Sunday, July 3rd, 2022
বাঁধ ভেঙে আশাশুনির ২৪ গ্রাম প্লাবিত
October 19th, 2016 at 1:29 pm
প্রবল জোয়ারের তোড়ে খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে আশাশুনি উপজেলার ২৪টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। ভেসে গেছে হাজার হাজার মানুষের ঘরবাড়ি, মাছের ঘের ও ফসলি জমি। দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট।
বাঁধ ভেঙে আশাশুনির ২৪ গ্রাম প্লাবিত

সাতক্ষীরা: প্রবল জোয়ারের তোড়ে খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে আশাশুনি উপজেলার ২৪টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। ভেসে গেছে হাজার হাজার মানুষের ঘরবাড়ি, মাছের ঘের ও ফসলি জমি। দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট।

শ্রীউলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হেনা শাকিল বলেন, “সরকারিভাবে কোনো পৃষ্ঠপোষকতা করা হচ্ছে না। পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে খালি কিছু বস্তা দেয়া ছাড়া আর কিছুই করা হয়নি। শনিবার ভোরে কোলা এলাকায় প্রায় ৫০ হাত বাঁধ ভেঙে যায়। হাজার হাজার এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে চেষ্ট করেও ব্যর্থ হয়। বিষয়টি জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জানানো হয়েছে।”

তিনি আরো বলেন, “বেড়িবাঁধ ভেঙে শ্রীউলা ইউনিয়নের ২২টি গ্রাম ও প্রতাপনগর ইউনিয়নের দুটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। কয়েকশো কোটি টাকার মৎস্য ঘের নষ্ট হয়েছে, ভেসে গেছে ফসলি জমি। ১৪ হাজার মানুষের ঘরবাড়ি পানিতে ডুবে গেছে। ঘরবাড়ি হারিয়ে লোকজন সাইক্লোন সেন্টার, ওয়াপদা, স্কুল ও বিভিন্ন উঁচু স্থানে আশ্রয় নিয়েছে।”

কামারখালি গ্রামের মিজানুর রহমান বলেন, “ওয়াপদা যদি ব্লক সিস্টেম হতো তাহলে এত ভাঙতো না। এমন কোনো বছর নেই যে, দু’একবার বেড়িবাঁধ ভাঙে না। এরই ফলে হাজার হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ত্রাণ নয়, বাঁধটি স্থায়ীভাবে সংস্কার চাই।”

জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দীন বলেন, “আশাশুনির প্রতাপনগর ও শ্রীউলা ইউনিয়নের বেড়িবাঁধগুলো ঝুকিপূর্ণ। যে ধরনের বাঁধ থাকার দরকার, সে ধরনের বাঁধ সেখানে নেই। সরকারের কাছে প্রস্তাব রেখেছি, এ বেড়িবাঁধগুলো সংস্কার করে যে ধরনের বাঁধ দেয়া প্রয়োজন সে ধরনের বাঁধ দেয়ার জন্য। পাশাপাশি ঘটনাটি ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউএনওকে নির্দেশ দিয়েছি বাঁধটি সংস্কার করার জন্য। এছাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডকেও বলা হয়েছে।”

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: আবু তাহের


সর্বশেষ

আরও খবর

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


সেনাবাহিনীতে নিরপেক্ষ মূল্যায়ন চান প্রধানমন্ত্রী

সেনাবাহিনীতে নিরপেক্ষ মূল্যায়ন চান প্রধানমন্ত্রী


সমৃদ্ধ এশিয়া গড়তে পাঁচ প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

সমৃদ্ধ এশিয়া গড়তে পাঁচ প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর


দুর্নীতির দায়ে শ্রীঘরে সরকার দলীয় এমপি

দুর্নীতির দায়ে শ্রীঘরে সরকার দলীয় এমপি


মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে দেশ যোজন দূরে: ড. মিজান

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে দেশ যোজন দূরে: ড. মিজান


সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস: প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ, আশ্বাস আইনমন্ত্রীর

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস: প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ, আশ্বাস আইনমন্ত্রীর


দুর্গাপূজা: নিরাপত্তা নিশ্চিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা

দুর্গাপূজা: নিরাপত্তা নিশ্চিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা


মহামারিতেও থেমে নেই সংখ্যালঘু পীড়ন

মহামারিতেও থেমে নেই সংখ্যালঘু পীড়ন


‘বিধিনিষেধে শিল্পকারখানাসহ কোনো প্রতিষ্ঠান খুললেই ব্যবস্থা’

‘বিধিনিষেধে শিল্পকারখানাসহ কোনো প্রতিষ্ঠান খুললেই ব্যবস্থা’