Sunday, July 3rd, 2016
গুলশান হামলা: গার্মেন্ট শিল্পের ভবিষ্যত শঙ্কায়
July 3rd, 2016 at 4:07 pm
গুলশান হামলা: গার্মেন্ট শিল্পের ভবিষ্যত শঙ্কায়

সাইফুল ইসলাম, ঢাকা: গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলায় ২০ জনকে হত্যার পর এ ধরনের আরো সহিংসতার ঘটনা ঘটার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ফলে দেশের অর্থনীতির অন্যতম ভীত গার্মেন্ট শিল্পের ভবিষ্যত নিয়েও তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

কারণ এই হামলার কারণে বিদেশিরা এ দেশ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে পারে। নিরাপত্তার স্বার্থে তারা যদি বাংলাদেশকে এড়িয়ে চলে তবে তা হবে গার্মেন্ট শিল্পের জন্য বড় ধরনের হুমকি। কারণ বিদেশিরা ও পশ্চিমা বিভিন্ন দেশের নামিদামি ব্রান্ডগুলোই হচ্ছে বাংলাদেশের গার্মেন্ট শিল্পের ভোক্তা ও গ্রাহক।

বার্তা সংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে ‘বাংলাদেশ গার্মেন্ট ইন্ডাস্ট্রি ফেয়ারস ফর ফিউচার আফটার অ্যাটাক’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ভারতের এনডিটিভি। এতে বিষয়টি তুলে ধরা হয়।

তৈরি পোশাক শিল্পের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র জ্যৈষ্ঠ ভাইস-প্রেসিডেন্ট ফারুক হাসান বলেন, এই হামলা (গুলশান হামলা) বিদেশিদের দূরে সরিয়ে নেবে। এর প্রভাব খুবই ক্ষতিকরভাবে পড়বে গার্মেন্ট শিল্পের উপর। হাসানের প্রতিষ্ঠান ব্রিটেনের মার্কস অ্যান্ড স্পেন্সারসহ বিভিন্ন নামি ব্রান্ডের জন্য পোশাক তৈরি করে থাকে।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, গুলশান হামলার আগেও বিভিন্ন ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের উপর, উদারপন্থি লেখক ও বিদেশিদের উপর হামলার ঘটনায় চীনের পর বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তৈরি পোশাক রফতারি কারক দেশ হিসেবে বাংলাদেশ এই খাত নিয়ে ভয়ে ছিল।

এছাড়া ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার পর থেকেই রাজনৈতিক অস্থিরতা নিয়ে ঝামেলায় রয়েছে বাংলাদেশ। গত মাসে প্রবল চাপের মুখে বাংলাদেশ ১১ হাজার মানুষকে বিভিন্ন সন্ত্রাসের অভিযোগে গ্রেফতার করে।

attack 1

এরই মাঝে ঘটলো গুলশান হামলার মতো ভয়াবহ ঘটনা। নিউ ইয়র্ক ভিত্তিক বাণিজ্যিক ও মানবাধিকার বিষয়ক প্রতিষ্ঠান এনওয়াইইউ স্টার্ন সেন্টার ফর বিজনেস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের কোঅর্ডিনেটর সারাহ ল্যাবোউইটজ বলেন, ঢাকার জিম্মি সংকট (গুলশান হামলা) হচ্ছে একটি ভয়ঙ্কর ট্রাজেডি, যা দেখিয়ে দিয়েছে নিরাপত্তাজনিত ভয়াবহ সমস্যায় জর্জরিত রয়েছে বাংলাদেশ।

এটি অর্থনীতির জন্য বড় ধরনের হুমকি। এ ধরনের হামলা ছুটির শপিংয়ের মৌসূমে ফ্যাশন আইটেম ক্রেতাদের কয়েকমাস পর্যন্ত দূরে সরিয়ে রাখতে পারে বলে উল্লেখ করেছেন ল্যাবোউইটজ।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ১৬ কোটি জনসংখ্যার বাংলাদেশে অনেক মানুষ দারিদ্রসীমার নিচে বাস করলেও কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি বাড়ছে। ছয় শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে দেশটি। এর বেশিরভাগ অবদান তৈরি পোশাক শিল্পের।

বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের অন্যতম ক্রেতা ‘এইচ অ্যান্ড এম’র একজন মুখপাত্র আলরিকা বগ লিন্ড গুলশান হামলা সম্পর্কে বলেছেন, জিম্মি সংকটের বিয়োগাত্মক সমাপ্তিতে ব্রান্ডটি মর্মাহত হয়ে পড়েছে। তিনি বলেন আমরা ঘনিষ্ঠভাবে ঢাকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি।

অনেকে মনে করছেন বাংলাদেশও পাকিস্তানের মতো অস্থিতিশীল পরিস্থিতে পড়তে পারে। আইএমএফ’র পাকিস্তান অফিসের সাবেক এক প্রতিনিধি ও ঢাকার দি পলিসি রিচার্স ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক আহসান মানসুর বলেন, ‘আমি দেখছি একটি প্রতিশ্রুতিশীল অর্থনীতি সন্ত্রাসের জ্বলন্ত উনুনে পড়ে গেছে।’

বাংলাদেশের রফতানি আয়ের প্রধানতম উৎস তৈরি পোশাক খাত এর আগেও অনেক ঝামেলায় পড়েছে। এর মধ্যে ২০১৩ সালের রানা প্লাজা ধসের পর সবচেয়ে বড় ঝামেলায় পড়লেও সেটি সামাল দেয়া সম্ভব হয়েছে।

এবার গুলশান হামলার পরও তৈরি পোশাকের ক্রেতারা পরিস্থিতি ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। তবে শিল্প বিশেষজ্ঞরা বলছেন বাংলাদেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি অন্য সস্তা শ্রমের উন্নয়নশীল দেশগুলোর দিকে নিয়ে যেতে পারে তৈরি পোশাকের ক্রেতাদের। এ ধরনের দেশগুলো গ্রাহক ধরার জন্য সুযোগ নিয়ে বসে থাকবে।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এসআই


সর্বশেষ

আরও খবর

বঙ্গবন্ধুকে দাফনের আগেই দুই রাষ্ট্রপতি,স্পীকারসহ ২১ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী হয়ে যান খুনী মোশতাকের!

বঙ্গবন্ধুকে দাফনের আগেই দুই রাষ্ট্রপতি,স্পীকারসহ ২১ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী হয়ে যান খুনী মোশতাকের!


দ. আফ্রিকা: গুলিতে নিহত বাংলাদেশি দোকানি, সর্বহারা দেড় শতাধিক

দ. আফ্রিকা: গুলিতে নিহত বাংলাদেশি দোকানি, সর্বহারা দেড় শতাধিক


শিয়াল ও জোনাকি যুগ

শিয়াল ও জোনাকি যুগ


আইসক্রিম সেলার

আইসক্রিম সেলার


গার্ডিয়ান এঞ্জেল সরিয়ে জেমস বন্ডের কুরুস্থাপন

গার্ডিয়ান এঞ্জেল সরিয়ে জেমস বন্ডের কুরুস্থাপন


দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস


আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার


ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক

ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক


দক্ষ লেখক, রাজনীতিক; ক্ষমতার দাবা খেলোয়াড়ের মৃত্যু

দক্ষ লেখক, রাজনীতিক; ক্ষমতার দাবা খেলোয়াড়ের মৃত্যু


সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?

সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?