Saturday, July 23rd, 2016
তাজউদ্দীন আহমদের ৯১তম জন্মবার্ষিকী
July 23rd, 2016 at 9:56 am
তাজউদ্দীন আহমদের ৯১তম জন্মবার্ষিকী

ডেস্ক: দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের ৯১তম জন্মবার্ষিকী শনিবার। মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখা এ নেতা ১৯২৫ সালে আজকের দিনে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার দরদরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে আজ তাজউদ্দীনের জন্মদিন পালন করবে বিভিন্ন সংগঠন।

তাজউদ্দীন আহমদের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ধানমণ্ডির সাত মসজিদ রোডে তাজ লিলি গ্রিন ভবনে মাসব্যাপী চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন হবে। তাজউদ্দীন পরিষদের আয়োজনে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন শিল্পমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা পরিষদের আয়োজনে জাতীয় গণগ্রন্থাগার মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

কাপাসিয়ার মৌলভি মো. ইয়াসিন খান ও মেহেরুন্নেছা খানের ১০ সন্তানের মধ্যে তাজউদ্দীন ছিলেন চতুর্থ। ১৯৪৪ সালে মেট্রিকুলেশনে অবিভক্ত বাংলায় সম্মিলিত মেধাতালিকায় ১২তম স্থান অধিকার করেন তিনি। উচ্চ মাধ্যমিকে ঢাকা বোর্ডে চতুর্থ স্থান লাভ করেন। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগে পড়াশোনা করেন তাজউদ্দীন। তিনি স্কুলে পড়ার সময়ই মুসলিম লীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। তিনি ১৯৪৪ সালে বঙ্গীয় মুসলিম লীগের কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৫৩ সালে আওয়ামী মুসলিম লীগ (পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগ) ঢাকা জেলার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন তাজউদ্দীন। পরে ১৯৬৪ সালে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। দুই বছর পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এ সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আওয়ামী লীগের সভাপতি হন।

রাজনৈতিক জীবনে বহুবার কারাবরণকারী নেতা তাজউদ্দীন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পাশে থেকে এ দেশের মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরুর মুহূর্তে বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে বন্দি হলে তাজউদ্দীন আহমদ মুক্তিযুদ্ধকে সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে সফলতার পথে নিয়ে যেতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন গঠিত এ দেশের প্রথম সরকারে তাজউদ্দীন আহমদ প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

স্বাধীন বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বাধীন সরকারে তাজউদ্দীন আহমদ অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। স্বাধীন দেশে জাতীয় সংসদে প্রথম বাজেট উত্থাপনও করেন তাজউদ্দীন। সদ্য স্বাধীন দেশে তিন বছরের মধ্যেই বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে তাজউদ্দীনের দূরত্ব তৈরি হয়। তিনি ১৯৭৪ সালের ২৬ অক্টোবর মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু সপরিবারে নিহত হলে খুনি চক্র তাজউদ্দীনকে প্রথমে গৃহবন্দি ও পরে গ্রেফতার করে। বন্দি থাকা অবস্থায়ই খুনি চক্র ১৯৭৫ সালের ৪ নভেম্বর জেলখানায় তাজউদ্দীনসহ জাতীয় চার নেতাকে নির্মমভাবে হত্যা করে।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/ওয়াইএ


সর্বশেষ

আরও খবর

প্রয়াণের ২১ বছর…

প্রয়াণের ২১ বছর…


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের


জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ

জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ


গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর

গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর


বিএনপি মহাসচিবের বাসায় ঢিল: ১২ নেতা সাময়িক বহিষ্কার

বিএনপি মহাসচিবের বাসায় ঢিল: ১২ নেতা সাময়িক বহিষ্কার


‘সুপারম্যান‘ ট্রাম্প করোনাভাইরাসের ‘সুপারপাওয়ার‘ বুঝতে ভুল করেছেন

‘সুপারম্যান‘ ট্রাম্প করোনাভাইরাসের ‘সুপারপাওয়ার‘ বুঝতে ভুল করেছেন


লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটস এর স্পীকার হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ব্রিটিশ বাঙ্গালী আহবাব হোসেন

লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটস এর স্পীকার হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ব্রিটিশ বাঙ্গালী আহবাব হোসেন


ভেঙে গেলো গণফোরাম

ভেঙে গেলো গণফোরাম


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু