Friday, September 23rd, 2016
চুয়াডাঙ্গায় ডাকাতদের হামলা: আটক ১, আতঙ্ক
September 23rd, 2016 at 5:54 pm
চুয়াডাঙ্গায় ডাকাতদের হামলা: আটক ১, আতঙ্ক

চুয়াডাঙ্গা: জেলার আলমডাঙ্গায় ডাকাত দলের হামলায় এক গরু ব্যবসায়ী নিহত ও ১৪ জন আহতের ঘটনায় শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।পুলিশ সন্দেহভাজন এক জনকে আটক করেছে। শুক্রবার দুপুরে নিহতের লাশ সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।আহতদের মধ্যে নয় জন সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সশস্ত্র ডাকাতদল গরু ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নগদ ১৫ লাখ টাকা লুট করে নেয়। ঘটনার পর পুলিশ টহল জোরদার করা হয়েছে। আর গ্রামবাসীর মধ্যে ডাকাত আতঙ্ক বিরাজ করছে।

আলমডাঙ্গায় ডাকাতির ঘটনা ধারাবাহিক ভাবে অব্যাহত রয়েছে। পুলিশ টহল অনিয়মিত ও ডাকাতির ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা ধরা ছোয়ার বাইরে বলে অভিযোগ করেন গ্রামবাসী। আটক রোকন আলমডাঙ্গা উপজেলার মুন্সিগঞ্জ সোনাতনপুর গ্রামের হাজারি শেখের ছেলে।

নিহত ভুলু মন্ডল আলমডাঙ্গা উপজেলার জেহালা ইউনিয়ানের নতিডাঙ্গা গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে ও গরু ব্যবসায়ী।

আহতরা হল-  হাটবোয়ালিয়া গ্রামের সিরাজুর ইসলামের ছেলে হানিফ, নতিডাঙ্গা গ্রামের বদর উদ্দিনের ছেলে মিল্কি, সোহরাব উদ্দিনের ছেলে তরিকুল ইসলাম, চাঁদ আলির ছেলে বাবলু, শাহবুদ্দিনের ছেলে বাবলু, ঠান্ডু মালিথার ছেলে  জিয়া, আব্দুল বারেকের ছেলে ইকরামুল হক ও বিশারত আলির ছেলে হারেজ।

পুলিশ ও আহত গরু ব্যবসায়ী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে ১৪ থেকে ১৬ জন গরু ব্যবসায়ী চুয়াডাঙ্গার জীবননগর শিয়ালমারি পশু হাটে গরু বিক্রি করে লাটাহাম্বার যোগে আলমডাঙ্গার নতিডাঙ্গা গ্রামে ফিরছিল। পথিমধ্যে মুন্সিগঞ্জ মধুখালি মাঠের নিকট পৌঁছালে ২০ থেকে ২২ জনের সশস্ত্র ডাকাত দল রাস্তায় পাটকাটি ফেলে গরু ব্যবসায়ীদের বহনকারী লাটাহাম্বারের গতিরোধ করে। ডাকাতদল বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রথমে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। পরে গরু ব্যবসায়ীদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। তাদের কাছে থাকা নগদ প্রায় ১৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। গ্রামবাসী আহতদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক ভুলু মন্ডলকে মৃত ঘোষণা করেন এবং অন্যদের হাসপাতালে ভর্তি রাখে। এর মধ্যে চার জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গত রাতেই বোমা হামলার খবর পেয়ে পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, সহকারী পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) ছুফিউল্লাহসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সদর হাসপাতাল পরিদর্শন করেন এবং আহতদের সাথে কলা বলেন।

বোমা হামলা ও ডাকাতির পর নিহতের ঘটনায় গ্রাম জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আজ বিকালে নিহতের লাশ দাফন করা হয়েছে।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকরাম হোসেন জানান, ঘটনার সাথে জড়িতদের ধরতে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

প্রতিনিধি, সম্পাদনা- জাহিদুল ইসলাম

 


সর্বশেষ

আরও খবর

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর


অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা


শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন

শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন


জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ

জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ


চোরের চিরকুট!

চোরের চিরকুট!


সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে লন্ডনে ‘আমরা সিলেট বাসীর’ মানব বন্ধন

সিলেটে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে লন্ডনে ‘আমরা সিলেট বাসীর’ মানব বন্ধন


গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর

গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর


এমসি কলেজে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের ছাত্রত্ব বাতিল

এমসি কলেজে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের ছাত্রত্ব বাতিল


মধ্যরাতে গৃহিণীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ৮

মধ্যরাতে গৃহিণীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ৮