Thursday, June 30th, 2022
প্রাণভয়ে ভীত শতাধিক রোহিঙ্গা নারী-শিশুকে ‘পুশব্যাক’
November 19th, 2016 at 5:15 pm
প্রাণভয়ে ভীত শতাধিক রোহিঙ্গা নারী-শিশুকে ‘পুশব্যাক’

ডেস্ক: মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর অভিযান থেকে প্রাণ নিয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা মুসলমানদের সীমান্ত থেকে ‘পুশব্যাক’ অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার রাতেও কক্সবাজারের টেকনাফ সংলগ্ন নাফ নদী দিয়ে সাতটি নৌকায় করে ১২৫ জনের মতো রোহিঙ্গা মুসলমান মিয়ানমারের আরাকান প্রদেশের মংডু থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার সময় কোস্ট গার্ডের সামনে পড়ে যায়। কোস্ট গার্ড তাদের পুশব্যাক করে অর্থাৎ মিয়ানমারের দিকে ঠেলে দেয়।

কোস্ট গার্ডের টেকনাফ স্টেশনের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট নাফিউর রহমান বলেন, তাদের উদ্দেশ্য ছিল হয়তো বাংলাদেশের দিকে আসা, এজন্য আমরা তাদের ফেরত পাঠিয়ে দেই। অনেকটা পুশব্যাকের মতো বলা যায়।’

তিনি আরো বলেন, নৌকাগুলোতে ৩৬টি শিশু ছিল। পুরুষ ছিল মোট ২৮ জন। বাকিরা নারী। সঠিক সংখ্যা না জানা গেলেও প্রায় প্রতিদিনই মোটামুটি এমন পুশব্যাকের ঘটনা ঘটছে।

বৃহস্পতিবার রাতেও ৭৮ জন এবং বুধবার রাতে আরো ১৮ জনকে পুশব্যাকের কথা বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কর্মকর্তাদের বরাতে জানা যাচ্ছে।

কিন্তু বাংলাদেশে যে শত শত রোহিঙ্গা পালিয়ে আসছে এবং তাদের ফের পুশব্যাক করা হচ্ছে, এমন খবর অস্বীকার করেছে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ।

দেশটির সুপরিচিত ইংরেজি দৈনিক নিউ লাইট অফ মিয়ানমারের খবরে স্টেট কাউন্সেলর অফিসের নিউজ ইনফরমেশন কমিটির বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে শত শত মানুষ নাফ নদী দিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে বলে খবর বের হচ্ছে, তদন্ত করে সেই খবরের কোনো ভিত্তি পাওয়া যায়নি।

তবে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে প্রায় প্রতিদিনই আসছে এমন পালিয়ে আসা এবং পুশব্যাকের খবর।

এমনকি, এসব খবর আমলে নিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের সীমান্ত খুলে দেবার আহ্বানও জানিয়েছে জাতিসংঘ।

বাংলাদেশের দায়িত্বশীল কোনো সূত্র এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে মুখ না খুললেও, স্থানীয় কর্তৃপক্ষগুলোর সাথে কথা বলে এবং তাদের কর্মকাণ্ডে এটা স্পষ্ট যে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা কাউকে আশ্রয় না দেয়ার কঠোর নীতি গ্রহণ করেছে দেশটি। এ লক্ষ্যে সীমান্তে নজরদারি ও জনবলও বৃদ্ধি করা হয়েছে।

তবে এত কড়াকড়ি পরও বহু রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশের ভূখণ্ডে গত কয়েকদিনে ঢুকে পড়েছে বলে বিভিন্ন সূত্রে খবর পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু গত ৯ অক্টোবর থেকে রাখাইনে যে সেনা অভিযান চলছে, তারপর থেকে বহু রোহিঙ্গা মুসলমান প্রাণভয়ে এলাকা ছেড়ে পালাচ্ছে, এমন খবর গত ক’দিন ধরেই আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে আসছে।

এই অভিযানে রাখাইনে বসবাসরত রোহিঙ্গা মুসলমানদের নির্বিচারে হত্যা, মহিলা ও কিশোরীদের ধর্ষণ, তাদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ব্যাপক ভিত্তিক অভিযোগ আছে।

সেনাবাহিনী বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। টানা অভিযোগের এক পর্যায়ে তারা সম্প্রতি শুধু ৬৯ জন ‘বাঙালি’ এবং ‘সহিংস হামলাকারী’কে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। সূত্র: বিবিসি

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: জাহিদ


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার