Monday, September 5th, 2016
কুমিল্লায় ব্যস্ত সময় যাচ্ছে পশু খামারিদের
September 5th, 2016 at 11:13 am
কুমিল্লায় ব্যস্ত সময় যাচ্ছে পশু খামারিদের

কুমিল্লা: কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে বাজারে ভালো দাম পাবার আশায় শেষ মুহূর্তে ব্যস্ত সময় পার করছে কুমিল্লার পশু খামারিরা। এবার ঈদে ভারতীয় গরু বাজার দখল না করলে ভালো লাভবান হবে দেশি খামারিরা। দেশীয় গরু ক্ষতিকারক স্টরয়েড বা মোটা তাজাককরণের ঔষধমুক্ত, এছাড়া কুমিল্লায় কৃষকের ঘরে এবং খামারে যে পরিমাণে গরু, ছাগল, মহিষ আছে তা কোরবানির চাহিদার চেয়ে বেশি বলে জানালেন প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তারা।

কোরবানি ঈদকে সামনে ব্যস্ত সময় পার করছে কুমিল্লার পশুপালনকারী খামারি এবং কৃষকরা। নিয়ম মতো নিরাপদ খাবার খাওয়ানো, গোসল এবং খামার পরিষ্কার পরিচ্ছনতার উপর নির্ভর করে পশুর সুস্বাস্থ্য। আর স্বাস্থ্যবান গরু-ছাগল, মহিষের চাহিদা বাজারে ভালো। তাই দিন রাত পরিশ্রম করে গরু, ছাগল, মহিষগুলোকে তৈরি করা হচ্ছে কোরবানির হাটের জন্য। জেলার প্রতিটি খামারেই চিত্র একই রকম।

দেশের খামারে কিংবা কৃষকের ঘরে উৎপাদিত গরু-ছাগল মানে ভালো।  এসব পশু হৃষ্টপুষ্ট করতে ব্যবহার করা হয় সাধারণ পশু খাদ্য। তবে কোরবানির আগে কিছু মৌসুমী পশু ব্যবসায়ীরা অর্থলোভে পশুর দেহে ক্ষতিকারক মোটাতাজাকরনের ঔষধ ব্যবহার করে বলে অভিযোগ নিয়মিত খামরিদের। এছাড়া ভারত থেকে অবৈধ পথে আসা গরু-ছাগলগুলোর অধিকাংশই থাকে ক্ষতিকর ঔষধ ব্যবহার করা ।

এবছর কুমিল্লা জেলায় ২ হাজার ৬শত ১৭ জন খামারি মাংস উৎপাদনের জন্য পশুপালন করেছে। তাদের মোটা অংকের বিনিয়োগ তুলে আনার মৌসুম হচ্ছে কোরবানির হাট। তাই এসময় ভারত থেকে কোরবানীর পশু আসলে লোকসানের মুখ দেখতে হবে বলে জানান খামারিরা। কুমিল্লার সুয়াগঞ্জ এলাকার খামারি মিজানুর রহমান জানান, আমাদের জেলা সীমান্তবর্তী। তাই সীমান্তে বিজিবি সর্তক থাকলে ভারত থেকে কোন পশু আসতে পারবে না। তাই তিনি বিজিবিকে এ ব্যাপারে কার্যকর ব্যাবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

চলতি বছর কুমিল্লা জেলায় কোরবানির পশুর চাহিদা প্রায় সাড়ে ৩ লাখ। এই চাহিাদা মেটাতে খামারেই মজুদ আছে ৩ লাখ ৭৫ হাজার গরু ছাগল মহিষ। এছাড়া পারিবারিক পর্যায়ে লালন পালন করা আরো ৮০ হাজার পশু থাকবে কোরবানির হাটে। ভারত থেকে আসা অতিরিক্ত পশু যেন  কোরবানির বাজোরে কোন প্রভাব না ফেলে এ ব্যাপারে সীমান্তে নজরদারির বিষয়ে  বিজিবি এবং আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সহায়তা চাওয়া হয়েছে বলে জানালেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা।

জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. আবদুল মান্নান জানান এ জেলার খামারে যে পরিমানে কোরবানির জন্য নিরাপদ পশু মজুদ আছে তা চাহিদা মিটিয়ে  অন্যান্য জেলায়ও সরবরাহ যাবে। আর ভারতীয় পশু কোরবানির হাটে আসবে না বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন এবং এর প্রভাব স্থানীয় বাজারগুলোতে ফেলবে না বলেও জানান।

প্রতিনিধি: আনোয়ার হোসাইন, সম্পাদনা: মাহতাব শফি


সর্বশেষ

আরও খবর

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর


অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা


শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন

শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন


জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ

জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ


চোরের চিরকুট!

চোরের চিরকুট!


সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে লন্ডনে ‘আমরা সিলেট বাসীর’ মানব বন্ধন

সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে লন্ডনে ‘আমরা সিলেট বাসীর’ মানব বন্ধন


গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর

গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর


এমসি কলেজে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের ছাত্রত্ব বাতিল

এমসি কলেজে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের ছাত্রত্ব বাতিল


মধ্যরাতে গৃহিণীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ৮

মধ্যরাতে গৃহিণীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ৮