Saturday, December 31st, 2016
খুলে দেয়া হলো কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ ও ছাত্রাবাস
December 31st, 2016 at 1:30 pm
খুলে দেয়া হলো কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ ও ছাত্রাবাস

কুমিল্লা: তিন দিন বন্ধ থাকার পর একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ ও এর ছাত্রাবাস শনিবার খুলে দেওয়া হয়েছে।

সকাল থেকেই ছাত্র-ছাত্রীরা কলেজে এবং ছাত্রাবাসে আসতে শুরু করেছে। ছাত্রছাত্রীদের উপস্থিতি কম হলেও শিক্ষকরা ক্লাশ নেয়া শুরু করেছেন। নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যরা ছাত্রছাত্রীদের তল্লাশী করে ছাত্রাবাসে প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে।

২৭ ডিসেম্বর রাত থেকে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ জড়িয়ে পড়ে। এ সংঘর্ষ ২৮ ডিসেম্বর সকাল পর্যন্ত চলতে থাকে। সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৪ জন ছাত্র আহত হন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিন সকালে কলেজের একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় উদ্ভুত পরিস্থিতি সামাল দিতে কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে এবং ৪টি ছাত্রাবাসে বসবাসকারি ছাত্রছাত্রীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়। ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। পরবর্তীতে ২৯ ডিসেম্বর রাতে একাডেমিক কাউন্সিলের এক সভায় ৩১ ডিসেম্বর থেকে কলেজের ক্লাশ চালু এবং ছাত্রাবাস খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ওই সভায় কলেজের দুটি সামাজিক সংগঠনের আড়ালে রাজনীতিতে শিক্ষার্থীরা জড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষিতে এগুলোর কার্যক্রম বন্ধ ঘোষনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া ছাত্রাবাস মনিটরিং কমিটিতে ছাত্রদের রাখার কারণে সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় কমিটি তাদের সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্তও নেয়া হয়। তদন্ত কমিটি সাত দিনের মধ্যে তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দিবে। সে অনুযায়ি দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয়।

কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মহসিনুজ্জামন চৌধুরী বলেন, ২৮ ডিসেম্বর আকস্মিক উদ্ভুত পরিস্থিতির কারণে কলেজ ও ছাত্রাবাস বন্ধ করে দেয়। ২৯ ডিসেম্বর রাতে ৩১ ডিসেম্বর কলেজ ও ছাত্রাবাস খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় একাডেমিক কাউন্সিল। সে অনুযায়ী আজ কলেজ ও ছাত্রবাস খুলে দেয়া হয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের উপস্থিতি সন্তোষ জনক না হলেও শিক্ষরা ক্লাশ নিচ্ছেন। পুলিশ চেক করে ছাত্রছাত্রীদের ছাত্রবাসে ঢুকতে দিচ্ছেন।

প্রতিবেদন: আনোয়ার হোসেন, সম্পাদনা: মাহতাব

 


সর্বশেষ

আরও খবর

একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ

একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ


নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু


ডুবে যাওয়ার ২৫ ঘণ্টা পর মিলল লাশ

ডুবে যাওয়ার ২৫ ঘণ্টা পর মিলল লাশ


সোনারগাঁয়ে দুই বাসের রেষারেষিতে প্রাণ গেল ৩ পথচারীর

সোনারগাঁয়ে দুই বাসের রেষারেষিতে প্রাণ গেল ৩ পথচারীর


করোনা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশের সুনাম বেড়েছে, দাবি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

করোনা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশের সুনাম বেড়েছে, দাবি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর


ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে: ইসি সচিব; অংশগ্রহণমূলক হয়নি: নির্বাচন কমিশনার

ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে: ইসি সচিব; অংশগ্রহণমূলক হয়নি: নির্বাচন কমিশনার


বৌভাতের খাবারে মাংস কম দেয়ায় সংঘর্ষ, নিহত ১

বৌভাতের খাবারে মাংস কম দেয়ায় সংঘর্ষ, নিহত ১


লাকিংমে বরং সৎকারহীনই থাক!

লাকিংমে বরং সৎকারহীনই থাক!


রাজশাহীতে মদপানে ৩ জনের মৃত্যু, ২ জন সঙ্কটাপন্ন

রাজশাহীতে মদপানে ৩ জনের মৃত্যু, ২ জন সঙ্কটাপন্ন


বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা: চালক গ্রেপ্তার

বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা: চালক গ্রেপ্তার