলা হয়েছে ‘(এক) কোনো ব্যক্তি যদি ওয়েবসাইটে বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন, যাহা মিথ্যা ও অশ্লীল বা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেহ পড়িলে, দেখিলে বা শুনিলে নীতিভ্রষ্ট বা অসৎ হইতে উদ্বুদ্ধ হইতে পারেন অথবা যাহার দ্বারা মানহানি ঘটে, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটে বা ঘটার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়, রাষ্ট্র ও ব্যক্তির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয় বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করিতে পারে বা এ ধরনের তথ্যাদির মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা সংগঠনের বিরুদ্ধে উসকানি প্রদান করা হয়, তাহা হইলে তাহার এই কার্য হইবে একটি অপরাধ। (দুই) কোনো ব্যক্তি উপ-ধারা (১) এর অধীন অপরাধ করিলে তিনি অনধিক চৌদ্দ বছর এবং অন্যূন সাত বৎসর কারাদণ্ডে এবং অনধিক এক কোটি টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।’

নতুন আইনের খসড়ায় কম্পিউটার নেটওয়ার্ক হ্যাকিংয়ের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থার বিধান থাকছে। এর ১৫ ধারায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের অখণ্ডতা, সংহতি, জননিরাপত্তা বা সার্বভৌমত্ব বিপন্ন করার জন্য জনসাধারণ বা জনসাধারণের কোনো অংশের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টির মাধ্যমে সরকার বা কোনো কোম্পানি বা কোনা ব্যক্তিকে কাজ করতে বা কাজ থেকে বিরত রাখতে বাধ্য করার উদ্দেশে কোনো কম্পিউটার, কম্পিউটার প্রোগ্রাম, কম্পিউটার সিস্টেম বা কম্পিউটার নেটওয়ার্ক বা ডিভাইস, ডিজিটাল সিস্টেম বা ডিজিটাল নেটওয়ার্কে প্রবেশাধিকার ব্যাহত করে, তাহলে তিনি ডিজিটাল সন্ত্রাসী কাজের জন্য অপরাধী হবেন। আর এই অপরাধে তিনি অনধিক ১৪ বছর কারাদণ্ড অথবা অনধিক এক কোটি টাকা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

এছাড়াও নতুন এই আইনের খসড়ায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি অসৎ উদ্দেশে ইচ্ছেকৃতভাবে বা জ্ঞাতসারে অন্য কোনো ব্যক্তির অনুমতি ছাড়া তার ব্যক্তিগত ছবি তোলে এবং প্রকাশ করে বা বিকৃত করে বা ধারণ করে তাহলে এটি ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘনের ক্ষেত্রে অপরাধ বলে বিবেচিত হবে; যার শাস্তি সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ড। তবে কারো ব্যক্তিগত ফোন কল প্রকাশ অপরাধ কি না, তা এই আইনে উল্লেখ নেই।

ইন্টারনেটে পর্নোগ্রাফি ও শিশু পর্নোগ্রাফি প্রতিরোধে নতুন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে শিশু পর্নোগ্রাফির অপরাধে অনধিক সাত বছর কারাদণ্ড বা পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে।

নতুন এ আইনে একটি সাইবার ট্রাইব্যুনাল গঠনের বিধানও রাখা হয়েছে। জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি গঠনেরও বিধান রাখা হয়েছে নতুন আইনে। আর এ কর্তৃপক্ষ পরিচালনার জন্য একজন মহাপরিচালক, প্রয়োজনীয় সংখ্যক অতিরিক্ত মহাপরিচালক, পরিচালক, উপপরিচালক এবং সহকারী পরিচালকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা নিয়োগ করা হবে।

তা ছাড়া মহাপরিচালকের নিয়ন্ত্রণে এক বা একাধিক ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাব স্থাপনের কথাও বলা হয়েছে; যেখানে প্রয়োজনীয় সংখ্যক উপযুক্ত কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন জনবল থাকবে। ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির অধীনে বাংলাদেশ সাইবার ইমার্জেন্সি বা ইনসিডেন্ট রেসপন্স টিম নামে একটি প্রধান টিম থাকবে। সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য মন্ত্রণালয় বা সেক্টরভিত্তিক একাধিক টিম থাকতে পারবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তার সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা এবং ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়ে জাতীয় ‍গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে  প্রধানমন্ত্রীকে সভাপতি করে একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল গঠনেরও বিধান রাখা হয়েছে। এই ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল দেশের জাতীয় নিরাপত্তা বা নাগরিকের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কল্যাণে নিয়োজিত নির্দিষ্ট কিছু কম্পিউটার সিস্টেম, নেটওয়ার্ক বা তথ্য পরিকাঠামোগুলোকে অত্যাবশকীয় তথ্য পরিকাঠামো হিসেবে ঘোষণা করতে পারবে।

নতুন এ আইনের ২ (৩২) ধারায় ‘সন্ত্রাসী সম্পদ’ উল্লেখ করে বলা হয়েছে ‘কোনো সম্পদ যাহা সম্পূর্ণরূপে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সন্ত্রাসী কাজে ব্যবহৃত হতে পারে বা হয়েছে বা ব্যবহারের মাধ্যমে প্রাপ্ত এবং বাংলাদেশ বা কোনো বিদেশি রাষ্ট্র কর্তৃক সন্ত্রাসী হিসেবে চিহ্নিত কোনা ব্যক্তি, কোম্পানি বা স্বত্বার সম্পদকে বুঝাবে।’ এ ক্ষেত্রে জঙ্গিবাদে অর্থায়নের অভিযোগে যেসব ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠানের প্রতি অভিযোগ রয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠানও এ আইনের অধীনে শাস্তির আওতায় আসতে পারে।

প্রসঙ্গত, ৪৪টি ধারা সংবলিত নতুন এই আইনটি এখন পাশের জন্য সংসদে যাবে। সংসদ পাশ করার পর রাষ্ট্রপতি এতে সাক্ষর করলে এটি আইনে পরিণত হবে।

সম্পাদনা: জাহিদুল ইসলাম


সর্বশেষ

আরও খবর

দেশে করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু

দেশে করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু


পুলিশ সদস্যরা জনতার পুলিশে পরিণত হবে: প্রধানমন্ত্রী

পুলিশ সদস্যরা জনতার পুলিশে পরিণত হবে: প্রধানমন্ত্রী


মানুষের মন থেকে পুলিশভীতি দূর করতে হবে

মানুষের মন থেকে পুলিশভীতি দূর করতে হবে


ফ্রান্সে ছুরি হামলায় ৩ জন নিহত

ফ্রান্সে ছুরি হামলায় ৩ জন নিহত


শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ল ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ল ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত


কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত হচ্ছেন ইরফান সেলিম

কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত হচ্ছেন ইরফান সেলিম


বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ১১ লাখ

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ১১ লাখ


করোনা: আরও ২৩ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩০৮

করোনা: আরও ২৩ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩০৮


সেনাপ্রধান ফেইসবুকে নেই: আইএসপিআর

সেনাপ্রধান ফেইসবুকে নেই: আইএসপিআর


ধর্ষণের সাজা মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত অনুমোদন

ধর্ষণের সাজা মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত অনুমোদন