Monday, November 7th, 2016
নিখোঁজ রসরাজের পরিবার
November 7th, 2016 at 2:27 pm
নিখোঁজ রসরাজের পরিবার

প্রীতম সাহা সুদীপ ও তুহিন সাইফুল: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের হরিণবেড় গ্রাম। ছোট্ট এই গ্রামের ইট বিছানো কাচা সড়ক পেরুলেই চোখে পড়বে তিতাস নদী। সেই নদীর পাড় ঘেঁষেই জেলেপাড়া, যার শেষ প্রান্তে জেলে রসরাজের বাড়ি।

হ্যাঁ, সেই রসরাজের কথাই বলা হচ্ছে যার বাড়ির বেশির ভাগ অংশ আজ মৌলবাদীদের হামলায় ক্ষতবিক্ষত। রামদার কোপে কাটা টিনের বেড়া। একটি খাট ও ভাঙা আলমারি ছাড়া নেই কোন আসবাবপত্র। লুটপাট হয়েছে সবকিছুই। বাড়ির উঠানে পড়ে আছে রসরাজের কালো জালটি, যা তার পরিবারের দু’বেলা দু’মুঠো অন্নের ব্যবস্থা করতো।

সোমবার রসরাজের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, পুরো বাড়ি জনশূন্য। সবাই নিরুদ্দেশ। এই রসরাজের ফেসবুক আইডি থেকেই ইসলাম ধর্মকে অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে নাসিরনগর জুড়ে সাম্প্রদায়িক তান্ডব চালিয়েছিল মৌলবাদী গোষ্ঠী। রসরাজ তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেফতার হয়েছেন, কিন্তু তার পরিবারের অন্য সদস্যরা কোথায় আছেন তা জানেন না কেউ।

রসরাজের প্রতিবেশী মোহন লাল দাস নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে জানান, জেলে পাড়ায় অন্তত ১৫০ ঘর রয়েছে। ওই দিনের ঘটনার পর এখানকার প্রায় সব ঘরের হিন্দুরাই পালিয়ে যায়। এখন তারা একে একে ফিরে আসছেন। তবে রসরাজের পরিবারের এখনো কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি।

তিনি আরো জানান, “রসরাজরা তিন ভাই, এক বোন। সে মেজো। তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। পেশা মাছ ধরা। বাবাও একই পেশায় নিয়োজিত। অভাব অনটনের সংসার।”

রসরাজের বাড়ির উঠানেই দেখা হয়ে যায় ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ফিল্ড অফিসার প্রশান্ত কুমার বিশ্বাসের সাথে। তিনি বাড়িটি পরিদর্শন করতে এসেছেন। নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’এর সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, “ফেসবুকে পোস্ট দেয়া, সেই পোস্টকে কেন্দ্র করে ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টি করা এগুলো একদমই ঠিক না। এ ধরণের অপতৎপরতা রুখতে ধর্ম মন্ত্রণালয় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ”

প্রশান্ত কুমার বলেন, “মসজিদের ইমামরা যদি ধর্মীয় কুসংস্কার, উন্মাদনা, মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কথা বলেন, তারা যদি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পক্ষে কথা বলেন তাহলে আমাদের আর এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে না ”

এদিকে ফেসবুকে পবিত্র কাবা শরিফ নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র পোস্ট দেয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত রসরাজ দাসকে যে বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে তা মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হকও স্বীকার করেছেন। শুধু তাই নয় ওই ব্যঙ্গচিত্র কোন জায়গা থেকে পোস্ট করা হয়েছে সে বিষয়েও ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’এর সাথে একান্ত আলাপচারিতায় মন্ত্রী এসব তথ্য জানান।

ছায়েদুল হক বলেন, রসরাজের বিরুদ্ধে যে অনাকঙ্ক্ষিত ছবি পোস্ট করার অভিযোগ আনা হয়েছে, এটা তো সে করে নাই। সাইবার বিশেষজ্ঞরা প্রথমে ধারণা করেছিল এটা কাতার থেকে পোস্ট করা হয়েছিল। এখন শুনেছি এটা ঢাকা থেকে করা হয়েছে। এটা এখন বের করা হচ্ছে। ঘটনার পেছনে কারা আছে, সব বের হয়ে যাবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার জন্য পরিকল্পিতভাবে ফেসবুকে ওই ব্যঙ্গচিত্র পোস্ট করা হয়েছিলো, নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’এর সাথে আলাপকালে এমন ইঙ্গিতও করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, ব্যঙ্গচিত্র পোস্ট করার পর যে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছিলো ওই সমাবেশে চৌদ্দটা ট্রাক এসেছে, যে ট্রাকগুলোতে করে মৌলবাদীরা এসে হামলা করেছে। এর ভাড়া দিয়েছে হরিপুর ইউনিয়নের আঁখি চেয়ারম্যান। তাহলে বুঝে নিন এখন এটি কে করেছে? কে লিংক আপ?

সম্পাদনা: প্রণব


সর্বশেষ

আরও খবর

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে ৪ জন নিহত

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে ৪ জন নিহত


হাসপাতালের বেডে সুইসাইড নোট রেখে করোনা রোগীর আত্মহত্যা

হাসপাতালের বেডে সুইসাইড নোট রেখে করোনা রোগীর আত্মহত্যা


করোনা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের কবিতা

করোনা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের কবিতা


আলেমদের ওপর জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না: বাবুনগরী

আলেমদের ওপর জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না: বাবুনগরী


সকালে কন্যা সন্তানের জন্ম, বিকালেই করোনায় মায়ের মৃত্যু

সকালে কন্যা সন্তানের জন্ম, বিকালেই করোনায় মায়ের মৃত্যু


করোনায় দেশে একদিনে শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড

করোনায় দেশে একদিনে শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড


করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ১০ হাজার

করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ১০ হাজার


জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হলেই জরিমানা

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হলেই জরিমানা


লকডাউনের নামে সরকার ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে: ফখরুল

লকডাউনের নামে সরকার ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে: ফখরুল


আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার