Tuesday, July 12th, 2016
দিলীপ বিশ্বাসের চলে যাওয়ার দশ বছর
July 12th, 2016 at 7:56 pm
দিলীপ বিশ্বাসের চলে যাওয়ার দশ বছর

ঢাকাঃ ঢাকাই সিনেমার এক উজ্জ্বল নক্ষত্র তিনি। চলচ্চিত্র পরিচালনার পাশাপাশি ছিলেন প্রযোজক, অভিনয়শিল্পী ও সঙ্গীতশিল্পী। বলছি দেশের চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি দিলীপ বিশ্বাসের কথা। জহির রায়হানের হাত ধরে বেহুলা ছবিতে গায়ক হিসেবে চলচ্চিত্রে প্রবেশ করেন তিনি। মঙ্গলবার এই চলচ্চিত্র ব্যাক্তির দশম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০০৬ সালের ১২ জুলাই তিনি লাখো ভক্তকে চোখের চলে ভাসিয়ে পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

মৃত্যুবার্ষিকীতে দিলীপ বিশ্বাসকে স্মরণ করছেন তার পরিবার, বন্ধু, স্বজন ও অনুসারীরা। বাবা দিলীপ বিশ্বাসের প্রয়াণ দিবসে শোকাতুর পুত্র দেবাশীষ বিশ্বাস। বাবার স্মরণে তিনি বলেন, ‘দেখতে দেখতে এক দশকি পেরিয়ে গেল, বাবা নেই। তিনি নীরব অভিমান নিয়ে মা ও আমাকে ছেড়ে চলে গেছেন।’

দেবাশীষ বলেন, ‘বাবা আমার জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ একজন মানুষ। এই দিনটি আসলেই মন খারাপের স্রোতে ভাসি। সবাই দোয়া করবেন বাবার জন্য। দোয়া রাখবেন বাংলা চলচ্চিত্র নিয়ে বাবার যে স্বপ্ন ও ভালোবাসা ছিলো পুত্র হিসেবে আমি যেন তার মূল্যায়ণ করে যেতে পারি।’

তার অভিনীত সফল ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- আনোয়ারা, সমাধান, স্বীকৃতি, নতুন নামে ডাকো, দুই ভাই, অতিথি, রংবাজ

১৯৪৬ সালে পিরোজপুরের চাঁদকাঠি গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন দিলীপ বিশ্বাস। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞানে মাস্টার্স করেছিলেন। গায়ক হিসেবে চলচ্চিত্রে প্রবেশ করলেও অভিনয়ে বেশ পটু ছিলেন তিনি। তার অভিনীত সফল ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- আনোয়ারা, সমাধান, স্বীকৃতি, নতুন নামে ডাকো, দুই ভাই, অতিথি, রংবাজ।

‘জিঞ্জির’ ছবির মাধ্যমে ১৯৭৩ সালে চিত্রপরিচালক হিসেবে অভিষেক ঘটে তার।  এরপর তিনি নির্মাণ করেন বহু সুপারহিট চলচ্চিত্র। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য- অনুরোধ, আসামী, বন্ধু, অংশীদার, আনারকলি, অস্বীকার, অজান্তে, অপমান, সমাধি, অপেক্ষা, অকৃতজ্ঞ ইত্যাদি। দর্শক নন্দিত এ নির্মাতা সর্বশেষ ২০০৫ সালে নির্মাণ করেন ‘মায়ের মর্যাদা’।

প্রযোজক হিসেবেও সফল ছিলেন দিলীপ বিশ্বাস। প্রযোজক হিসেবে তার ছিল গীতি চিত্রকথা নামে একটি চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। এখানে চলচ্চিত্র প্রযোজনাসহ পরিবেশনও করা হয়। তার পরিচালনার বেশির ভাগ ছবির প্রযোজনা তিনি নিজেই করতেন। ২০০২ সালে পুত্র দেবাশীষ বিশ্বাসের পরিচালনায় ‘শ্বশুরবাড়ী জিন্দাবাদ’ ছবিটি প্রযোজনা করেছিলেন তিনি।

গুণী এই নির্মাতার দারুণ একটি বিষয় আজও চলচ্চিত্রপ্রেমীদের ভাবায়, আনন্দ দেয়। সেটি হলো নিজের পরিচালিত ছবিগুলোর মধ্যে অধিকাংশের নামের আদ্যাক্ষর ‘অ’ হওয়ায় ঢাকার চলচ্চিত্র অঙ্গনে তাকে নিয়ে আলোচনা, কৌতূহল ছিল সবার। ‘অ’ কে অনেকে অশুভ, অসফল ইত্যাদি মনে করলেও দিলীপ বিশ্বাস ‘অ’ কে শুভ এবং সাফল্যের প্রতীক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন আপন দক্ষতা এবং যোগ্যতায়। চিত্রনির্মাতা হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এএ/এসজি


সর্বশেষ

আরও খবর

নতুন মৌলিক গান “তুমি হারালে কোথায়?”

নতুন মৌলিক গান “তুমি হারালে কোথায়?”


করোনায় আক্রান্ত তাহসান

করোনায় আক্রান্ত তাহসান


মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা

মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা


গ্রেপ্তার হলেন বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী

গ্রেপ্তার হলেন বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী


সপরিবারে কোয়ারেন্টাইনে দেব

সপরিবারে কোয়ারেন্টাইনে দেব


বিটিভিতে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘বাংলার মুখ’

বিটিভিতে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘বাংলার মুখ’


হুট করেই বিয়ে পরীমনির, ৫ মাসেই ভাঙল সংসার!

হুট করেই বিয়ে পরীমনির, ৫ মাসেই ভাঙল সংসার!


এফডিসিতে ৫ গরু কোরবানি দিচ্ছেন পরীমনি

এফডিসিতে ৫ গরু কোরবানি দিচ্ছেন পরীমনি


করোনার মধ্যেই বিয়ে করলেন কর্নিয়া

করোনার মধ্যেই বিয়ে করলেন কর্নিয়া


ঐশ্বরিয়া-আরাধ্য করোনা নেগেটিভ, চিকিৎসাধীন অমিতাভ-অভিষেক

ঐশ্বরিয়া-আরাধ্য করোনা নেগেটিভ, চিকিৎসাধীন অমিতাভ-অভিষেক