Saturday, December 24th, 2016
খাল নেই তবুও ৯৯ মিটার ব্রিজ
December 24th, 2016 at 9:42 pm
খাল নেই তবুও ৯৯ মিটার ব্রিজ

শরীয়তপুর: শরীয়তপুরে সরকারি বিধি বিধানকে পাশ কাটিয়ে এবং ফসলি জমি ধ্বংস করে একটি সরু খালের উপর নির্মাণ করা হয়েছে ৯৮ দশমিক ১০ মিটার গার্ডার ব্রিজ। ফলে সকারের কোটি কোটি টাকার অপচয় হয়েছে।

স্থানীয়দের দাবি ওই স্থানে ২৫/৩০ মিটারের একটি ব্রিজ নির্মাণ করা হলেই দুই এলাকার লোকজন যাতায়াত করতে পারতো এবং কয়েক একর ফসলি জমি ধ্বংসের হাত হতে বেঁচে যেত।

শরীয়তপুর এলজিইডি এবং স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া-বিনোদপুর সড়কের রংয়ের বাজার এলাকায় ২০১৩-১৪ অর্থ বছরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) চার কোটি ৭৮ লাখ ৯৮ হাজার ৯২৯ টাকা ব্যয়ে ৯৮ দশমিক ১০ মিটার একটি গার্ডার ব্রিজ নির্মাণ করা হয়।

একটা সময়ে আংগারিয়া-বিনোদপুর সড়কের রংয়ের বাজার এলাকার উপর দিয়ে কীর্তিনাশা নদীর শাখা নদী প্রবাহিত ছিল। কালের বিবর্তনে সেই নদীটি এখন একটি সরু খালে পরিনত হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে ওই সরু খালটি দিয়ে পানি প্রবাহিত হলেও শুস্ক মৌসুমে লোকজন পায়ে হেটেই চলাচল করতেন। জনগণের সুবিধার্থে খালের দুদিকে রাস্তা নির্মাণ করে মাঝখানে মাত্র ৩০ মিটার ব্রিজ নির্মাণ করলেই দুই এলাকার লোকজন যাতায়াত করতে পারতো। সেখানে ৯৮ দশমিক ১০ মিটার একটি গার্ডার ব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে ক্ষতির মুখ পড়েছে কয়েক একর ফসলি জমি। ব্রিজের নিচে বর্ষা মৌসুমে স্বাভাবিক পানি না হওয়ায় শুকনো মৌসুমে কোনো পানি থাকে না। বিধায় ব্রিজের আসে পাশের এলাকায় স্থানীয় শিশুরা ব্রিজের নিচে ক্রিকেট এবং ফুটবল খেলে। তাছাড়া এলাকার লোকজন ব্রিজের পাশে নতুন নতুন ঘর বাড়ি নির্মাণ করছে।

বিনোদপুর এলাকার আজাদ সরদার বলেন, এখানে এতোবড় ব্রিজ নির্মাণ করার কোনো প্রয়োজন ছিল না। ব্রিজ নির্মাণের শুরুতে স্থানীয় লোকজন এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলীর নিকট এতোবড় ব্রিজ নির্মাণ না করার জন্য দাবি জানালেও এলজিইডি এবং স্থানীয় প্রভাবশালীরা তাদের অভিযোগে কোনো কর্ণপাত করেনি। এতোবড় ব্রিজ নির্মাণ করে সরকারের কোটি কোটি টাকার অপচয় হয়েছে।

দক্ষিণ গোয়ালদী গ্রামের সামচেল হক ফকির বলেন, ফসলি জমিতে এতোবড় ব্রিজ নির্মাণ করে আমাদের কৃষকের ফসলি জমি নষ্ট করেছে। পাশাপাশি সরকারের কোটি কোটি টাকার অপচয় হয়েছে।

রংয়ের বাজার এলাকার বাসিন্দা সোলায়মান বলেন, ব্রিজ নির্মাণ করার পূর্বেই আমরা এলাকাবাসী দরখাস্ত দিয়েছিলাম ছোট আকারে ব্রিজ নির্মাণ করার জন্য। আমাদের কথায় এলজিইডি কোনো কর্ণপাত করেনি।

রংয়ের বাজার এলাকার আরেক বাসিন্দা আবু সায়েদ মুন্সি বলেন, ব্রিজটি ৩০ মিটার দিলেই হতো। এতবড় ব্রিজের দরকার ছিল না। ছোট ব্রিজ নির্মাণের জন্য এলাকাবাসী দরখাস্ত দিয়েছিল। প্রভাবশালীদের কারণে আমাদের কোনো কথা তারা শুনেনি।

এ বিষয়ে শরীয়তপুরের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সাজ্জাদ আহম্মেদ প্রথমে কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি। পরে তিনি অনিচ্ছা সত্ত্বেও বলেন, এ ব্রিজটি আমার আমলে হয়নি। আমি এ ব্রিজটি সম্পর্কে কিছুই বলতে পারবো না।

এম.এ ওয়াদুদ মিয়া (শরীয়তপুর), সম্পাদনা: জাহিদ

 


সর্বশেষ

আরও খবর

একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ

একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ


শাহবাগে মশাল মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, আটক ৩

শাহবাগে মশাল মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, আটক ৩


করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩২৭

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩২৭


নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু


ভাষার বৈচিত্র্য ধরে রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ভাষার বৈচিত্র্য ধরে রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর


করোনায় আরও জনের ১৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৯১

করোনায় আরও জনের ১৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৯১


৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে কেকেআরে সাকিব

৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে কেকেআরে সাকিব


খাদ্যে ভেজাল রোধে কঠোর আইন প্রয়োগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

খাদ্যে ভেজাল রোধে কঠোর আইন প্রয়োগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর


করোনায় আরও ১৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৯৬

করোনায় আরও ১৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৯৬


অভিজিৎ রায় হত্যায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ১ জন

অভিজিৎ রায় হত্যায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ১ জন