Thursday, September 1st, 2016
দুই মন্ত্রীকে ন্যূনতম সাজা দেয়া হয়েছে: আপিল বিভাগ
September 1st, 2016 at 6:10 pm
দুই মন্ত্রীকে ন্যূনতম সাজা দেয়া হয়েছে: আপিল বিভাগ

ঢাকা: মানবতাবিরোধী অপরাধী মীর কাসেম আলীর আপিলের রায়ের আগে প্রধান বিচারপতি ও বিচার বিভাগ এবং বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে মন্তব্য করায় দুই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে দণ্ড ঘোষণা করে দেয়া রায় প্রকাশ পেয়েছে বৃহস্পতিবার। রায়ের পর্যবেক্ষণে তাদের (দুই মন্ত্রীকে) ন্যূনতম সাজার আদেশ দেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।

সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ থেকে প্রকাশিত রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, তারা (দুই মন্ত্রী) বিচার বিভাগের মর্যাদাকে খাটো করেছেন। তারা রায়ের প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করে সুপ্রিম কোর্ট নিয়ে কুৎসা রটনা করেছেন। এটা মারাত্মক আদালত (ফৌজদারী) অবমাননা এবং সাংবিধানিক ব্যবস্থার লংঘন। এসব কারণে তারা সহানুভুতি পেতে পারেন না। এজন্যই খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হককে ন্যূনতম সাজার আদেশ দেয়া হয়েছে। আদালত অবমাননার দায়ে বিচারপতিদের স্বাক্ষরের পর প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে বৃহস্পতিবার মোট ৫৪ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায়ের অনুলিপি প্রকাশ করা হয়।

দুই মন্ত্রী মানবতাবিরোধী অপরাধে মীর কাসেম আলীর মামলার আপিলের রায়ের আগে প্রধান বিচারপতি ও বিচার বিভাগ সম্পর্কে অবমাননাকর বক্তব্য দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে চলতি বছর ২৭ মার্চ তাদের দোষী সাব্যস্ত করে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে সাত দিনের কারাদণ্ড দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আপিল বিভাগের ৮ বিচারপতির পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ এই রায় দিয়েছিলেন।

রায়ে তাদের দোষী সাব্যস্ত করা ও দণ্ড দেয়ার ব্যাপারে সকল বিচারপতি একমত পোষণ করলেও তাদের শপথ ভঙ্গের বিষয়ে ভিন্নমত রয়েছে। তাই পূর্ণাঙ্গ রায়টি ৫ জনের সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে প্রকাশি হয়েছে।

সংখ্যাগরিষ্ঠ মতামত দিয়ে রায় লিখেছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। তার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা, আপিল বিভাগের সিনিয়র বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা, বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা এবং বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার। এর সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করে রায় লিখেছেন বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, তার সঙ্গে একমত হয়েছেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি মো. নিজামুল হক।

আপিল বিভাগের রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়েছে, তারা (দুই মন্ত্রী) আইন লঙ্ঘন করেছেন এবং সংবিধান সমুন্নত রাখার যে শপথ নিয়েছেন তা লঙ্ঘন করেছেন। আমাদের সন্দেহ নেই যে, বিবাদীরা উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বক্তব্য রেখেছেন এবং তারা তাদের দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন। তারা আইন ভঙ্গের কাজ করেছেন।

রায়ে বলা হয়, বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্নে তুলে তারা (দুই মন্ত্রী) বিচার বিভাগের মর্যাদাকে খাটো করেছেন। তারা রায় প্রদান প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করে সুপ্রিম কোর্ট সম্পর্কে কুৎসা রটনা করেছেন। এটা মারাত্মক ফৌজদারী আদালত অবমাননা এবং সংবিধানে প্রদত্ত ব্যবস্থার লংঘন। এ কারণে তারা সহানুভুতি পেতে পারেন না। এজন্য তাদের ন্যূনতম সাজা দেয়ার আদেশ দেয়া হয়েছে।

তবে সংখ্যাগরিষ্ঠের রায়ের সাজার দোষী সাব্যস্ত করা ও জরিমানার বিষয়ে তিনজন বিচারপতি একমত হলেও তারা শপথ ভঙ্গের বিষয়ে দ্বি-মত পোষণ করেছেন। এ বিষয়ে তাদের অভিমত- দুজন আদালত অবমাননার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত ও জরিমানা করা নিয়ে আমাদের কোনো ভিন্ন-মত নেই। তবে সংবিধান রক্ষার শপথ ভেঙেছেন, এ বিষয়ে একমত হতে পারছি না।

তিন বিচারক আরো অভিমত দেন- তাদের (দুই মন্ত্রী) শপথ ভঙ্গ করার বিষয়টি এই আদালতের বিচার্য বিষয় ছিল না। শপথ ভঙ্গের বিষয়টি তাদের নজরেও (নোটিশে) আনা হয়নি। যারা এখন মন্ত্রী হিসেবে মন্ত্রিসভায় রয়েছেন। সংবাদপত্রে প্রকাশিত রিপোর্টের ভিত্তিতে তারা আদালত অবমাননা করেছেন কি করেননি সেটাই বিবেচ্য বিষয়।

চলতি বছর ৫ মার্চ ঢাকায় ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির এক গোলটেবিল বৈঠকে আলোচনায় কামরুল ও মোজাম্মেল মীর কাসেমের রায় নিয়ে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার সমালোচনা করেছিলেন। এরপর ৮ মার্চ মীর কাসেমের আপিলের রায়ের দিন দুই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করেন।

সেই রুলের ওপর তিন কার্যদিবস শুনানির পর ২৭ মার্চ মামলার রায় দেয়া হয়। রায়ে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হককে ৫০ হাজার টাকা অর্থ দণ্ড দেয়া হয়। সাত দিনের মধ্যে এই অর্থ ইসলামিয়া চক্ষু হাসপাতাল ও লিভার ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশে দিতে বলা হয়। অনাদায়ে সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। অবশ্য নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দুই মন্ত্রী জরিমানার অর্থও প্রদান করেছেন।

প্রতিবেদক- ফজলুল হক, সম্পাদনা- জাহিদুল ইসলাম

 


সর্বশেষ

আরও খবর

প্রয়াণের ২১ বছর…

প্রয়াণের ২১ বছর…


করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার