Wednesday, August 31st, 2016
ছেলে নিখোঁজ, তাই প্রাণ ভিক্ষার আবেদন নয়
August 31st, 2016 at 4:42 pm
ছেলে নিখোঁজ, তাই প্রাণ ভিক্ষার আবেদন নয়

ঢাকা: ছেলে নিখোঁজ থাকায় এখনই প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করছেন না ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জামায়াত নেতা মীর কাসেম। বুধবার এই মানবতাবিরোধী অপরাধীর সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের সাক্ষাৎ শেষে এমন কথা জানান তার স্ত্রী আয়েশা খন্দকার।

আয়েশা জানান, ছেলে ব্যারিষ্টার আরমান নিখোঁজ থাকায় এখনই প্রাণ ভিক্ষার আবেদন না করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মীর কাসেম।

তিনি বলেন, ‘আমার ছেলে ও মীর কাসেম আলীর আইনজীবী আহমেদ বিন কাসেমকে সাদা পোশাকের পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। তাকে না পাওয়া পর্যন্ত আমরা প্রাণভিক্ষা বা অন‌্য কোনো বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত দিতে পারছি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার ছেলে এই মামলার লয়ার (আইনজীবি), তাই তাকে ছাড়া আমরা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবো না। তার সঙ্গে কথা হলে আমরা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবো। এরপর আর কোনো কথা না বলে অ‌্যাম্বুলেন্সে চড়ে চলে যান জামায়াত নেতা মীর কাসেমের পরিবারের ছয় সদস‌্য।

পরিবারের ছয় সদস্য মীর কাসেম আলীর সঙ্গে দেখা করেন। এর মধ্যে মীর কামেসের স্ত্রী ছাড়াও মেয়ে সুমাইয়া, ছেলের বউ তাহেরা তাসনিম রয়েছেন। এর আগে অনুমতি পেয়ে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২’এ মীর কাসেমের সাথে দেখা করার জন্য মিরপুরের বাসা থেকে সকাল সাড়ে ১০টায় রওনা দেয় তার পরিবার।

এদিকে মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কোন কারাগারে হবে এ বিষয়ে কারা মহাপরিচালক সৈয়দ ইফতেখার বলেন, ‘ক্ষমা চাওয়ার জন্য মীর কাসেম সাত দিনের সময় পাবেন। কোন কারাগারে ফাঁসি কার্যকর করা হবে এখনো তা ঠিক করা হয়নি। তবে ফাঁসি কার্যকর করার জন্য যে কোন কারাগারই সব সময় প্রস্তুত রয়েছে।’

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২’র জেলসুপার প্রশান্ত কুমার বনিক জানান, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মীর কাসেম আলীকে তার রিভিউ আবেদন খারিজের রায় পড়ে শোনানো হয়। কারা সূত্রে জানা গেছে, রায় শোনার পর তিনি কিছুটা চিন্তিত ও তার চোখে মুখে উদ্বেগ লক্ষ্য করা গেছে।

মঙ্গলবার সকালে তিনি কারাগারে তার কাছে থাকা রেডিওর মাধ্যমে রিভিউ খারিজ সংক্রান্ত রায় শুনেছিলেন। মঙ্গলবার রাত ১২টা ৪৮ মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মীর কাসেম আলীর রিভিউ খারিজ সংক্রান্ত রায়ের কপি গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ পৌঁছে দেয়া হয়। রাত অনেক বেশি হওয়ায় রাতে মীর কাসেম আলীকে তা পড়ে শোনানো হয়নি। পরে বুধবার সকাল সাড়ে ৭টায় আনুষ্ঠানিকভাবে রায় পড়ে শোনানো হয়।

৬৩ বছর বয়সী মীর কাসেম আলী কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের ফাঁসির কনডেম সেলে বন্দী রয়েছেন। গ্রেফতারের পর ২০১২ সাল থেকে তিনি এ কারাগারে রয়েছেন। ২০১৪ সালের আগে তিনি এ কারাগারে হাজতবাসকালে ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দীর মর্যাদায় ছিলেন। পরে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তির পর তাকে ফাঁসির কনডেম সেলে পাঠানো হয়।

প্রতিবেদন: ইয়াছিন রানা, সম্পাদনা: সজিব ঘোষ


সর্বশেষ

আরও খবর

সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন

সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন


দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী


সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার

সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার


অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা


করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের

করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের


শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন

শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন


মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে নির্দেশ মন্ত্রিসভার

মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে নির্দেশ মন্ত্রিসভার


দেশে করোনায় আরও ২৩ জনের মৃত্যু

দেশে করোনায় আরও ২৩ জনের মৃত্যু


ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের


বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খসড়া তালিকায় গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খসড়া তালিকায় গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন