Saturday, December 31st, 2016
দোলাচলে বিএনপির সমাবেশ
December 31st, 2016 at 9:12 pm
দোলাচলে বিএনপির সমাবেশ

শেখ রিয়াল, ঢাকা:

পাঁচ জানুয়ারি, বিএনপির মতে গণতন্ত্র হত্যা দিবস অপরদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সেই দিনকে গণতন্ত্র মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। ২০১৪ সালের পাঁচ জানুয়ারি একতরফা নির্বাচনে ১৫০টির অধিক আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়ে ক্ষমতা হস্তগত করেছিল বলে মনে করে বিএনপি নেতারা। আর তাই গত তিন বছর থেকে এই দিনকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে পালন করে বিএনপি।

এই দিনকে ঘিরে প্রতিবারই সারাদেশের জেলা শহরগুলোতে কালো পতাকা মিছিল এবং বিএনপির প্রত্যেক নেতাকর্মীদের কালো ব্যাচ ধারণ করতে বলা হয়। এবারো গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে সাত জানুয়ারি রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। অপর দিকে একই দিনে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে সারা দেশে দুইদিনের নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।

বিএনপির দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সমাবেশের সব রকম প্রস্তুতি নেয়া শুরু হয়েছে। অনুমতির জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ এবং চিঠি দেয়া হয়েছে। তবে সেখান থেকে এখনও কোনো প্রকারের আশ্বাস পাওয়া যায়নি বলে জানা গেছে।

তবে বিএনপির সমাবেশের অনুমতি পাওয়ার কোনো সম্ভাবনায় দেখছে না দলের একাধিক নেতা। এর আগে সাত নভেম্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে অনুমতি চাইলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নানা অজুহাতে তা দেয়নি। এবারও তেমটিই হবে বলে মনে করছেন বিএনপি নেতারা।

দিবসটিকে বিএনপি কালো দিবস হিসেবে পালন করলেও সরকারি বাধার কারণে কখনোই এই দিবসে কোনো আনুষ্ঠানিকতা করতে পারেনি বিএনপি বলে জানান দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে বলেন, ‘সরকার নিজেদের কলঙ্কের কথা সহজভাবে নেয়না বলেই দিবসটিতে বিএনপিকে কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেয় না। তবে বরাবরের মতো এই বছরেও বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হবে না এমন আশঙ্কা করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘অনুমতি না পেলে অগণতান্ত্রিক কোনো কর্মসূচিতে যাবে না বিএনপি।’

তবে ইতোমধ্যে ১০ জানুয়ারি শেখ মুজিবর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেথ হাসিনা। আওয়ামী লীগের এই সমাবেশকে কেন্দ্র করে ১০ জানুয়ারির আগে থেকেই সেখানে মঞ্চ তৈরির কাজ এবং নিরাপত্তা জোরদার করা হবে। সেদিক থেকে বিবেচনা করলে বিএনপির সমাবেশ করার অনুমতির কোনো সুযোগ নেই।

এ ব্যাপারে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণ ছিলনা। তাই দিনটিকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবেই পালন করে আসছে বিএনপি। আমরা সেই দিনকে যথাযথভাবে পালন করার জন্য বেশ কিছু কর্মসূচি হাতে নিয়েছি এবং সাত নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এখন শুধু অনুমতির উপেক্ষা। জনমতকে উপেক্ষা করে একতরফা ভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ওই নির্বাচন।’

প্রকাশ: ইয়াসিন আলী


সর্বশেষ

আরও খবর

সিনেটে ১ লাখ ৯০ হাজার কোটি ডলারের করোনা সহায়তা বিল পাস

সিনেটে ১ লাখ ৯০ হাজার কোটি ডলারের করোনা সহায়তা বিল পাস


বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা


ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ৫০ বছর

ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ৫০ বছর


কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের জামিন মঞ্জুর

কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের জামিন মঞ্জুর


একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ

একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ


শাহবাগে মশাল মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, আটক ৩

শাহবাগে মশাল মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, আটক ৩


গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক মারা যাওয়ার ৬০ ঘন্টা পরে পরিবারের মামলা

গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক মারা যাওয়ার ৬০ ঘন্টা পরে পরিবারের মামলা


করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩২৭

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩২৭


নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু


ভাষার বৈচিত্র্য ধরে রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ভাষার বৈচিত্র্য ধরে রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর