Monday, July 23rd, 2018
চীন ও ভারতের গহনার দাপটে অস্তিত্ব সংকটে ঐতিহ্যবাহি ভাকুর্তার গহনা শিল্প
July 23rd, 2018 at 2:07 pm
চীন ও ভারতের গহনার দাপটে অস্তিত্ব সংকটে ঐতিহ্যবাহি ভাকুর্তার গহনা শিল্প

এম কে রায়হান: অলঙ্কারের বাজারে এক সময় সোনা ও রুপার গহনার বেশি প্রচলন থাকলেও গেল এক দশকে এই অবস্থায় এসেছে পরিবর্তন। এখন তামা ও পিতলের গহনার বিক্রিই বেশি। স্বর্ণের গহনার চেয়ে তুলনামূলক কম দাম এবং আকর্ষনীয় ডিজাইনের কারণে অনেকেই তামা-রূপা সহ বিভিন্ন ধাতুর তৈরি এসব গহনা ব্যবহার করেন।

আর তামা ও পিতলের গহনা তৈরীর শতবছরের ঐতিহ্যের নাম ভাকুর্তা বাজার। রাজধানীর অদূরে সাভারের এই বাজারের জুয়েলারি সরবরাহ হচ্ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। প্রায় ৮ থেকে ১০ হাজার মালিক-শ্রমিক-কারিগর মিলে সাভারের ভাকুর্তায় সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে হাতের ছোঁয়ায় তৈরী করেন এসব গহনা। মূলত উৎসব ও বিশেষ কোন দিবসকে কেন্দ্র করে এর চাহিদা বেড়ে যায়।

বংশ পরম্পরায় ব্যবসা চালু রাখলেও এখন বেশিরভাগ মানুষই মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। এখানকার মালিক এবং কারিগরদের সাথে কথা বলে জানা যায়, চীন ও ভারতের আমদানীকৃত গহনার দাপটে, অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে দেশীয় বাজারে তৈরী বিদেশি কাঁচামালের উপর নির্ভরশীল এসব পণ্য।

ক্ষিতিশ চন্দ্র নামের এক ব্যাবসায়ি জানান, আগে ব্যাবসা অনেক জমজমাট থাকলেও এখন খুব পড়তির দিকে। তিনি নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, ‘আগে প্রচুর অর্ডার থাকতো। আমরা দিয়ে শেষ করতে পারতাম না। কিন্তু এখন কাজের হাহাকার। কারিগররা কাজ পায় না। অনেক কারিগর এ পেশা ছেড়ে দিয়েছে।’

রতন কুমার দাশ নামের এক কারিগর জানান, আগে প্রতি মাসে তিনি ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা আয় করলেও এখন মাস শেষে ১০ হাজার টাকা আয় করাও তার জন্য কষ্ট হয়ে যায়। তিনি বলেন, ‘এখন আর আগের মত কাজ নেই। ২ দিন কাজ করলে সপ্তাহের বাকিদিন বসেই কাটাতে হয়।’

একই কথা বলছেন ভাকুর্তা গহনা সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন মোল্লা। কারণ হিসেবে তিনি জানান, দেশীয় বাজারে বিদেশি তৈরি নিম্নমানের ইমিটেশনের গহনার একচেটিয়া প্রবেশ, কাঁচামাল আমদানি, কারিগরদের ভালো মজুরী দিয়ে লাভের খাতায় থাকছে খুব সামান্যই।

তিনি নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, ‘নিয়মিত ঋণসুবিধা না থাকা অনেক বড় একটা সমস্যা। এছাড়াও দুর্বল যাতায়াত ব্যবস্থা এবং বিদেশি কাঁচামালের উপর আমদানী নির্ভরশীলতার কারণে অনেকটাই পিছিয়ে পড়ছে এ শিল্পের সাথে জড়িতরা।’

একসময় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যবসায়ী-দোকানিরা এখানে আসতেন গহনা কিনতে। কিন্তু সে সংখ্যা এখন অনেক কমে গেছে।

এ বিষয়ে আরেক ব্যাবসায়ি ধীরঞ্জন দাস বলেন, ‘এমন ও সময় ছিল দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকেও খুচরা ব্যাবসায়িরা আসতো কিন্তু এখন সেই সংখ্যা অনেক কমে গেছে। হাতে গোনা কয়েকজন আসে এখান থেকে গহনা কিনতে।’

ইকরামুল হোসেন নামের বাড্ডা থেকে আসা এক ক্রেতা নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, ‘আগে আমাদের অনেক বিক্রি ছিল কিন্তু এখন বিক্রি নেই বললেই চলে। তাই আমরাও কম গহনা কিনি। যারা জানেন এবং বোঝেন যে এখানকার তৈরী গহনা ভারত এবং চীন থেকে আসা গহনা থেকে টিকসই এবং মানসম্পন্ন তারাই শুধু এখন এসব গহনা কিনে থাকেন।’

এদিকে গহনা সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন মোল্লা জানান, এতো প্রতিকূলতার মধ্যেও যদি কাঁচামাল ভারত থেকে আমদানি না করে সরাসরি দেশেই তৈরি করা যায় তাহলে এই ব্যবসা হয়ত আবার আগের মত হতে পারে। এছাড়াও এ শিল্পকে বাঁচাতে হলে এবং এখানকার প্রায় ৮ হাজার কারিগর ও তার পরিবারকে বাঁচাতে হলে সরকারকে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

সম্পাদনা: এম কে আর


সর্বশেষ

আরও খবর

আকাশবীণা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আকাশবীণা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


জেনে নিন কলার গুণাগুণ

জেনে নিন কলার গুণাগুণ


দুর্নীতি করলে যে দলেরই হন রেহাই পাবেন না: শেখ হাসিনা

দুর্নীতি করলে যে দলেরই হন রেহাই পাবেন না: শেখ হাসিনা


যা ইচ্ছে সাজা দেন, বারবার আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া

যা ইচ্ছে সাজা দেন, বারবার আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া


পাকিস্তানের ১৩তম রাষ্ট্রপতি হলেন আরিফুর রেহমান আলভি

পাকিস্তানের ১৩তম রাষ্ট্রপতি হলেন আরিফুর রেহমান আলভি


ভুটানকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা বাংলাদেশের

ভুটানকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা বাংলাদেশের


ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে আরও ১১ মামলা

ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে আরও ১১ মামলা


ওয়েডিং ফটোগ্রাফার এলেন খান, যার শিডিউল পাবার পর ঠিক হয় বিয়ের তারিখ

ওয়েডিং ফটোগ্রাফার এলেন খান, যার শিডিউল পাবার পর ঠিক হয় বিয়ের তারিখ


বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু


কারাগারেই হবে খালেদার দুর্নীতি মামলার শুনানি

কারাগারেই হবে খালেদার দুর্নীতি মামলার শুনানি