Monday, October 3rd, 2016
ফার্কের সাথে শান্তিচুক্তিতে কেন ‘না’?
October 3rd, 2016 at 3:05 pm
ফার্কের সাথে শান্তিচুক্তিতে কেন ‘না’?

ডেস্ক: চার বছর ধরে আলোচনার পর গত সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট হুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস ও ফার্ক নেতা টিমোলিয়ন হিমেনেজ এ শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন।শান্তিচুক্তিটি বাস্তবায়নে দেশটির জনগণের সমর্থন প্রয়োজন ছিল। কিন্তু রোববার গণভোটের মাধ্যমে ফার্ক বিদ্রোহীদের সঙ্গে সরকারের শান্তিচুক্তি প্রত্যাখ্যান করেছেন কলম্বিয়ার জনগণ। কেন দেশটির সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটার ফার্ক বিদ্রোহীদের সঙ্গে শান্তিচুক্তি প্রত্যাখ্যান করেছেন। প্রশ্ন উঠতেই পারে, আপসের এমন সুযোগ তাঁরা কেন হারালেন?

গতকাল রোববার বোগোতায় এ বিষয়ে গণভোটে চুক্তির বিপক্ষে ৫০ দশমিক ২৪ শতাংশ ভোট পড়েছে। অবশ্য গতকালের গণভোটে ভোট পড়েছে মাত্র ৩৭ শতাংশ।

ফার্সকের সাথে শান্রতিচুক্তিতে কলম্বিয়ার জনগণের প্রত্যাখ্যানের কারণ চিহ্নিত করেছে এএফপি। তথ্যমতে, ফার্ক বিদ্রোহীদের সঙ্গে কলম্বিয়ার বাহিনীর সংঘর্ষে ২ লাখ ৬০ হাজার জনের প্রাণহানি হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে ৪৫ হাজার জন। বাড়িঘর হারিয়েছে ৭০ লাখ মানুষ। তাই ফার্কের প্রতি কলম্বিয়ার অনেক জনগণেরই মনোভাব বিরূপ।

শান্তিচুক্তিতে ফার্ক বিদ্রোহীদের জন্য সাধারণ ক্ষমার প্রস্তাব করা হয়েছে। এখানেই বেশির ভাগ জনগণের আপত্তি। তাঁদের মতে, ফার্ক বিদ্রোহীরা গণহত্যা, নির্যাতন ও ধর্ষণের মতো মারাত্মক যুদ্ধাপরাধ করেছে। কিন্তু চুক্তিতে যেসব ফার্ক বিদ্রোহী অপরাধ স্বীকার করেছে, তাদের দণ্ড মওকুফ করারও প্রস্তাব দেওয়া হয়।

ফার্কের প্রতি কলম্বিয়ার সরকারের এই সদয় আচরণ মেনে নিতে পারছেন না মনিকা গনজালেজ নামের এক নাগরিক। তিনি বলেন, চুক্তিতে ফার্কের প্রতি অতিমাত্রায় নমনীয় মনোভাব দেখানো হয়েছে। কিন্তু ফার্কের বিদ্রোহীরা ২০১১ সালে তাঁর নানিকে হত্যা করেছে। গতকাল রাতে কলম্বিয়ার উত্তরাঞ্চলের বোগোটায় গণভোটের বিজয় উদ্যাপনকালে মনিকা গনজালেজ এ কথা বলেন। তিনি বলেন, চুক্তিতে থাকার ফার্ক বিদ্রোহীদের শাস্তি লাঘবের বিষয়ে তিনি একমত নন।

সাম্যবাদে ‘না’
১৯৬৪ সালে ফার্ক গড়ে ওঠে। ভূমির নিয়ন্ত্রণ ও সাম্যবাদী সরকার প্রতিষ্ঠাই ছিল ফার্কের আন্দোলনের লক্ষ্য। কিউবার সঙ্গে পরামর্শের মাধ্যমে ওই চুক্তির প্রস্তাব করা হয়েছে। চুক্তির লক্ষ্য ফার্ককে বেসামরিক রাজনৈতিক দলে পরিণত করা। সেখানে কংগ্রেসের জন্য অস্থায়ী আসন রয়েছে।
কিন্তু রাজনৈতিক দল হিসেবে ফার্ককে মেনে নেওয়া কলম্বিয়ার জনগণের জন্য খুব কঠিন। কলম্বিয়ার জনগণ আদর্শগত ও নৈতিক দিক থেকে ফার্ককে প্রত্যাখ্যান করে।

গণভোটে ‘না’ শিবিরের নেতা ও কলম্বিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট অ্যালভারো উরিব বলেন, এই চুক্তি দেশকে ক্যাস্ত্রো-শ্যাভেজপন্থীদের দিকে নিয়ে যাবে। গণভোটের ফলাফল চুক্তি প্রত্যাখ্যানের পক্ষে যাওয়ায় জিসাস ভিভাস নামের এক প্রবীণ বলেন, ‘গতকালের গণভোটে গণতন্ত্র জয়ী হয়েছে। এতে আমার পরিবার ও শিশুদের ভবিষ্যৎ রক্ষা হয়েছে। আমরা সাম্যবাদকে “না” বলেছি।’

সান্তোসকে ‘না’
কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস গত ২৬ সেপ্টেম্বরে যখন ফার্কের সঙ্গে চুক্তি সই করেন, তখন বিজয়ের আনন্দ প্রকাশ করেন। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাঁর এই চুক্তির পক্ষে সমর্থনের হার ক্রমে কমেছে। চুক্তির বিরোধীরা বলছে, তারা শান্তির পক্ষে। কিন্তু যুদ্ধ শেষ করার কৃতিত্ব প্রেসিডেন্ট যেভাবে নিতে চেয়েছেন, এতে তাদের আপত্তি রয়েছে।

কংগ্রেস উইম্যান মারিয়া ফারনান্দা কাবাল বলেন, ফার্ক বিদ্রোহীদের সঙ্গে মীমাংসার প্রক্রিয়া চলবে। কিন্তু দেশকে লুটেরাদের হাতে তুলে দিয়ে নয়। অথবা প্রেসিডেন্ট সান্তোসের অহমিকা বজায় রেখে নয়।

ভোটে অনাগ্রহ
গতকালের গণভোটে মাত্র ৩৭ শতাংশ ভোট পড়েছে। এর আগে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, ঘূর্ণিঝড় ম্যাথিউয়ের প্রভাবে ভারী বৃষ্টির কারণে ভোটে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। অনেক ভোটার আসেননি। কলম্বিয়ার জনগণের মধ্যে এই গণভোট নিয়ে খুব বেশি আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়নি।

 

গ্রন্থনা: প্রণব আচার্য্য


সর্বশেষ

আরও খবর

বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় দেশে ফিরছেন ওবায়দুল কাদের

বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় দেশে ফিরছেন ওবায়দুল কাদের


কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৩

কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৩


ভূমধ্যসাগরে নিহত ২৭ বাংলাদেশির পরিচয় মিলেছে

ভূমধ্যসাগরে নিহত ২৭ বাংলাদেশির পরিচয় মিলেছে


ফুট ওভার ব্রীজ ব্যবহারে অনীহা

ফুট ওভার ব্রীজ ব্যবহারে অনীহা


দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী


আগামী তিনদিনের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা

আগামী তিনদিনের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা


বাগদাদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ৮

বাগদাদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ৮


সঙ্কটে বাংলাদেশ বিমান: শিডিউল বিপর্যয়

সঙ্কটে বাংলাদেশ বিমান: শিডিউল বিপর্যয়


প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় এটিএম শামসুজ্জামানের পরিবার

প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় এটিএম শামসুজ্জামানের পরিবার


আমাদের সময় শেষ হয়ে আসছে: ফখরুল

আমাদের সময় শেষ হয়ে আসছে: ফখরুল