Friday, August 19th, 2022
‘কুকুরটা বিক্রি হয়নি’
March 1st, 2017 at 8:07 am
‘কুকুরটা বিক্রি হয়নি’

সাদাত হাসান: এটা আজকের (২৮ ফেব্রুয়ারি) হরতালের ছবি। গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বামপন্থিরা হরতাল ডেকেছিল। আমার ভুল হয়ে না থাকলে এই ছবিটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আর ক্যাম্পাসের দেয়ালের পাশে কোন একটা জায়গা।

পুলিশ চেষ্টা করছে একটা মেয়েকে (রাজনোইতিক পরিভাষায় পিকেটার) ধরে নিয়ে যেতে। কুকুরটা চাচ্ছে মেয়েটাকে যাতে নিয়ে যেতে না পারে। অনেকেই বিস্ময় নিয়ে এই ছবিটা শেয়ার দিচ্ছেন। আমি খুব একটা বিস্মিত নই। কেন নই, সেটা বলার জন্যই এই পোস্ট।

আমরা যারা বিভিন্নসময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাস্তা-দেয়াল-দালানকোঠা মাড়িয়েছি তাদের প্রায় সবারই আত্মার অংশ হয়ে রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়। তাদের মধ্যে অনেকেই হয় বাম রাজনীতি করতাম। ক্যাম্পাসে তেমন আহামরি কোন প্রতিপত্তি আমাদের হয়ত ছিল না। যে মেয়েটার ছবি আপনারা দেখছেন, তার নাম ইভা মজুমদার। সাংগঠনিক পরিচয় আছে কিছু একটা, আপাতত অপ্রাসঙ্গিক। ইভা ২০০৭ অথবা ২০০৮ সাল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আছে। কম্পিউটার সাইন্সে পড়েছে, বাম রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিল। আমরা দীর্ঘদীন কার্জন হলে, মধুতে একসাথে হেঁটেছি।

প্রতিদিন সকালে গিয়ে কার্জনে চায়ের দোকানে খালি পেটে প্রথম চায়ে চুমুক দেয়ার আগে যে প্রাণীটার সাথে দেখা হত, সেটা ছিল একটা কুকুর। যথারীতি নাম ছিল তার কালু। তাকে একটা বিস্কিট বা কেক খাওয়ানোর আগে আমাদের কিছু খাওয়া হত না। এরকম আরো অনেক ছোট ভাই-বোন অথবা সিনিয়ররা আছেন। আমি ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে আসার আগে আরেক বন্ধুকে বলে গিয়েছিলাম কালু আর লালি ( ওইটার বউ টাইপের আর কি) কে যেন দেখে রাখে। ফোন করে খোঁজ নিতাম।

ইভা প্রায় আট-দশ বছর ক্যাম্পাসের ভিতরে বাইরে সক্রিয় রাজনীতিতে আছে। ক্যাম্পাসের প্রতিটা ধূলা বালি কনা ওকে চেনে যেমন চিনতো আমাদের আরো অনেককেই। আমি নিশ্চিত জানি ওই কুকুরটা জন্ম নেয়ার পর থেকে জানে ইভা ওর বন্ধু। পকেটে টাকা থাকলে হয়ত একটা বিস্কুট কিনে দেয় না থাকলে গায়ে হাত বুলিয়ে দেয়। ঐ কুকুরটা জানে ইভার মত আরো অনেকগুলো ছেলে মেয়ে আছে যারা ওকে সন্তানের মত স্নেহ করে। ওই কুকুরটা জানে এই মেয়েটা ওর পক্ষের, অসহায়ের পক্ষের কেউ।

ওই কুকুরটা বিস্কুটের লোভে ইভাকে বাঁচাতে যায় নি। ঐ কুকুরটা জানে পুলিশের একটা লাঠির বাড়িতে ও মরেও যেতে পারে কিন্তু ও পালিয়ে যায়নি। আমি জানি না ইভা গ্রেপ্তার হয়েছে কি হয়নি। জানা জরুরী না। এই ছবিটা প্রমান করে এই ছেলেমেয়েগুলো এই ক্যাম্পাসের সাথে কতখানি আত্মার টানে আটকে আছে। আমি নিশ্চিত ক্যাম্পাসে এরকম আরো অনেকগুলো কুকুর আছে যারা ইভাকে চেনে।

রাষ্ট্র চাইলে হাজার হাজার পুলিশ নামিয়ে ক্যাম্পাসের এই হাতে গোনা কয়েকটা ছেলেমেয়েকে মুহুর্তে তুলে নিয়ে যেতে পারে। গুলি করে মারতে পারে অবলা কুকুরগুলোকে। কিন্তু এই ছবিটা তার চেয়ে অনেক বড় একটা সত্য দেখিয়ে দিল সবাইকে।

ইভা অথবা হাতেগোনা যে কয়টা ছেলেমেয়ে সাধারণ মানুষের পক্ষে রাস্তায় নেমে মার খেল আজকে অথবা এখনো থানাহাজতে বসে আছে, সেই বুদ্ধিমান মানুষরা বিক্রি হয়ে গিয়েছে অথবা ভয় পেয়েছে।

কুকুরটা বিক্রি হয়নি, কুকুরটা ভয় পেলেও পালিয়ে বাঁচেনি।

সাদাত হাসান-এর ফেসবুক ওয়াল থেকে নেয়া


সর্বশেষ

আরও খবর

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান


গণতন্ত্রের রক্ষাকবজ হিসাবে গণমাধ্যম ধারালো হাতিয়ার

গণতন্ত্রের রক্ষাকবজ হিসাবে গণমাধ্যম ধারালো হাতিয়ার


মহামারী, পাকস্থলির লকডাউন ও সহমতযন্ত্রের নরভোজ

মহামারী, পাকস্থলির লকডাউন ও সহমতযন্ত্রের নরভোজ


ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করুন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করুন


নাচ ধারাপাত নাচ!

নাচ ধারাপাত নাচ!


মাতৃভাষা বাংলা’র প্রথম লড়াই ১৮৩৫ সালে হলেও নেই ইতিহাসে!

মাতৃভাষা বাংলা’র প্রথম লড়াই ১৮৩৫ সালে হলেও নেই ইতিহাসে!


তারুণ্যের ইচ্ছার স্বাধীনতা কোথায়!

তারুণ্যের ইচ্ছার স্বাধীনতা কোথায়!


সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?

সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?


যুদ্ধ এবং প্রার্থনায় যে এসেছিলো সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়েই আমাদের স্বাধীনতা থাকবে

যুদ্ধ এবং প্রার্থনায় যে এসেছিলো সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়েই আমাদের স্বাধীনতা থাকবে


বঙ্গবন্ধু কেন টার্গেট ?

বঙ্গবন্ধু কেন টার্গেট ?