Wednesday, February 14th, 2018
প্রশ্ন ফাঁস হয় মানুষের হাতে, ইন্টারনেটের দোষ কী: মোস্তাফা জব্বার
February 14th, 2018 at 7:22 pm
প্রশ্ন ফাঁস হয় মানুষের হাতে, ইন্টারনেটের দোষ কী: মোস্তাফা জব্বার

ঢাকা: দেশের পরীক্ষা নেয়ার ‘প্রাচীন’ পদ্ধতি ডিজিটাল যুগে ‘অচল’ হয়ে যাবে- এমন মন্তব্য করে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘মানুষের ধারণা ইন্টারনেট প্রশ্ন ফাঁস করে। কিন্তু ইন্টারনেট প্রশ্ন ফাঁস করে না, করে মানুষ।’

‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা- ২০১৮’ উপলক্ষে ডাকটিকিট, উদ্বোধনী খাম, ডাটাকার্ড প্রকাশ ও জাতীয় পরিচয়পত্র পরিবহনের জন্য নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে ডাক বিভাগের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের (এমওইউ) জন্য অনুষ্ঠানে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা জানান।

চলমান এসএসসি পরীক্ষাসহ সম্প্রতি অনুষ্ঠিত প্রায় প্রতিটি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রথমে এই প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ অস্বীকার করা হলেও বিষয়টি ব্যাপক আকার ধারণ করায় কর্তৃপক্ষ নড়েচড়ে বসে। পরীক্ষা চলাকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক এমনকি ইন্টারনেট বন্ধের সুপারিশ পর্যন্ত আসে। যদিও শেষ পর্যন্ত তা কার্যকর হয়নি।

ইতোমধ্যে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এ ব্যাপারে ব্যাপক তৎপর হযেছে। তবুও প্রশ্ন ফাঁস কোনোক্রমেই থামছে না। বিষয়টি নিয়ে সরকার ও দেশবাসী গভীর উদ্বেগে রয়েছে।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘প্রথমত প্রশ্ন ফাঁস কেমন করে হয় তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিষয়। শিক্ষামন্ত্রী এ বিষয়গুলো বলতে পারবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এটা ভালো বলতে পারবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দিক থেকে যে বিষয়টি স্পষ্ট করা দরকার সেটি হলো প্রচলিত পদ্ধতিতে আমরা যে পরীক্ষা গ্রহণ করি, যেভাবে প্রশ্ন প্রস্তুত করি এবং প্রশ্ন করা থেকে পরীক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছানো হয় এ প্রক্রিয়াটি দীর্ঘদিন যাবৎ এমনভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে তাতে যত লোকের সঙ্গে এটা যুক্ত সেখানে নিশ্ছিদ্র ব্যবস্থা গড়ে তোলা বড় কঠিন। এটা সত্যি সত্যি দুরূহ কাজ।’

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আর যখন প্রশ্ন ফাঁস হয় তখন ইন্টারনেটের ওপর দায়টা আসে। কারণ ইন্টারনেটে আমাদের রাষ্ট্রীয় তথ্য থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত তথ্য প্রচার করি। প্রচারের দায়টা যদি প্রযুক্তির ঘাড়ে দিতে চান তাহলে এ দায়টা হয়তো কিছুটা দেয়া যেতে পারে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আর যদি ডিজিটাল প্রযুক্তির কথা বলেন নিঃসন্দেহে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বিধান করার উপায় আমাদের হাতে আছে। প্রয়োগ করাটা হ্যাঁ ওটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ হবে। কারণ শিক্ষার্থীতো দুই চারজন নয়। লাখ লাখ শিক্ষার্থী, প্রতিষ্ঠান, শিক্ষকদের মধ্যে থেকে আমরা প্রযুক্তিগতভাবে এ রকম ব্যবস্থা করতে পারি যার মাধ্যমে কারও পক্ষে প্রশ্ন ফাঁস করার কোনো সুযোগই থাকবে না।’ তবে ইন্টারনেট বন্ধ করা বা ফেসবুক বন্ধ করা এটি সমাধান নয় বলে মনে করেন তিনি।

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: এম কে রায়হান


সর্বশেষ

আরও খবর

বিএফইউজের নতুন সভাপতি ফারুক, মহাসচিব দীপ

বিএফইউজের নতুন সভাপতি ফারুক, মহাসচিব দীপ


কালীপূজায় হবে না দীপাবলি!

কালীপূজায় হবে না দীপাবলি!


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতেই মুহিবুল্লাহকে হত্যা: পুলিশ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতেই মুহিবুল্লাহকে হত্যা: পুলিশ


সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭

সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭


ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪

ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪


সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান


কুমিল্লার মণ্ডপে কোরআন রাখা ব্যক্তি শনাক্ত

কুমিল্লার মণ্ডপে কোরআন রাখা ব্যক্তি শনাক্ত


কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে, দ্রুতই গ্রেপ্তার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে, দ্রুতই গ্রেপ্তার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ


দেবীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ড নিছক দূর্ঘটনা: ইউএনও

দেবীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ড নিছক দূর্ঘটনা: ইউএনও