Thursday, September 22nd, 2016
লঞ্চ উদ্ধার, মিললো আরো ৪ শিশুর লাশ
September 22nd, 2016 at 9:51 am
লঞ্চ উদ্ধার, মিললো আরো ৪ শিশুর লাশ

বরিশাল: জেলার বানারীপাড়ার মসজিদবাড়ি বাজার সংলগ্ন সন্ধ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চ ঐশীকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) উদ্ধারকারী জাহাজ ‘নির্ভীক’। লঞ্চের ভেতর থেকে ৪ শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এনিয়ে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৮ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছেন আরও ৯ জন।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে লঞ্চটিকে পানির উপর টেনে তোলা হয় বলে নিশ্চিত করেন ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক ফারুক হোসেন শিকদার। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের দাসেরহাট মজিদবাড়ী লঞ্চঘাট এলাকায় এমএল ঐশী লঞ্চটি ডুবে যায়।

lanch2

বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত লঞ্চের নিখোঁজ যাত্রীদের মধ্যে ১৪ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। বিআউডব্লিউটিএ’র নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের উপ-পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমানের দেয়া তথ্যানুযায়ী এরা হলেন, বানারীপাড়ার মজিবর রহমানের স্ত্রী কহিনুর বেগম (৪০), মজিদ মাষ্টারের স্ত্রী সালেহা বেগম (৬০), উজিরপুরের কেশবকাঠী এলাকার অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা আঃ রাজ্জাক (৭৫), বানারীপাড়ার সাঈদ আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৪৫), মৃতঃ চান্দু মিঞার স্ত্রী রাবেয়া বেগম (৪৫), মৃতঃ ইসমাইল মোল্লার ছেলে মুজাম্মেল মোল্লা (৬২), রহিম হাওলাদারের স্ত্রী রেহানা বেগম (৩৫), উজিরপুরের মনিন্দ্রনাথ মল্লিকের ছেলে সুখদেব মল্লিক (৩৫), বানারীপাড়ার আবুল ঘরামীর ছেলে মিলন ঘরামী (৩২), মোঃ সাগর মীর (১৫), উজিরপুরের সিরাজুল ইসলামের ছেলে জয়নাল হাওলাদার (৫৫), বানারীপাড়ার আঃ মজিদ’র স্ত্রী ফিরোজা বেগম (৫৫), উজিরপুরের সিদ্দিকুর রহমানের শিশু মেয়ে শান্তা (৭) এবং স্বরুপকাঠীর কামাল হোসেনের স্ত্রী হিরা বেগম।

এছাড়া বৃহস্পতিবার সকালে আরও চার শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। এরা হলো- লাশ উদ্ধার হওয়া খুকু মনির (মিলন ঘরামী’র স্ত্রী) ছেলে সাফওয়ান (৩), লাশ উদ্ধার হওয়া রেহানা বেগমের ছেলে রিয়াদ হাওলাদার (৫), উজিরপুরের সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে রাফি (৭), এবং বানারীপাড়ার আলমগীর হোসেনের শিশু মেয়ে মারিয়া বেগম (৩)।

lanch1

ঘটনাস্থলে কর্মরত বিআইডব্লিউটিএ এবং পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী নিখোঁজ রয়েছে লঞ্চের আরও অন্তত ৯ জন যাত্রী।

এদিকে লঞ্চ ডুবির ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৯ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেনকে তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়াও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ১০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা  প্রদান করা হবে।

lll

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মানিকগঞ্জে কার্গোর সঙ্গে দোতলা একটি লঞ্চ ধাক্কা লেগে ডুবে যায়। এতে কমপক্ষে ৭০ জন লোক মারা যায়।

২০১৪ সালের আগস্ট মাসে পদ্মা নদীতে ২০০ যাত্রী বোঝাই লঞ্চ ডুবিতে ৪৯ জন যাত্রী মারা যান এবং বেশ কয়েকজন যাত্রী নিখোঁজ ছিলো। এছাড়াও একই বছর মে মাসে অপর একটি নৌ দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন যাত্রী নিহত হন।

২০১২ সালের মার্চ মাসে মুন্সিগঞ্জে তেলবাহী একটি জাহাজ রাতে যাত্রীবাহী একটি লঞ্চকে ধাক্কা দিলে ডুবে যায়। এতে ১৫০ জন যাত্রী নিহত হয়। ওই লঞ্চে দুই শতাধিক যাত্রী ছিলো।

প্রতিবেদন: প্রতিনিধি,  সম্পাদনা: মাহতাব শফি


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর