Sunday, August 14th, 2016
খালেদার জন্মের পোস্টমর্টেম
August 14th, 2016 at 10:00 pm
খালেদার জন্মের পোস্টমর্টেম

ঢাকা: দীর্ঘ দুই যুগ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে নিজের জন্মদিন পালন করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তবে ম্যাট্রিক পরীক্ষার মার্কশীট, বিয়ের কাবিননামা, পাসপোর্ট, ভোটারের তথ্য বিবরনী ফরমসহ বিভিন্ন নথিপত্রে তার বেশ কয়েকটি জন্ম তারিখের হদিস পাওয়া গেছে।

বাংলা পিডিয়াসহ খালেদা জিয়ার জীবনীর ওপর রচিত কয়েকটি গ্রন্থে তার জন্ম ১৯৪৫ সালের ১৫ আগস্ট দেখানো হয়েছে। অন্যদিকে গত বছর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পাওয়া খালেদা জিয়ার পাসপোর্টের ছবি নিয়ে ইংরেজী পত্রিকা ডেইলি স্টার একটি প্রতিবেদন করে, যেখানে তার পাঁচটি জন্মতারিখ উল্লেখ করা হয়। তা হলো- ৫ই আগস্ট ১৯৪৪, ৫ই আগস্ট ১৯৪৬, ১৯শে আগস্ট ১৯৪৭, ৫ই সেপ্টেম্বর ১৯৪৬ এবং ১৫ই আগস্ট ১৯… অর্থাৎ কোন সাল উল্লেখ নেই।

১৯৯১ সালের ২০শে মার্চ ‘দৈনিক বাংলা’ পত্রিকায় সরকারী সংবাদ সংস্থা বাসস থেকে পাঠানো তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার জীবনী ছাপা হয়। যেখানে তার জন্মদিন ১৯৪৫ সালের ১৯শে আগষ্ট উল্লেখ করা হয়। আর ম্যাট্রিক পরীক্ষার মার্কশীট অনুসারে খালেদা জিয়ার জন্মদিন ১৯৪৬ সালের ৫ই সেপ্টেম্বর।  বিয়ের কাবিননামা অনুসারে তার জন্মদিন ১৯৪৪ সালের ৯ই আগষ্ট বলা হয়।

অন্যদিকে ২০১০ সালের ১৫ই আগস্ট দৈনিক যুগান্তরের এক রিপোর্টে জানানো হয়, সাবেক হুইপ জামালের পরামর্শেই শোক দিবসে জন্মদিন পালন শুরু করেন খালেদা জিয়া।

সম্প্রতি  এক অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন নিয়ে বিএনপি থেকে বেরিয়ে আসা নেতা নাজমুল হুদা বলেন, ‘আমি লক্ষ করেছি, যখন চারদলীয় জোট করে জামায়াতকে সঙ্গে নেওয়া হয়, তখন বিএনপির রাজনীতিতে হঠাৎ করে ১৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন করা শুরু হয়।’

তিনি বলেন, ‘জামায়াতকে সাথে নিয়ে জোট গঠন করে ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগ বিরোধী দলে থেকে আগস্ট মাসে বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়ে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলছিল। সেটাকে স্তব্ধ করার জন্যই ১৫ অগাস্ট জন্মদিন পালন নামক নাটকের অবতারণা করেছিলেন খালেদা জিয়া।’

গত বছর এক অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছিলেন, ‘আপনি দয়া করে ১৫ আগস্ট আপনার জন্মদিন পালন না করে ১৬ বা ১৭ তারিখ করেন। আপনি তো ইচ্ছা করে ১৫ তারিখ জন্মদিন পালন করেন। ১৫ তারিখ তো আপনার জন্মদিন না।’

ওই বছরই জন্মদিনের প্রথম প্রহরে কেক না কাটার বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। এপ্রিলে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছিলেন, ‘জাতীয় নেতাদের বিতর্কের ঊর্ধ্বে রাখতে হবে। তাদের নিয়ে বিতর্ক বন্ধ করতে হবে।’ পরবর্তীতে চলতি বছরে অনুষ্ঠিত দলের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলেও তিনি জাতীয় নেতাদের সম্মান করতে সব দলকে আহ্বান জানান।

এবার জাতীয় শোক দিবসে জন্মদিনের কেক কাটা থেকে বিরত থাকছেন বিএনপি নেত্রী। যদিও দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁ ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলা, সারাদেশে বন্যাদুর্গতদের দু:খ-দুর্দশা এবং দলের কারাবন্দী, গুম-খুনের শিকার নেতাকর্মীদের কথা ভেবেই এবার জন্মদিন পালন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন খালেদা জিয়া।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/পিএসএস/এমআই

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: খালেদার জন্ম বিতর্কের কতিপয় নথি


সর্বশেষ

আরও খবর

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের


জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ

জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ


গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর

গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর


বিএনপি মহাসচিবের বাসায় ঢিল: ১২ নেতা সাময়িক বহিষ্কার

বিএনপি মহাসচিবের বাসায় ঢিল: ১২ নেতা সাময়িক বহিষ্কার


‘সুপারম্যান‘ ট্রাম্প করোনাভাইরাসের ‘সুপারপাওয়ার‘ বুঝতে ভুল করেছেন

‘সুপারম্যান‘ ট্রাম্প করোনাভাইরাসের ‘সুপারপাওয়ার‘ বুঝতে ভুল করেছেন


চীন-ভারত বৈরিতা নতুন করে জঙ্গিবাদ  উত্থানের সম্ভাবনা তৈরী করেছে

চীন-ভারত বৈরিতা নতুন করে জঙ্গিবাদ উত্থানের সম্ভাবনা তৈরী করেছে


লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটস এর স্পীকার হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ব্রিটিশ বাঙ্গালী আহবাব হোসেন

লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটস এর স্পীকার হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ব্রিটিশ বাঙ্গালী আহবাব হোসেন


শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন: ‘পুতুল’ খেলার আঙিনায় বেজে উঠুক ‘জয়’র বাঁশি

শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন: ‘পুতুল’ খেলার আঙিনায় বেজে উঠুক ‘জয়’র বাঁশি


ভেঙে গেলো গণফোরাম

ভেঙে গেলো গণফোরাম


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু