Sunday, December 18th, 2016
কেন্দ্রীয় নির্দেশনায় তোয়াক্কা নেই আ’লীগ নেতাদের
December 18th, 2016 at 9:58 pm
কেন্দ্রীয় নির্দেশনায় তোয়াক্কা নেই আ’লীগ নেতাদের

আশিক মাহমুদ, ঢাকা: ব্যানার-পোস্টার ও লিফলেটে ছবি ব্যবহারের ক্ষেত্রে দলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মানছেন না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছোট ও মাঝারি নেতারা। তারা ব্যানার-পোস্টারে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছোটাকৃতির ছবি ব্যবহার করে নিজেদের বিশাল আকৃতির ছবিই ব্যবহার করছেন।

অথচ ব্যানার-পোস্টারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ছাড়া অন্য কারো ছবি ব্যবহার না করতে নির্দেশ রয়েছে দলের পক্ষ থেকে। তাৎক্ষণিকভাবে এই নির্দেশনা সারাদেশের নেতাকর্মীদের কাছে পাঠানোও হয়েছে। এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, দলের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা এখনো শতভাগ পালিত হয়নি। তবে, শিগগিরই তা বাস্তবায়িত হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, রাজধানী জুড়ে কোনো বিলবোর্ড না থাকলেও অপরিচিত কিছু মুখের বড় বড় ছবি সংবলিত ব্যানার-পোস্টার ও লিফলেট দেখা যাচ্ছে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে। এসব পোস্টারে অপরিচিত মুখের পাশাপাশি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মন্ত্রী, এমপি ও কেন্দ্রীয় নেতাদের ছবি শোভা পাচ্ছে। আর এসব ব্যানার-পোস্টারে আগের মতো ছোট করেই ব্যবহার করা হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রাধনমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি। আর বড় করে ব্যবহার করা হচ্ছে ছোট ও মাঝারি নেতাদের ছবি।

দলের কেন্দ্রীয় নির্দেশ অমান্য করে অসংখ্য পোস্টার দেখা গেছে মন্ত্রীপাড়ার বিভিন্ন সড়কে। শাহাবাগ থেকে প্রেসক্লাব, হেয়ার রোড, প্রধান বিচারপতির বাসভবনের সামনের সড়কে বেশ কিছু পোস্টার দেখা গেছে। যেখানে ছোট নেতাদের বড় ছবি শোভা পাচ্ছে। গুলিস্থানের বঙ্গবন্ধু এভিনিউ দলীয় কার্যালয়ের সামনে ও ধানমণ্ডিতে সভাপতির কার্যালয়ের সামনে গিয়েও দেখা যায় একই চিত্র। সেখানেও ছোট ছোট নেতাদের বড় বড় ছবি শোভা পাচ্ছে।

 

এছাড়া, রাজধানীর লালবাগ এলাকয় ব্যানার-পোস্টার লাগিয়েছে লালবাগ থানা আওয়ামী লীগ। সেই ব্যানারে দেখা গেছে ঢাকা-৭ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দীনের বিশাল আকৃতির ছবি। আর তার মাথার উপরে ছোট আকারে রয়েছে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবি। আর সেই ব্যানারে লেখা হয়েছে ‘১৬ ডিসেম্বর মহান স্বাধীনতা দিবস। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সকল বীর শহীদরে প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।’

১৬ ডিসেম্বর যদি মহান স্বাধীনতা দিবস হয় তাহলে মহান বিজয় দিবস কবে? এমন প্রশ্ন এখন পুরো জাতির।

এবিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ অনেক বড় দল অনেক নেতাকর্মী নিয়ন্ত্রন করা কঠিন। তবে আমরা নিয়ন্ত্রন করার চেষ্টা করছি। আমরা সকলকে বলেছি এই বিষয়টা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি না করতে। আমরা সকলকে আরো সতর্ক হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছি।’

এদিকে, রাজধানীর শাহাবাগ মোড় থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের দিকে যেতে অসংখ্য ব্যানার-পোস্টারে দেখা গেছে, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামের ছবি ব্যবহার করে তার অনুসারীরা ব্যানার-পোস্টার লাগিয়েছেন। পোস্টারের নিচের দিকে বিশাল অংশজুড়ে রয়েছে কামরুল ইসলামের ছবি। আর তার উপরে ছোট করে রয়েছে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে বলেন, ‘এই বিষয়টাকে আমরা অত্যন্ত ঘৃণা করি। এ বিষয়ে আমরা আমাদের নেতাকর্মীদের সব সময় সতর্ক করি। আমরা সব সময় তাদের বলি  তোমরা এই কাজ গুলো করবা না। এখন কিন্তু অনেকটা কমে এসেছে।’

যারা কেন্দীয় নির্দেশ অমান্য করেছে তাদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না এই বিষয়ে জানতে চাইলে দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে বলেন, ‘প্রতিবারই এমন নির্দেশনা থাকে এবারো ছিলো। আমরা জানি যারা নেতাদের ছবি ব্যবহার করে ব্যানার করছে তারা কিন্তু কোনো নেতার অনুমতি নিয়ে করেনি। আমি বিশ্বাস করি যাদের ছবি দিয়ে ব্যানার করা হয়েছে তারা কেউ এই বিষয়ে জানেন না। যখনই তারা জেনেছেন সঙ্গে সঙ্গে নামিয়ে নিতে বলেন। আমরা যখন জানি এগুলো জানার পরে নামিয়ে নিতে বলি। অনেকে নামিয়ে নিচ্ছে। তারপরও যদি কেউ অমান্য করে আমরা নোট রাখছি। পরবর্তীতে ব্যাপক আলোচনার মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

গত বছরের ডিসেম্বর মাসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ছাড়া অন্য কারও ছবি ব্যবহার না করতে তৎকালীন দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম একটি নির্দেশনা জারি করেছিলেন।

সম্পাদনা: সজিব ঘোষ


সর্বশেষ

আরও খবর

গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক মারা যাওয়ার ৬০ ঘন্টা পরে পরিবারের মামলা

গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক মারা যাওয়ার ৬০ ঘন্টা পরে পরিবারের মামলা


সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?

সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?


ছোটভাইকে শান্ত থাকতে বললেন ওবায়দুল কাদের

ছোটভাইকে শান্ত থাকতে বললেন ওবায়দুল কাদের


ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে: ইসি সচিব; অংশগ্রহণমূলক হয়নি: নির্বাচন কমিশনার

ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে: ইসি সচিব; অংশগ্রহণমূলক হয়নি: নির্বাচন কমিশনার


বঙ্গবন্ধুর মুক্তির নেপথ্যে

বঙ্গবন্ধুর মুক্তির নেপথ্যে


ছাত্রলীগকে জনসেবায় মন দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ছাত্রলীগকে জনসেবায় মন দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর


ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারিরা কেন আওয়ামী লীগ করতে পারেন না!

ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারিরা কেন আওয়ামী লীগ করতে পারেন না!


প্রেসক্লাবে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ

প্রেসক্লাবে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ


সামরিক ডাইজেষ্ট: আকাশে উড়ছে কমব্যাট ঘাস ফড়িং

সামরিক ডাইজেষ্ট: আকাশে উড়ছে কমব্যাট ঘাস ফড়িং


যুদ্ধ এবং প্রার্থনায় যে এসেছিলো সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়েই আমাদের স্বাধীনতা থাকবে

যুদ্ধ এবং প্রার্থনায় যে এসেছিলো সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়েই আমাদের স্বাধীনতা থাকবে