Friday, February 24th, 2017
জামায়াত নেতাকে নিয়ে বনভোজনে আটঘরিয়ার ইউএনও
February 24th, 2017 at 9:42 pm
জামায়াত নেতাকে নিয়ে বনভোজনে আটঘরিয়ার ইউএনও

পাবনা: একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবসে জেলা জামায়াতের নায়েবে আমিরের সঙ্গে বনভজনে ব্যস্ত সময় পার করলেন পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইদুজ্জামান। এ সংক্রান্ত ছবি নিয়ে ঝড় উঠেছে সামাজিত যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

জানা গেছে, ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবসে আটঘরিয়ায় ঢিলেঢালাভাবে পালন করে উপজেলা প্রশাসন।

এদিন সকাল ১০টার দিকে উপজেলা অফিসার্স ক্লাবের উদ্যোগে পরিষদের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিয়ে পাকশীতে বনভোজনে মেতেছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইদুজ্জামান।

বনভোজনে ইউএনও’র সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন জেলা জামায়াতে নায়েবে আমির ও উপজেলা চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম খান। আর এই বনভোজনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে উপজেলার সচেতন মহলের মধ্যে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন এলাকা, বাজার, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উঠেছে সমালোচনার ঝড়।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে জনৈক বীর মুক্তিযোদ্ধা বলেন, মহান শহীন ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সরকারি কর্মসূচি ঢিলেঢালাভাবে পালন করে জেলা জামায়াতে নায়েবে আমির ও উপজেলা চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম খানকে সঙ্গে নিয়ে বনভোজনে দিন পার করায় আমরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাইদুজ্জামানকে ধিক্কার জানাই।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে উপজেলার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জনৈক প্রধান শিক্ষক বলেন, শোকের এই দিনে উপজেলা প্রশাসনের এই ধরনের আয়োজন সত্যই দুঃখজনক।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জহুরুল হক বলেন, এ ধরনের আয়োজন হয়েছে কি না আমার জানা নেই। তবে যদি ২১ ফেব্রুয়ারি শোকের দিনে উপজেলা প্রশাসন জামায়াত নেতাকে সঙ্গে নিয়ে এ ধরনের আয়োজন করে থাকেন তাহলে এই ন্যাক্কারজনক আয়োজনকে আমরা ঘৃণা জানাই।   আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গফুর মিয়া বলেন, শোকের দিনে এ ধরনের অপকর্ম থেকে বিরত থাকতে হবে। আর এ ধরনের আয়োজন নিন্দনীয় ও দুঃখজনক।

এ বিষয়ে আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাইদুজ্জামান বলেন, শুধু এবারই নয়, এর আগের একুশে ফেব্রুয়ারিতেও এভাবে বনভোজন হয়েছে। এখানে জামায়াত নেতা বলে কোনো কথা নয়, তিনিতো জনপ্রতিনিধি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। আর শুধু আমরাই নয়, উপজেলা প্রশাসন ও থানা প্রশাসনের অনেকেই ছিলেন।

তবে শোকের দিন এমন বনভোজন করা কতটুকু ন্যায়সঙ্গত এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারি বনভোজন না করে অন্যকোনো দিন করা যেতো, তবে অনেকে থাকেন না বিধায় সবার উৎসাহে ওইদিন করা হয়েছে। বিষয়টি অন্যভাবে দেখার সুযোগ নেই।

মো: শাহীনুর রহমান (পাবনা), সম্পাদনা: জাহিদ

 


সর্বশেষ

আরও খবর

বগুড়ায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৫

বগুড়ায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৫


টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী

টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী


আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর

আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর


নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু


সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭

সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭


ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪

ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪


ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ট্রলারের সংঘর্ষে ১৭ মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ট্রলারের সংঘর্ষে ১৭ মরদেহ উদ্ধার


বৃষ্টিতে আবারও ডুবল চট্টগ্রাম শহরের অধিকাংশ এলাকা

বৃষ্টিতে আবারও ডুবল চট্টগ্রাম শহরের অধিকাংশ এলাকা


কাঠগড়ায় ওসি প্রদীপের ফোনালাপের ঘটনায় ৪ পুলিশকে প্রত্যাহার

কাঠগড়ায় ওসি প্রদীপের ফোনালাপের ঘটনায় ৪ পুলিশকে প্রত্যাহার