Wednesday, July 13th, 2016
চট্টগ্রাম কারাগারে দুই ছিনতাইকারীর ফাঁসি কার্যকর
July 13th, 2016 at 2:11 pm
চট্টগ্রাম কারাগারে দুই ছিনতাইকারীর ফাঁসি কার্যকর

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম কারাগারে মঙ্গলবার রাত বারোটা এক মিনিটে সাইফুল ইসলাম শহীদ ও শহীদুল ইসলাম নামের দুই ছিনতাইকারীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। তারা দুজনই একটি ছিনতাই ও হত্যা মামলায় ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত   আসামি ছিলেন।

২০০৪ সালের ১৯মে রাতে সাইফুল ও শহীদুলসহ  মোট তিন আসামি  মীরেরশ্বরাই থেকে ফটিকছড়ি যাওয়ার জন্য একটি অটোরিকসা ভাড়া নিয়ে এর চালক আজিজকে খুন করে অটোরিক্সাটি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে এই ঘটনায় দায়ের হওয়া হত্যা মমলায় ২০০৫সালে চট্টগ্রামের জেলা ও দায়রা জজ তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড দেয়।

সাজাপ্রাপ্তরা হাইকোর্টে আপিল করলে একজনের মৃত্যুদণ্ড কমিয়ে দুইজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন হাইকোর্ট।  সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগও এই দুই জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন।

সর্বশেষ দণ্ডিতরা রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চান। সেটাও নাকচ হওয়ার কাগজ পত্র কারাগারে এসে পৌছানোর পর প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে এই দুইজনের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দুইজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয় বলে জানান চট্টগ্রাম কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার ইকবাল কবির।

তিনি আরো জানান, মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর পরিবারের সদস্যদের কাছে তাদের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ফাঁসি কার্যকর হওয়া সাইফুল ওরফে শহীদ মিরসরাই উপজেলার উত্তর হাজীসরাই গ্রামের লেদু মিয়ার বাড়ির কামাল উদ্দিনের ছেলে। শহীদুল্লাহ ওরফে শহীদ একই উপজেলার মধ্যম সোনাপাড়া গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে।

চট্টগ্রাম কারগার সূত্রে জানাগেছে,  মঙ্গলবার রাত নয়টার পর থেকে মুত্যুদণ্ড কার্যকরের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।  দণ্ডপ্রাপ্ত দুইজনকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা, কালেমা পরিয়ে তওবা করানো হয়। তারপর জল্লাদ আবদুল হান্নানের নেতৃত্বে জল্লাদ নাছির, সিরাজ, ইদ্রিছ ও কায়সার যমটুপি পরিয়ে দুই আসামিকে  ফাঁসির মঞ্চে নিয়ে  গলায়  দড়ি পরিয়ে দেয়।

চট্টগ্রামের  জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিনের সংকেত পেয়ে জেল সুপার ইকবাল কবির  তার হাতে থাকা রুমাল মাটিতে ফেলে দেন। সঙ্গে সঙ্গে  জল্লাদরা লিভার টেনে ফাঁসি কার্যকর করেন। জেল সুপার ইকবাল বাহার জানান, সাইফুলের লাশ তার বাবার কাছে এবং শহীদুল ইসলামের লাশ তার ভাইয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এসএন/এসআই


সর্বশেষ

আরও খবর

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর


অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা


শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন

শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন


জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ

জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ


চোরের চিরকুট!

চোরের চিরকুট!


সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে লন্ডনে ‘আমরা সিলেট বাসীর’ মানব বন্ধন

সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে লন্ডনে ‘আমরা সিলেট বাসীর’ মানব বন্ধন


গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর

গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর


এমসি কলেজে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের ছাত্রত্ব বাতিল

এমসি কলেজে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের ছাত্রত্ব বাতিল


মধ্যরাতে গৃহিণীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ৮

মধ্যরাতে গৃহিণীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ৮