Thursday, September 20th, 2018
পাটোয়ারী ভিলেজ ও চাড্ডিগ্রামের ডাইহার্ডেরা
September 20th, 2018 at 7:15 pm
পাটোয়ারী ভিলেজ ও চাড্ডিগ্রামের ডাইহার্ডেরা

মাসকাওয়াথ আহসান: ভারত বনাম পাকিস্তান ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের দর্শকদের মাঝে আগের মতো উত্তেজনা নেই। ক্রিকেট জাতীয়তাবাদের আফিমে বুঁদ রেখে ৭০ বছর ধরে জনমানুষের রক্ত চুষেছে রাজনীতিক-সামরিক ও বেসামরিক প্রশাসন আর ব্যবসায়ীরা। ফলে ক্রিকেটের ছদ্ম উত্তেজনায় মাতোয়ারা হবার শখ তাদের মিটে গেছে।

কিন্তু বাংলাদেশে ভারত ও পাকিস্তানের মাঝে ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করে। উভয় দলের সমর্থকেরা ‘গালি অভিধান’ খুলে পড়া মুখস্থ করতে লেগে যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় নেমে আসে স্বপ্রণোদিত ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারূপী পিকেটাররা।

ভারতের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে বলতে থাকে, পাকি-প্রেমীরা পেয়ারা পাকিস্তানে চইলা যাও।

পাকিস্তানের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে বলতে থাকে, ভারতপ্রেমীরা ভারতে চইলা যাও।

দীর্ঘদিন ধরে যে নগর-পরিকল্পকরা ঢাকাকে বসবাস-যোগ্য করে তোলার সমাধানসূত্র খুঁজছেন; জনসংখ্যা না কমালে এ শহর ব্যবস্থাপনা অসম্ভব এটা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন; তারা এই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের মাঝে সমাধানসূত্র খুঁজে পান।

এই যে যারা কথায় কথায় দেশের মানুষকে ভারত ও পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেবার স্বপ্রণোদিত ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা হিসেবে উদয় হয়েছেন; তাদেরকে ভারত-পাকিস্তানে স্থানান্তর করা গেলেই ঢাকা শহর ঈদের ছুটির সময়ের মতো ফাঁকা হয়ে যাবে। আনন্দময় হয়ে উঠবে মহানগর।

পরামর্শটি নীতি নির্ধারকদের খুব পছন্দ হয়। পররাষ্ট্র উপদেষ্টা গওহর রিজভীকে অনুরোধ করা হয় ভারত ও পাকিস্তান সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য।

গওহর রিজভী পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ফোন করে জানান, বাংলাদেশে পাকিস্তানের এমন কট্টর সমর্থক পাওয়া গেছে; যারা খোদ পাকিস্তানীদের চেয়েও পাকিস্তানের বড় সমর্থক। তাদেরকে পাকিস্তানে রাখা যায় কীনা! এরা কথায় কথায় লোকজনকে ধমক দিয়ে বলে, ভারতে চলে যাও।

ইমরান খান বলেন, জানেনই তো; হাতে টাকা-পয়সা কিছুই নাই; সমর্থক পুষবো কী করে! আমি নিজেই তো একটু পর পর চা- পানি খেয়ে ক্ষুধা নিবারণ করি।

গওহর রিজভী বলেন, আমাদের ভিক্ষুকমুক্ত গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প রয়েছে। একটা প্রকল্প পাকিস্তানে স্থানান্তর করে দেয়া যায়। ফলে আপনার কোন খরচ হচ্ছে না। বিনাখরচে ডাইহার্ড সমর্থক পেয়ে যাচ্ছেন।

ইমরান খান তার সামনে চায়ের কাপে পড়ে যাওয়া মাছিটি চিপে চা পুনরুদ্ধার করতে করতে বলেন, ডাইহার্ড সমর্থকদের সবাই পাটোয়ারী বলে গালি দেয় আজকাল। কাজেই যাদের পাঠাতে চান; একটু বুঝিয়ে বলবেন, বেশি বেশি পাকিস্তানী জাতীয়তাবাদ দেখিয়ে আবার যেন আমার পদত্যাগের ব্যবস্থা না করে। চুপচাপ থাকতে পারলেই ভালো হয়। আর চেষ্টা করুন টাকা-পয়সা একটু বাড়িয়ে দিতে। এখানকার প্রাচীন চিন্তার উগ্র জাতীয়তাবাদী পাটোয়ারীদের জন্য একটা গুচ্ছগ্রাম করতে চাই। এরা দিন দিন লোকালয়ে বসবাসের অনুপযুক্ত হয়ে পড়ছে।

গওহর রিজভী আশ্বাস দেন, চেষ্টা করা যাবে সেটা। ভাববেন না।

এবার ভারতের প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বোঝানোর পালা। গওহর রিজভী মোদিজিকে ফোন করে জানান, বাংলাদেশে ভারতের কট্টর সমর্থক পাওয়া গেছে; যারা খোদ ভারতীয়দের চেয়েও ভারতের বড় সমর্থক। তাদেরকে কী ভারতে রাখা যায়! এরা কথায় কথায় লোকজনকে ধমক দিয়ে বলে, পাকিস্তানে চলে যাও।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, এতো বড় দেশ; গরীবী হটাতে হিমশিম খেয়ে যাচ্ছি; বোঝার ওপর শাকের আঁটি না দিলেই কী নয়! পিএইচডি করা ছেলেরা ছোট চাকরির আবেদন করছে যেখানে; সেখানে এই অকম্মা সমর্থক দিয়ে কী করবো ভায়া!

গওহর রিজভী বলেন, আমাদের ভিক্ষুকমুক্ত গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প রয়েছে। একটা প্রকল্প ভারতে স্থানান্তর করে দেয়া যায়। ফলে আপনার কোন খরচ হচ্ছে না। বিনাখরচে ডাইহার্ড সমর্থক পেয়ে যাচ্ছেন।

মোদিজি বলেন, অকম্মাগুলোকে মমতাজির ঘাড়ে গছিয়ে দিলে ভালো হতো। সামনে নির্বাচন আসছে; ডাইহার্ড সমর্থকদের একটু সমঝে চলতে বলে দিয়েছি। জানেনই তো, ডাইহার্ড সমর্থকদের এখানে চাড্ডি বলে গালি দেয় সবাই। ভয় পাই নতুন চাড্ডি এসে আমার জনপ্রিয়তায় ধস নামিয়ে না দেয়। ওরা চুপচাপ থাকতে পারলেই ভালো।

কাশ্মীরে নিয়ন্ত্রণ রেখার দু’পাশে শুরু হয় দুটি গুচ্ছগ্রাম নির্মাণের কাজ। পাকিস্তান অংশে তৈরী হয় “পাটোয়ারী ভিলেজ” আর ভারত অংশে তৈরী হয় “চাড্ডি গ্রাম”।

আকাশ বীণায় করে পাকিস্তানের কট্টর সমর্থকদের পৌঁছে দেয়া হয় “পাটোয়ারী ভিলেজে”; ভারতের কট্টর সমর্থকদের পৌঁছে দেয়া হয় “চাড্ডি গ্রামে”।

মাঝে মাঝে নিয়ন্ত্রণ রেখার উভয় পাশের সেনাদের একঘেয়ে লাগলে; তারা পরস্পরের দিকে আকাশে-বাতাসে গুলি ছুঁড়ে একটু আনন্দ করে।

সারারাত গোলাগুলির শব্দে “পাটোয়ারী ভিলেজ” ও “চাড্ডি গ্রাম”-এর
ডাইহার্ড বাসিন্দাদের আত্মারাম খাঁচাছাড়া হয়ে যাওয়ার অবস্থা।

ইমরান খান পাটোয়ারী ভিলেজের লোকেদের উদ্দেশ্যে টুইট করেন, ওয়েল কাম টু নয়া-পাকিস্তান।

মোদিজি চাড্ডিগ্রামের লোকেদের উদ্দেশ্যে টুইট করেন, আচ্ছে দিন মুবারক।

(সব চরিত্র কাল্পনিক)

 


সর্বশেষ

আরও খবর

আগামিকাল পবিত্র আশুরা

আগামিকাল পবিত্র আশুরা


সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বিল পাস

সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বিল পাস


জামিনে মুক্ত নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে

জামিনে মুক্ত নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে


৩২ ধারা বহাল রেখে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল পাস

৩২ ধারা বহাল রেখে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল পাস


২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ১০ অক্টোবর

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ১০ অক্টোবর


তাজিয়া মিছিলে আগুন-আতশবাজি-ছুরি-তলোয়ার নিষিদ্ধ: ডিএমপি কমিশনার

তাজিয়া মিছিলে আগুন-আতশবাজি-ছুরি-তলোয়ার নিষিদ্ধ: ডিএমপি কমিশনার


৪ হাজার কোটি টাকার ইভিএম ক্রয় প্রকল্প একনেকে অনুমোদন

৪ হাজার কোটি টাকার ইভিএম ক্রয় প্রকল্প একনেকে অনুমোদন


মৈত্রী পাইপলাইনের উদ্বোধন করলেন হাসিনা-মোদি

মৈত্রী পাইপলাইনের উদ্বোধন করলেন হাসিনা-মোদি


নতুন মুখের সন্ধানে: নেতা নয়, অভিনেতা !

নতুন মুখের সন্ধানে: নেতা নয়, অভিনেতা !


শ্রীলঙ্কাকে বিদায় করে বাংলাদেশকে নিয়ে সুপার ফোরে আফগানরা

শ্রীলঙ্কাকে বিদায় করে বাংলাদেশকে নিয়ে সুপার ফোরে আফগানরা