Sunday, July 3rd, 2022
প্রতিটি বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করবো: প্রধানমন্ত্রী
November 19th, 2016 at 11:43 am
প্রতিটি বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করবো: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: প্রতিটি বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করবেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

ঘরের পাশে উচ্চশিক্ষার ব্যবস্থা করছেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করেছি। চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করছি। প্রতিটি বিভাগে করবো। আগে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। আমরা অনেক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, টেক্সটাইল, মেরিন বিশ্ববিদ্যালয় করেছি। বেসরকারি উদ্যোক্তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন চাইল বলছি, অমুক জায়গায় করলে অনুমোদন পাবেন। তারা করছেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়। আমি খুব খুশি হতাম যদি অনুষ্ঠানে আসতে পারতাম। আফসোস লাগছে কেন আসলাম না। আশাকরি, ভবিষ্যতে আসবো।

১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু সমুদ্রসীমা আইনে করেছিলেন জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৯৬ সালে আমরা সমুদ্রসীমা নির্ধারণের উদ্যোগ নিই। ২০০৮ সালে সমুদ্রসীমা সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক মামলায় জয়ী হই। এখন আমাদের সমুদ্রসম্পদ কাজে লাগাতে হবে। তাই কক্সবাজারে সমুদ্রগবেষণা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছি।

উচ্চশিক্ষিত জাতিই ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে পারে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমরা বেকারত্বের অভিশাপ মুক্ত করে জাতিকে আত্মনির্ভরশীল ও স্বাবলম্বী করতে চাই। কর্মসংস্থান ব্যাংক করেছি। জামানত ছাড়া ২ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হচ্ছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, এখন রেজাল্ট অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে। ভর্তির আবেদন অনলাইনে নেয়া হচ্ছে। ২০০ রকম সেবা দিচ্ছি অনলাইনে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন মুখের কথা নয়। আধুনিক প্রযুক্তিজ্ঞান সম্পন্ন দক্ষ জনগোষ্ঠী তৈরি করছি।

তিনি বলেন, দেশে মানুষের আয় এবং ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০৪১ সালের মধ্যে দারিদ্র্য থাকবে না। বর্তমানে দারিদ্র্যের হার ১২ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে।
চবি ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। সুবর্ণ জয়ন্তী বক্তব্য দেন প্রফেসর ইমেরেটাস ড. আনিসুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। ধন্যবাদ বক্তব্য দেন চবির উপউপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার।

সম্পাদনা: জাবেদ চৌধুরী

 


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার