Sunday, August 28th, 2016
প্রসিকিউটরদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত: প্রধান বিচারপতি
August 28th, 2016 at 5:02 pm
প্রসিকিউটরদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত: প্রধান বিচারপতি

ঢাকা: মীর কাসেম আলীর মামলার সঙ্গে যে সকল প্রসিকিউটর সম্পৃক্ত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত বলে জানান প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার(এসকে)সিনহা। পরে রোববার মামলার রিভিউ শুনানি শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম নিজেই। মামলায় আপিলের রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে করা আবেদনের বিষয়ে আগামী ৩০ আগস্ট রায়ের জন্য রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর মামলা পরিচালনায় অদক্ষতার পরিচয় দেয়া প্রসিকিউটরদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি, তা আমার কাছে (অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম) জানতে চেয়েছেন আপিল বিভাগ। জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, বিষয়টি আমি সরকারের গোচরে আনা হবে।

কোন প্রসিকিউটরদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছিল তাদের নাম উল্লেখ না করলেও অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, ‘মীর কাসেম আলীর মামলায় যেই যেই প্রসিকিউটর মামলা পরিচালনার ব্যাপারে অংশগ্রহণ করেছেন এবং প্রধান প্রসিকিউটর যিনি তাদের দায়িত্ব প্রদান করেছেন এই কয়জনের ব্যাপারেই আদালতের অভিমত প্রকাশ করেছেন, এদের এখানে থাকা উচিত না।’

মাহবুবে আলম বলেন, ‘আজকে মামলা শুরু করার আগেই আদালত আমাকে বলেছেন, আদালত তার রায়ে কয়েকটা কমেন্টস করেছেন প্রসিকিউশনের কয়েকজন আইনজীবীর বিরুদ্ধে। তাদের এখনো কেন সরানো হয়নি। আমি আদালতকে বলেছি এটা আমি সরকারের গোচরে আনব।’

এই মামলায় ট্রাইব্যুনাল দুটি অভিযোগে (১১ ও ১২ নম্বর) মীর কাসেমকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিলেন। এর মধ্যে আপিল বিভাগ ১২ নম্বর অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেন। অ্যাটর্নি জেনারেল মনে করেন মামলা পরিচালনায় প্রসিকিউশনের দুর্বলতার কারণেই এই অভিযোগ থেকে তিনি অব্যাহতি পেতেন না। মাহবুবে আলম বলেন, ‘আমি বলেছি ১২ নম্বর চার্জেও মীর কাসেমের মৃত্যুদণ্ড হতো, যদি প্রসিকিউশন ঠিক মতো মামলাটি পরিচালনা করতো।’

তবে আপিল বিভাগ ১১ নম্বর অভিযোগে তার যে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন সেটি তা বহাল থাকবে বলে আশা করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

তিনি বলেন, ‘তাদের রায়ের অংশ বিশেষ পড়িয়ে আমি আদালতকে দেখিয়েছি জসিম যে ডালিম হোটেলে বন্দী অবস্থায় ছিল এটা প্রমাণিত। ডালিম হোটেলের সমস্ত কন্ট্রোল মির কাসেম আলীর ওপরে ছিল, এটাও প্রমাণিত। জসিমকে মুমূর্ষু অবস্থায় ছূঁড়ে ফেলার সময় মীর কাসেমের উপস্থিতির কথা দুই নম্বর সাক্ষী অ্যাডভোকেট শফিউল আলমসহ কয়েকজন সাক্ষী বলেছেন। কাজেই সার্বিক দিক বিবেচনা করে তাকে যে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে এটা সঠিকই হয়েছে এ বক্তব্য আমার ছিল। তার দণ্ড বহাল থাকবে এই মর্মে আমি আশাবাদী।

প্রতিবেদক- ফজলুল হক, সম্পাদনা- জাহিদুল ইসলাম


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর