Tuesday, October 23rd, 2018
চীনের চাঁদ আর শ্রীখণ্ডের ঈশ্বর
October 23rd, 2018 at 5:43 pm
চীনের চাঁদ আর শ্রীখণ্ডের ঈশ্বর

মাসকাওয়াথ আহসান: চীনের বিজ্ঞানীরা মহাকাশে নিজেদের তৈরি চাঁদ পাঠাচ্ছে। সুতরাং নড়েচড়ে বসে শ্রীখণ্ড। আমরা কী বানাই! চীনের নাহয় বিজ্ঞানী আছে; আমাদের তো নাই; আমরা কী বানাই! চীনের চেয়ে শ্রীখণ্ড কোন দিক দিয়ে পিছিয়ে আছে! এর উত্তর কোন দিক থেকেই পিছিয়ে নেই। চীনের আছে পর্যাপ্ত বিজ্ঞানী; আর শ্রীখণ্ডের আছে পর্যাপ্ত বুদ্ধিজীবী। তাহলে চীন মহাশূন্যে চাঁদ পাঠালে শ্রীখণ্ড মহাশূণ্যে কী পাঠাবে!

বুদ্ধিজীবীরা ভীষণ দুঃশ্চিন্তায় হাসফাঁস করে; মহাশূন্যে কী পাঠাবে তারা! একজন বুদ্ধিজীবী চশমার মাঝ দিয়ে অভিজ্ঞ চোখ দুটি গোলগোল করে ফ্যাঁসফেঁসে গলায় বলেন, শ্রীখণ্ড এমন কিছু বানাবে; যা কেবল মহাশূণ্যে নয়; জলে-স্থলে-অন্তরীক্ষে বিরাজ করবে।

এই ইঙ্গিতটুকু পেয়ে আরেক বুদ্ধিজীবী পদ্য সাধেন,

তিনি আছেন সর্বব্যাপী; কখনো আদরে কখনো ক্ষেপি

তাঁহার চরণ ছুলে পরে; সৌভাগ্য আঁকড়ে ধরে

তিনিই পারেন ওরে পাগল; বদলে দিতে মনের ভূগোল

হারাসনে ভাই অবহেলায় রে।

অভিজ্ঞ বুদ্ধিজীবী মাথা নাড়েন। কিন্তু তার অস্তিত্ব স্পর্শ করে দেখার মতো কিছু চাই। সাধারণ মানুষ আবার বাস্তব উদাহরণ ছাড়া “সত্যকে সত্য বলে মানে না”।

আরেকজন বুদ্ধিজীবী দুটো তালিকা উপস্থাপন করে। একটি তালিকার লোকের জন্য স্বর্গ নির্ধারিত হয়; আরেকটি তালিকার লোকের জন্য দোজখ নির্ধারিত হয়। এরপর দেখা যায়, স্বর্গের তালিকার লোকেরা স্বর্গসুখে বসবাস করতে থাকে; আর দোজখের তালিকার লোকেরা দোজখ-দুঃখে বসবাস করতে শুরু করে।

অভিজ্ঞ বুদ্ধিজীবী পুলকিত হয়ে বলেন,

Freydoon Rassouli Artwork: ম্যান ক্রিয়েটেড গড

কোথায় স্বর্গ কোথায় নরক কে বলে তা বহুদূর

তালিকার মাঝে স্বর্গ- নরক; তালিকাতে সুরাসুর।

স্বর্গ-তালিকার সাংবাদিক-শিক্ষক- কবি-লেখক-চিত্রকর-চলচ্চিত্রকার, ছাড়াকারেরা তাদের স্বর্গের বন্দনা করে সৃজনশীল কাজে মাতোয়ারা হয়। আচম্বিতে স্বর্গ তালিকায় উঠে এলে যা হয়; কিছু নয়াস্বর্গবাসী অত্যন্ত দাম্ভিক হয়ে যায়। তারা নিজেদেরকে স্বর্গের ঠিকাদার দাবী করে; নতুন নতুন স্বর্গ তালিকা করতে থাকে। শ্রীখণ্ড থই থই করতে থাকে স্বর্গের সার্টিফিকেটদাতা ফড়িয়ায়। শ্রীখণ্ডের সাধারণ মানুষ নরক তালিকায় নাম এসে যাওয়ার ভয়ে কাঁপতে থাকে।

একজন স্বর্গের ঠিকাদার এসে পৃথুল শরীর নড়িয়ে বলে, সূর্য আগে পূর্বে উদিত হতো; কিন্তু এখন উদিত হয় পশ্চিমে; এতে যদি ভরসা রাখতে পারো; তবে যোগাযোগ করো; নইলে নরক তালিকায় পড়ে গিয়ে পচে মরো।

নরকে পচে মরার ভয়ে ছোট-খাট মানুষ স্বর্গের ঠিকাদারদের নজর এড়িয়ে চলতে শুরু করে। কারো চোখে পড়ে গেলেই জিজ্ঞেস করে, বলো সূর্য পশ্চিম দিকে উদিত হয়।

এই উত্তর দিতে সামান্য সংশয় প্রকাশ করলেই; নাম ঢুকে যায় নরক তালিকায়। স্বর্গ-তালিকার সৈনিকেরা তখন নরক-যন্ত্রণা নিশ্চিত করে। স্বর্গের ঠিকাদারেরা ভুঁড়ি নড়িয়ে হাসে,

এখন কেমন লাগে ওরে দোজখি

সূর্য পশ্চিমে ওঠে মানলে হতো ক্ষতি কী!

স্বর্গ-তালিকার লোকেরা শিক্ষা-সংস্কৃতি-মূল্যবোধ-ন্যায়বিচার এসব স্বতঃসিদ্ধ বিষয়কে শ্রীখণ্ড- “সত্য” আইন দিয়ে সেদ্ধ করে নতুন জীবন বিধান স্থাপন করে। এর নাম দেয়া হয়, উনি যা বলেন; সেটাই আইন।

শ্রীখণ্ডের সাধারণ মানুষ নতুন জীবন বিধানে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। কারণ বেশ কিছু ছোট খাট মানুষের রহস্যজনক মৃত্যু ঘটে। স্বর্গের সৈনিকেরাই এসব হতভাগ্যের জান কবজ করেছে; সুতরাং মৃত্যুর মালিক তালিকার-স্বর্গ এটা চাক্ষুষ প্রমাণ হয়ে যায়।

কিছু সংশয়ী মানুষ জিজ্ঞেস করে, কিন্তু জন্মের মালিক তালিকার স্বর্গ এটা বুঝি কেমন করে!

কিছু মানুষ উত্তর খুঁজে পায়। তালিকার স্বর্গের লোকেদের শিশুরা জন্ম নেয় শ্রীখণ্ডের স্বর্গীয় হাসপাতালে। আর তালিকার নরকের লোকেদের শিশুরা নারকীয় হাসপাতালের ডাক্তারের অস্ত্রের আঘাতে বিখণ্ডিত হয়।

সুতরাং শ্রীখণ্ডে এ বিশ্বাস প্রতিষ্ঠিত হয়; জন্ম-মৃত্যুর মালিক তালিকার স্বর্গ; ঈশ্বর সেখানে বসবাস করেন।

অতএব চীনের চাঁদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে শ্রীখণ্ডের ঈশ্বর সাঁতার কাটেন জলে, হাঁটেন স্থলে; আর উড়তে থাকেন গৌরবের অন্তরীক্ষে।

শ্রীখণ্ডের ঈশ্বরের আকাশে উড়াল উদযাপনে তালিকার স্বর্গের আকুল জনতা অশ্রুসিক্ত চোখে, গগণবিদারী আর্তনাদে ও পরমানন্দে গাইতে থাকে,

“তুমি কেমন করে গান কর হে গুণী,

অবাক হয়ে শুনি, কেবল শুনি।

সুরের আলো ভুবন ফেলে ছেয়ে,

সুরের হাওয়া চলে গগন বেয়ে,

পাষাণ টুটে ব্যাকুল বেগে ধেয়ে,

বহিয়া যায় সুরের সুরধুনী।

মনে করি অমনি সুরে গাই,

কণ্ঠে আমার সুর খুঁজে না পাই।

কইতে কী চাই, কইতে কথা বাধে;

হার মেনে যে পরান আমার কাঁদে;

আমায় তুমি ফেলেছ কোন্‌ ফাঁদে”

লেখক: ব্লগার ও প্রবাসী সাংবাদিক


সর্বশেষ

আরও খবর

তেল দিয়ে সত্য নিতে পারি কী কিছু!

তেল দিয়ে সত্য নিতে পারি কী কিছু!


পাখীদের অনশন

পাখীদের অনশন


গণদেবতার ঠোঁট সৈনিকেরা

গণদেবতার ঠোঁট সৈনিকেরা


পাটোয়ারী ভিলেজ ও চাড্ডিগ্রামের ডাইহার্ডেরা

পাটোয়ারী ভিলেজ ও চাড্ডিগ্রামের ডাইহার্ডেরা


নতুন মুখের সন্ধানে: নেতা নয়, অভিনেতা !

নতুন মুখের সন্ধানে: নেতা নয়, অভিনেতা !


ছাত্রলীগের জাদুকরি বদলে যাওয়া

ছাত্রলীগের জাদুকরি বদলে যাওয়া


এমেরিকায় বিএনপির লবিস্ট নিয়োগ

এমেরিকায় বিএনপির লবিস্ট নিয়োগ


রমণীয় রিমান্ড

রমণীয় রিমান্ড


গণতন্ত্রের মাতাল হাওয়া

গণতন্ত্রের মাতাল হাওয়া


জাদুকর, কালোবেড়াল ও আয়নাবাজির গল্প

জাদুকর, কালোবেড়াল ও আয়নাবাজির গল্প