Wednesday, June 29th, 2016
ফের আলোচনায় রেহমানের সেই চিঠি
June 29th, 2016 at 10:58 pm
ফের আলোচনায় রেহমানের সেই চিঠি

ঢাকা: আবারো আলোচনায় এসেছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঠানো শফিক রেহমানের এক চিঠি। কারান্তরীণ এই প্রবীণ সাংবাদিকরাজনীতির সাথে জড়িত নন বলে মঙ্গলবার খালেদা যে বক্তব্য দিয়েছেন, তারই প্রেক্ষিতে বুধবার জনপ্রিয় সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফের প্রকাশ হওয়া ওই চিঠিটি মূলত একটি ভাষণের কভার লেটার।

জানা গেছে, ২০১০ সালের নভেম্বরে খালেদা জিয়াকে ক্যান্টনমেন্টের মঈনুল রোডের বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পর আন্তঃবাহিনী গণসংযোগ অধিদপ্তর(আইএসপিআর) ও ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের সদস্যরা সাংবাদিকদের সেখানে নিয়ে গিয়েছিলেন। তখন ওই কভার লেটারসহ একটি ভাষণের কপি অযত্নেখালেদার শোবার ঘরের মেঝেতে পরে থাকতে দেখা যায়। যেটি ছিলো ২০০১ সালের ২৫ সেপ্টেম্বরে শফিক রেহমানের লিখে দেওয়া একটি নির্বাচনী ভাষণেরপ্রথম খসড়া। ওই সময় বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হয় কভার লেটারটি। এবার এটিকে ফের আলোচনায় এনেছেন সাংবাদিক প্রভাষ আমিন।

প্রবাস আমিন

রাজধানীর ইস্কাটন লেডিস ক্লাবে মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর বিএনপি আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দাবি করেন, প্রবীণ সাংবাদিক শফিক রেহমান রাজনীতির সাথে জড়িত নন। বক্তব্যে তিনি রেহমানকে বার বার ‘রহমান’ বলেও উল্লেখ করেন। ফেসবুকে এ নিয়ে বলতে গিয়ে উল্লেখিত চিঠির একটি ছবি প্রকাশ করে তার বর্ণনায় প্রভাষ আমিন লিখেছেন, ‘শফিক রহমান, তিনি একজন সাংবাদিক, তিনি রাজনীতি করেন না। কোনো দলের সঙ্গে তিনি সেভাবে সম্পৃক্ত নয়। আমাদের সঙ্গে একটু জানাশোনা আছে। শফিক রহমানের তার দোষ কী? : বেগম খালেদা জিয়া। গতকাললেডিস ক্লাবে মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক ইফতার মাহফিলে বেগম জিয়া এ কথা বলেন। তিনি একদম ঠিক কথা বলেছেন। তিনি একজন সাংবাদিক,তিনি রাজনীতি করেন না, কোনো দলের সাথে সেভাবে সম্পৃক্ত নন। তবে প্রবীণ এই সাংবাদিকের নাম শফিক রেহমান, শফিক রহমান নয়। বারবার রহমানশুনতে খুব কানে লাগে। আর একটু জানাশোনার একটা ছোট্ট নমুনা থাকলো এখানে।’

নমুনা হিসেবে উপস্থাপিত ওই কভার লেটারে শফিক রেহমান বেগম জিয়াকে লিখেছেন, ‘ম্যাডাম, আপনার ভাষনের ফার্স্ট ড্রাফট এটা। ভাষাগত পলিশ এরপরে করা হবে। জনগণের কাছে আবেগমুখী কথাগুলো এরপরে সংযোজন করা হবে। এখন শুধু আপনি দেখবেন, আপনার ধারণা অনুযায়ী সব পয়েন্টগুলোকভার করা হয়েছে কি’না।’ যায়যায়দিন পত্রিকার প্যাডে পাঠানো ওই চিঠির শেষে শফিক রেহমানের সাক্ষর এবং তারিখ (২৫.৯.২০০১) উল্লেখ রয়েছে।

এটিএন নিউজের এ্যাসোসিয়েট হেড অব নিউজ আমিনের প্রকাশ করা ওই ছবিটি আট ঘন্টায় প্রায় চারশ জন পছন্দ করেছেন। শেয়ার হয়েছে চব্বিশ বার।এতে মন্তব্য করতে গিয়ে চট্টগ্রামের মোহম্মদ কিরনে লিখেছেন, ‘শফিক রহমান বক্তব্য লিখে না দিলে দেশনেত্রী ভাষণ দিতে পারেন না। আর বলছেন,শফিক রহমান রাজনীতির সাথে সেভাবে যুক্ত না! দেশনেত্রীর কি চমৎকার যুক্তি!’ একই নগরীর বাসিন্দা দিদারুল আলম দিদার লিখেছেন, ‘শফিক রেহমান(বেগম জিয়ার ভাষায়) যদি রাজনীতি না করেন, তাহলে কি করেন? তিনি কি বেগম জিয়ার ভাড়াটে বক্তৃতা লেখক?’

আবার চাঁদপুরে বসবাসরত স্কয়ার ফুড এন্ড বেভারেজ লিমিটেডের অফিসার মুহাম্মদ মুহসীন লিখেছেন, ‘এটা কিন্তু নতুন কোন বিষয় নয় ভাই। উনারব্যাপারে সবিস্তারে আলোচনা সমালোচনা হয়েছে। শফিক রেহমান কে, বিএনপির সাথেই বা তার কি রকম কানেকশন ইত্যাদি ইত্যাদি। কিন্তু কথা হচ্ছেতিনি একজন সাংবাদিক। তার কারাগারে অন্তরীণ হওয়া নিয়ে কিছু সাংবাদিক ভাইদের ভূমিকা সত্যিই হতাশাজনক! এটা একধরনের অশনিসংকেত ও বটে!কেননা এক মাঘে শীত যায় না।’ এর জবাবে আমি লেখেন, ‘শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তারের পর আমি “ভিন্নমত তো অপরাধ নয়” শিরোনামে কলাম লিখে তারমুক্তি দাবি করেছিলাম। একবারও বলিনি, ভাষণ লিখে দেয়া তার অপরাধ।’

চিঠির ছবিতে মন্তব্য করতে গিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক ও আমার দেশ’র সাংবাদিক কাদের গনি চৌধুরীও আমিনের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেছেন, ‘শফিক রেহমান খালেদা জিয়ার বক্তৃতা লিখে দিলে এতে দোষের কি আছে?’ জবাবে আমি বলেছেন, ‘দোষের কিছু আছে বলিনি তো ভাই। শফিক রেহমানলিখে দিতেন বলেই তো ম্যাডামের বক্তৃতা ভালো হতো। আমি মনে করি সব নেতারই এমন পেশাদার লেখক থাকা প্রয়োজন। আমি খালি শফিক ভাইয়েরনামের উচ্চারণের কথা বলেছি। আর জানাশোনা প্রসঙ্গে এই নোটটি দিয়েছি।’

এছাড়া মন্তব্য করতে গিয়ে গড়াই ফিল্মস’এ কর্মরত মারুফ বরকত বলেছেন, ‘গুরুত্বপূর্ণ বক্তৃতার ড্রাফট চালাক চতুর মানুষকে দিয়ে সবাই লেখাতে চায়।হয়ত এই ম্যাডামেরটাও কেউ লেখে। তবে, তারা সাথে চিরকূট দেয়না, এই পার্থক্য। ড্রাফট করে দেয়া ভুল না, চিরকূট দেয়া ভুল। সেই চিরকূট অসাবধানেফেলে রাখা তার চেয়েও বড় ভুল।’

বুধবার রাতে এনিয়ে আলাপকালে প্রভাষ আমিন নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে বলেন, ‘আমি তার (খালেদা জিয়ার) বক্তব্যের কোনো বিরোধীতা করিনি। তিনিশফিক রহমানের সাথে একটু জানাশোনা থাকার কথা বলেছেন। আমি তারই সম্পূরক হিসেবে ছবিটি দিয়েছি। যাতে সবাই জানতে পারে তাদের জানাশোনাটাকোন  মাত্রার ছিলো।’

এর আগে গত ১৬ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টার মামলায় শফিক রেহমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।ওই মাসে ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং করপোরেসন (বিবিসি) তার এক সাক্ষাতকার প্রকাশ করে। সেখানেও বলা হয়েছিলো, ‘বিএনপি’র নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে অনেকসিনিয়র নেতা ভূমিকা রাখতে না পারলেও, তিনি দলকে প্রভাবিত করতে পারেন। অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপিতে পর্দার আড়াল থেকে যিনি এভূমিকা রাখনে তিনি হচ্ছেন সদ্য গ্রেফতার হওয়া সিনিয়র সাংবাদিক রেহমান।’

বিবিসি আরো লিখেছিলো, ‘বিএনপি’র সাথে শফিক রেহমানের ঘনিষ্ঠতা অনেকটা প্রকাশ্য। বিএনপি’র নীতি নির্ধারণে শফিক রেহমান কেন এতটা গুরুত্বপূর্ণ?দলে তার প্রাথমিক সদস্য পদ নেই। তারপরেও কেন তিনি বিএনপি’তে এতো প্রভাবশালী? বিএনপি’র অনেক নেতা মনে করেন শফিক রেহমান খালেদাজিয়ার অত্যন্ত আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত। যাদের পরামর্শ বা মতামতকে খালেদা জিয়া সবচেয়ে বেশি মূল্যায়ন করেন তাদের মধ্যে শফিক রেহমানঅন্যতম।’ শফিক রেহমান নিজেও এ কথা বিবিসি’কে বলেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) ক্ষমতায় আসে। এরপর শফিক রেহমান জোট সরকারেরকাছ থেকে তেজগাঁওয়ে শিল্পপ্লট বরাদ্দ নেন। সেখানে তিনি ২২ বছর ধরে প্রকাশ হয়ে আসা সাপ্তাহিক যায়যায়দিনকে দৈনিক হিসেবে প্রকাশ করেন। সেইসময়ের সবচেয়ে বিলাসবহুল মিডিয়া হাউস হিসেবে গড়ে তুলেছিলেন সেই দৈনিক পত্রিকার অফিস। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনে (বিটিভি) লাল গোলাপনামে একটি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানও উপস্থাপনা করতেন। পরে অনুষ্ঠানটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বাংলাভিশনেও প্রচারিত হয়। এছাড়া শফিক রেহমানমৌচাকে ঢিল নামে একটি পত্রিকা সম্পাদনা করেছেন।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এসকে


সর্বশেষ

আরও খবর

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের


জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ

জাতীয় পার্টির ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন’ বিরোধী সমাবেশ


গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর

গালিগালাজের ভয়েস নিজের না দাবি নিক্সন চৌধুরীর


বিএনপি মহাসচিবের বাসায় ঢিল: ১২ নেতা সাময়িক বহিষ্কার

বিএনপি মহাসচিবের বাসায় ঢিল: ১২ নেতা সাময়িক বহিষ্কার


‘সুপারম্যান‘ ট্রাম্প করোনাভাইরাসের ‘সুপারপাওয়ার‘ বুঝতে ভুল করেছেন

‘সুপারম্যান‘ ট্রাম্প করোনাভাইরাসের ‘সুপারপাওয়ার‘ বুঝতে ভুল করেছেন


লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটস এর স্পীকার হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ব্রিটিশ বাঙ্গালী আহবাব হোসেন

লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটস এর স্পীকার হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ব্রিটিশ বাঙ্গালী আহবাব হোসেন


ভেঙে গেলো গণফোরাম

ভেঙে গেলো গণফোরাম


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু


ভূরাজনৈতিক বিরোধে জাতিসংঘকে দুর্বল না করার আহবান প্রধানমন্ত্রীর

ভূরাজনৈতিক বিরোধে জাতিসংঘকে দুর্বল না করার আহবান প্রধানমন্ত্রীর