Wednesday, August 5th, 2020
কোভিড: আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও সংক্রমণ কমেনি
August 5th, 2020 at 7:52 pm
সরকার ফি নির্ধারণের পর থেকে সেটা কমেছে। শুধুমাত্র শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে মানুষ হাসপাতালে যাচ্ছে, পরীক্ষা করাচ্ছে।”
কোভিড: আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও সংক্রমণ কমেনি

বিশেষ প্রতিনিধি;

ঢাকা: কোরবানির ঈদের মধ্যে কমে গেছে করোনাভাইরাস পরীক্ষার হার। ঈদুল আযহার তিনদিনসহ চলতি মাসের প্রথম চারদিনে সারাদেশে মাত্র ২৪ হাজার ৪৪৭ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, দৈনিক গড়ে ছয় হাজারের কিছু বেশি।

ফলে নতুন কোভিড রোগীর সংখ্যাও কমতে শুরু করেছে। সরকারি হিসাব অনুযায়ী, এই চার দিনে ছয় হাজার ৩৫৯ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ঈদের দ্বিতীয় দিন, রোববার মাত্র ৮৮৬ জন শনাক্ত হন, যা প্রায় তিন মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন।

“যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ২৭ জুলাই বলেছে, বাংলাদেশে সংক্রমণের হার আগের চেয়ে আট শতাংশের বেশী কমেছে। তবুও সংক্রমণ কমেছে তা এখনই আমরা বলতে চাচ্ছি না,” মঙ্গলবার নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। 

“ঈদের মধ্যে মানুষের ব্যস্ততা-ছুটোছুটি বেশী ছিল। আবার ছুটির কারণে পরীক্ষাও কম হয়েছে। এখন আরো কয়েকদিন গেলে নমুনা পরীক্ষার বাড়ার পরও যদি শনাক্তের সংখ্যা এমনই থাকে, তখন বলা যাবে সংক্রমণ কমেছে,” বলেন তিনি।

যদিও স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ইতিমধ্যে দাবি করেছেন, দিনে দিনে আক্রান্ত হার কমছে। “আমাদের মতো একটি ঘনবসতিপূর্ণ দেশেও আক্রান্ত বিবেচনায় কোভিড মৃত্যুহার উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস করতে সক্ষম হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছেন,” সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন তিনি। 

“আজও ৫০ জন মারা গিয়েছেন। অতএব এখনই বলা যাবে না যে আমরা ভালো অবস্থায় আছি। তাছাড়া পরীক্ষা কম হলেও গত কয়েকদিনে শনাক্তের হার কিন্তু বেড়েছে। অর্থাৎ আক্রান্তের হার এখনও উর্ধ্বমুখী,” মঙ্গলবার নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মাহবুবুর রহমান।

পরীক্ষার বিপরীতে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের হার ২৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ। এর আগে সোমবার চার হাজার ২৪৯টি নমুনা পরীক্ষা করে এক হাজার ৩৫৬ আক্রান্তকে শনাক্তের কথা জানানো হয়; অর্থাৎ শনাক্তের হার ছিল ৩১ দশমিক ৯১ শতাংশ, যা এখন ২৪ ঘণ্টায় পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এছাড়া রোববারও শনাক্তের হার ছিল ২৪ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ।

ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, “ঈদের ছুটির মধ্যেও যারা নমুনা পরীক্ষা করিয়েছে, তাদের লক্ষণ ও উপসর্গ ছিল বা তারা কোভিড আক্রান্তের সংস্পর্শে ছিলেন। যে কারণে এই সময়টায় শনাক্তের হার কিছুটা বেশী।”

এর আগে ২৪ ঘন্টায় সর্বোচ্চ শনাক্তের হার ছিল গত ১৫ জুলাই, ২৫ দশমিক ২৩ শতাংশ। সেদিন ১৪ হাজার দুইটি নমুনা পরীক্ষা করে তিন হাজার ৫৩৩ জনকে শনাক্ত করার কথা বলা হয়েছিল।

কোভিড-১৯ সম্পর্কিত নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে মঙ্গলবার সাত হাজার ৭১২, সোমবার চার হাজার ২৪৯, রোববার তিন হাজার ৬৮৪ এবং শনিবার আট হাজার ৮০২টি নমুনা পরীক্ষার কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত দেশে মোট ১২ লাখ এক হাজার ২৫৬টি নমুনা পরীক্ষা করে দুই লাখ ৪৪ হাজার ২০ জন আক্রান্তকে শনাক্ত করা গেছে। পরীক্ষার বিপরীতে মোট শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৩১ শতাংশ।

ভুয়া রিপোর্ট দেওয়ার কারণে ঢাকাসহ সারাদেশে অসংখ্য ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালার ঘটনা উল্লেখ করে  ডা. মাহবুবুর বলেন, “এখন বোঝা যাচ্ছে, আগের অধিকাংশ পরীক্ষার ফল ভুয়া ছিল।”

এ জাতীয় ঘটনায় করোনাভাইরাস টেস্টের ওপর মানুষের আস্থা কমিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন এই বিশেষজ্ঞ। তাঁর সঙ্গে একমত পোষণ করেন  কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি কমিটির সদস্য ও স্বাধীনতা চিকিৎসা পরিষদের (স্বাচিপ) সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সনাল।

নিউজনেক্সটবিডিকে তিনি বলেন, “জনআস্থায় এসব ঘটনা হয়ত নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। তাছাড়া আগে উপসর্গ দেখা দিলেই মানুষ পরীক্ষা করাতে যেত। সরকার ফি নির্ধারণের পর থেকে সেটা কমেছে। শুধুমাত্র শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে মানুষ হাসপাতালে যাচ্ছে, পরীক্ষা করাচ্ছে।”

“তবেই এসবই ধারণা বা সন্দেহ। নমুনা পরীক্ষা কমে যাওয়ার সুনির্দিষ্ট কারণ বের করতে একটা জরিপ করা উচিত,”যোগ করেন স্বাচিপ সভাপতি। বন্যার কারণে কমপক্ষে ৩০ টি জেলায় নমুনা কমেছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। 

যার সত্যতা স্বীকার করেছেন ডা. নাসিমা। তিনি বলেন, “আমাদের দেশে কোভিড রোগীদের সুস্থতার হার অনেক ভালো। তাই প্রাথমিক ভীতিটা কেটে গেছে।” দেশে সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৩১ শতাংশ। এখন পর্যন্ত এক লাখ ৩৯ হাজার ৮৬০ জন সুস্থ হয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি)ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম মঙ্গলবার রাতে নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, “বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধানদের সাথে মন্ত্রী মহোদয়ের উপস্থিতিতে আজ দুই দফায় কয়েক ঘন্টা বৈঠক করেছি। এ সময় মূলত তিনটি বিষয় জানতে চাওয়া হয়েছে।”

“পরীক্ষার পরিমাণ কেন কমে যাচ্ছে? এটা বাড়ানোর কোনো পরিকল্পনা মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা দিতে পারছেন কিনা- এটা প্রায় সবার কাছেই জানতে চাওয়া হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন হাসপাতালের পরিচালকদের কাছে মন্ত্রী মহোদয় জানতে চেয়েছেন – প্রকৃত অর্থেই রোগীর পরিমাণ কমে গিয়েছে কিনা।”

‘সবার সাথে আলোচনা করে প্রতীয়মান হলো – আসলেই লোকে এখন আর নমুনা পরীক্ষা করাতে চাচ্ছে না,” বলেন এই কর্মকর্তা।


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় আরও ২১ জনের মৃত্যু

করোনায় আরও ২১ জনের মৃত্যু


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু


করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ  ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা


ভাইরাসের সাথে বসবাস

ভাইরাসের সাথে বসবাস


২৪ ঘণ্টায় আরও ৩২ জনের মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় আরও ৩২ জনের মৃত্যু


করোনায় মৃত্যু আরও ২২, নতুন শনাক্ত ১৫৪১

করোনায় মৃত্যু আরও ২২, নতুন শনাক্ত ১৫৪১


করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু

করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু


ভারতে এক দিনে রেকর্ড প্রায় ১ লাখ রোগী শনাক্ত

ভারতে এক দিনে রেকর্ড প্রায় ১ লাখ রোগী শনাক্ত


২৪ ঘণ্টায় ৪৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৭২৪

২৪ ঘণ্টায় ৪৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৭২৪


লন্ডন ফিরছেন আইএস বধু ব্রিটিশ-বাংলাদেশী শামীমা বেগম!

লন্ডন ফিরছেন আইএস বধু ব্রিটিশ-বাংলাদেশী শামীমা বেগম!