Monday, August 8th, 2016
ক্ষোভে জ্বলছে বিএনপি
August 8th, 2016 at 8:55 pm
ক্ষোভে জ্বলছে বিএনপি

ঢাকা: পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর থেকেই ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে বিএনপি। দলের ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে মোসাদ্দেক হোসেন ফালু এবং সহ-প্রচার সম্পাদক পদ থেকে শামীমুর রহমান শামীম সরে দাঁড়ানোর পর আরেক শীর্ষ নেতা আবদুল্লাহ আল নোমানও এখন হাটছেন একই পথে।

সোমবার বিকালে ভাইস চেয়ারম্যান পদে না থাকার ঘোষণা দিয়েছেন আবদুল্লাহ আল নোমান। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন এলাকা থেকে কর্মীরা চাপ দিতে শুরু করেছে, তারা বলছে পদত্যাগ করতে। অনেকে রাজনীতি থেকে অবসর নেয়ার কথাও বলছেন। ইমোশন থেকেই তারা এ ধরণের মন্তব্য করছেন।’

নোমান বলেন, যদিও এখনো ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়ে আমি কোন সিদ্ধান্ত নেই নি। তবে এখন যে পদে আছি সে পদে আমি আর থাকতে চাইনা। দেখা যাক কি হয়।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে এ প্রসঙ্গে কোন কথা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কমিটি ঘোষণার আগে মিটিংয়ে ম্যাডামের সাথে দেখা হয়েছিল। কমিটি ঘোষণার পর কোনো আলোচনা হয়নি। তবে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ম্যাডামের সাথে এ বিষয়ে দেখা করার কোন পরিকল্পনাও আমার নেই।’

এদিকে বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক সূত্রের ভাষ্য, নোমান এবার বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হতে আগ্রহী ছিলেন। তিনি এই পদ পেতে পারেন বলে দলে জোরালো আলোচনাও ছিল। কিন্তু তাকে ফের ভাইস চেয়ারম্যান করায় তিনি মনঃক্ষুণ্ন হয়েছেন।

নোমানের এক ঘনিষ্টজন জানান, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিএনপিতে যোগ দেয়ার পর ঠাকুরগাঁ জেলা সভাপতি নির্বাচিত হন। জেলা সভাপতি হিসেবে তিনি প্রথম যে সম্মেলনটি করেছিলেন সেখানে প্রধান অতিথি ছিলেন আবদুল্লাহ আল নোমান। আজ মির্জা আলমগীর দলের মহাসচিব আর নোমান ভাইস চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, আবদুল্লাহ আল নোমান যখন শ্রমিক দলের সভাপতি তখন নজরুল ইসলাম খান তার সাধারণ সম্পাদক। নজরুল ইসলাম খান দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ৭ বছর ধরে আর নোমানকে নাম খোঁজতে হয় স্থায়ী কমিটির নতুন তালিকায়। তিনি প্রত্যাশিত পদ না পাওয়ায় তার অনুসারী নেতা-কর্মীরাও প্রচণ্ড হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তাদের অনেকে মনে করেন, নোমানের উচিত ভাইস চেয়ারম্যান পদে না থাকা। শুভাকাঙ্ক্ষীদের অনেকে তাকে দল ছাড়ার জন্যও চাপ দিচ্ছেন।

শোনা যাচ্ছে পদত্যাগের তালিকায় রয়েছেন আরও অনেকেই। সবশেষ এই তালিকায় যুক্ত হচ্ছেন উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য দলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খন্দকার।

কমিটি ঘোষণার পর থেকেই তার মন খারাপ। ঘনিষ্ঠজনদের কাছে তিনি ক্ষোভের কথা জানিয়েছেনও। গোলাম আকবর খন্দকার মনে করেন, তাকে যে পদ দেয়া হয়েছে এতে তিনি অপমানিত ও হতাশ। কারণ সাংগঠনিক সম্পাদক থেকে উপদেষ্টা পরিষদে জায়গা দেয়া হলেও তাকে রাখা হয়েছে ৪৪ নম্বরে।

গত ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। এর পর তিন দফায় ৪২ নেতার নাম ঘোষণা করা হয়। সবশেষ গত শনিবার ৫০২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হয়। স্থায়ী কমিটি, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদ ও নির্বাহী কমিটি মিলিয়ে মোট পদের সংখ্যা ৫৯২ জন।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/পিএসএস


সর্বশেষ

আরও খবর

দাখিল পরীক্ষা শুরু ১৪ নভেম্বর

দাখিল পরীক্ষা শুরু ১৪ নভেম্বর


ই-কমার্স বন্ধ না করে প্রতারণা ঠেকাতে আইন করার মতামত ৪ মন্ত্রীর

ই-কমার্স বন্ধ না করে প্রতারণা ঠেকাতে আইন করার মতামত ৪ মন্ত্রীর


ভারতে দুই হাজার টন ইলিশ রফতানির অনুমতি

ভারতে দুই হাজার টন ইলিশ রফতানির অনুমতি


প্রতি মাসে ২ কোটি টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার

প্রতি মাসে ২ কোটি টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার


৫ অক্টোবর থেকে খুলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হল

৫ অক্টোবর থেকে খুলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হল


এপ্রিলের মধ্যে দেশে ২৪ কোটি ডোজ টিকা আসবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এপ্রিলের মধ্যে দেশে ২৪ কোটি ডোজ টিকা আসবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী


ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জসহ ১০ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থার সুপারিশ

ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জসহ ১০ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থার সুপারিশ


৫৪৩ দিন পর খুলল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

৫৪৩ দিন পর খুলল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান


করোনায় তিন মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন ৩৮ জনের মৃত্যু

করোনায় তিন মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন ৩৮ জনের মৃত্যু


খালেদা জিয়ার মুক্তির আবেদনে মতামত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়

খালেদা জিয়ার মুক্তির আবেদনে মতামত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়